১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১০:৩২ এএম

মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ খুলনা মহানগরবাসী

মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ খুলনা মহানগরবাসী

মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে খুলনা মহানগরীর বাসিন্দারা। কয়েল বা স্প্রে ব্যবহার করেও কোনো সুরাহা পাচ্ছেন না সাধারণ মানুষ। তবে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে শিক্ষার্থীরা। নগরবাসীর অভিযোগ খুলনা সিটি করপোরেশন  (কেসিসি) কোটি কোটি টাকা খরচ করলেও তা কোনো কাজে আসছে না।

 

খুলনা সিটি করপোরেশনের কনজারভেন্সি শাখা সূত্র জানায়, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে মশক নিধনে করপোরেশন দুই কোটি টাকা খরচ করে। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে খরচ করে দুই কোটি ১০ লাখ টাকা। এ টাকা ব্যয় করে মশক নিধনের জন্য লার্ভিসাইড, অ্যাডাল্ট্রিসাইড, লাইট ডিজেল (কালো তেল), মেশিন মেরামত, ব্লিসিং পাউডার ইত্যাদি কেনা হয়। সর্বশেষ ২০১৬-১৭ অর্থবছরের অক্টোবর পর্যন্ত ৮০ লাখ টাকার অ্যাডাল্ট্রিসাইড, লার্ভিসাইড ও লাইট ডিজেল কেনা  হয়েছে। এছাড়া আরও ১০ হাজার লিটার অ্যাডাল্ট্রিসাইড, দুই হাজার লিটার লার্ভিসাইড ও ১২ হাজার লিটার লাইট ডিজেল কেনার প্রস্তাব করা হয়েছে। এভাবে প্রতিবছর মোটা অঙ্কের অর্থ ব্যয় করেও নগরীতে মশার মশক নিধনে কার্যত ব্যর্থ হচ্ছে করপোরেশন।

 

নগরবাসীর অভিযোগ, নিম্নমানের ওষুধ কেনা, অনিয়ম, ড্রেন অপরিষ্কার রাখা, মশার উত্পত্তিস্থলে সঠিকভাবে ওষুধ ব্যবহার না করা ও জবাবদিহিতার অভাবে নগরীতে মশার উপদ্রব বেড়ে গেছে।

 

করপোরেশনের কঞ্জারভেন্সির ভান্ডার রক্ষক উজ্জ্বল কুমার সাহা বলেন, বর্তমানে অ্যাডাল্ট্রিসাইড তিন হাজার লিটার, লার্ভিসাইড ছয়শ লিটার ও লাইট ডিজেল এক হাজার লিটার মজুদ রয়েছে। কিন্তু চাহিদা অনুযায়ী না থাকায় ১০ হাজার লিটার অ্যাডাল্ট্রিসাইড, দুই হাজার লিটার লার্ভিসাইড কেনার প্রস্তুতি চলছে।

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত