নূর মোহাম্মদ

নূর মোহাম্মদ

এমডি, গার্ডিয়ান পাবলিকেশন্স


১৫ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১০:৪১ এএম

স্যালুট টু ইউ ডক্টর

স্যালুট টু ইউ ডক্টর

রাত ২.২৫ মিনিট। ঘুমোতে চেষ্টা করছি খুব। নির্ঘুম চোখে কেবল একজন মানুষের হাস্যোজ্বল চেহারা। একজন মানবিক মানুষের অনন্য সেবার কথা ভুলতে পারছি না কিছুতেই।

ভদ্রলোক একজন ডাক্তার। হতদরিদ্র কাঠশ্রমিক যুবক ভাই গাছ কাটতে গিয়ে এক্সিডেন্ট করেছিল। পা ভেঙ্গে দুমাস ধরে পুঙ্গ। টাকার অভাবে চিকিৎসা নিতে পারছিলেন না। পা দিনদিন মারাত্মক অবস্থার দিকে যাচ্ছিল।

ঘটনাচক্রে যুবক ভাইয়ের অপারেশনের জন্য সহযোগীতা চেয়ে ফেসবুকে পোষ্ট করেছিলাম। পুরো দিনে ভালো কোনো রেসপন্স পাচ্ছিলাম না। কিছুটা হতাশ হয়ে গেলাম।

রাতে একজন টেক্সট করলো- 'আপনার সাথে কথা বলা দরকার। রোগীর অপারেশনের ব্যাপারে।'

আমি প্রোফাইল ঘেটে দেখি, ভদ্রলোক সার্জন। ডাক্তার। উনি জানালেন, আপনি রোগীকে নিয়ে আসুন। অপারেশন হবে ইনশাআল্লাহ। এক টাকা না থাকলেও অপারেশন হবে।

আমি সিজদায় পড়ে গেলাম। আল্লাহ আমার ডাক শুনেছেন। আল্লাহ তায়ালা এক দরিদ্র পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম মানুষের দিকে তাকিয়েছেন।

ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজে উনার চেম্বারে গিয়েছিলাম। সিরিয়াল নিয়ে বসে আছি। এশার জামায়াতের সময় হলো। উনি বেরিয়ে আসলেন। আমাকে দেখেই প্রশ্ন করলেন, কখন এসেছেন, কষ্ট হয়েছে কী?

সিএনজিতে আসার পথেই তিনবার ফোন করে খোঁজ নিয়েছেন। ডাক্তার সাহেবের বডি লাঙ্গুয়েজ আর আন্তরিকতা দেখেই রোগী অর্ধেক সুস্থ। যেন অপারেশন ছাড়াই হাঁটতে পারবেন। প্রয়োজনীয় টেস্ট দিয়ে উনি জানিয়ে দিলেন, আগামীকাল অপারেশন।

গতকাল রাতেই ফোন করে হসপিটালে ভর্তির ব্যবস্থা করলেন। সকালে ফোন করে বিকাল ৫টায় অপারেশনের সিদ্ধান্ত জানালেন। দুপুরে ফোন করে তখনই অপারেশন করবেন বলে জানালেন। আমার হসপিটালে পৌঁছতে ১ ঘন্টা লাগলো। উনি ওটিতে যাওয়ার আগেও ফোন করে দোয়া চাইলেন। আমি হতবাক! ডাক্তার সাহেব আমার কাছে দোয়া চাইছেন?

হসপিটালে ঢুকে ওটির গ্লাস ঠেলে দেখলাম, ডাক্তার সাহেব পুরোপুরি রেডি। হাত নেড়ে বললেন, ভয় নাই। আমি যেন উপলব্ধি করছি, আমার আপন ভাই অপারেশন করছেন।

অপারেশনের মাঝে একবার বাহিরে এসে আমাকে খুঁজে গেছেন। সব শেষে হাসিমুখে ফিরে বললেন, আলহামদুলিল্লাহ, জব ইজ ডান।

আমি কেবল ভদ্রলোক ডাক্তার সাহেবের দিকে তাকিয়ে আছি। একজন সিম্পল লাইফ লিড করা, উন্নত ও মার্জিত আচরণ করা ডাক্তারের মুখের দিকে অপলক তাকিয়ে অনেককিছু ভাবছিলাম।

উনাকে অনেককিছু বলতে ইচ্ছে করছিল। অনেককিছু...

সামনাসামনি কিছুই বলতে পারিনি। সত্যি একটা ধন্যবাদও দিতে সাহস পাইনি। এক বটবৃক্ষের ছায়ায় শীতল মুসাফির যেন প্রশান্তচিত্ত ও নির্বাক।

স্যালুট টু ইউ ডক্টর। এই যুবক আল্লাহর রহমতে সুস্থ হয়ে হয়তো রিক্সা চালাবে, হয়তো আবার কাঠ কাটবে। প্রতিটি রিক্সার প্যাডেলে আপনার পা থাকবে, কুঠারে আপনার হাত থাকবে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা
পিতাকে নিয়ে ছেলে সাদি আব্দুল্লাহ’র আবেগঘন লেখা

তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না