ঢাকা      রবিবার ১৮, অগাস্ট ২০১৯ - ৩, ভাদ্র, ১৪২৬ - হিজরী



আফিফ বাশার

শিক্ষার্থী, এনাম মেডিকেল কলেজ, সাভার, ঢাকা। 


বেন কারসন : একজন নিউরোসার্জনের হাত ও স্কাপল

নিউরোসার্জন স্কাপল বেন কারসন। বর্তমানে একজন অবসরপ্রাপ্ত আমেরিকান নিউরোসার্জন এবং প্রশংসিত লেখক, প্রথম সার্জন যিনি সফলভাবে টুইন বেবির সংযুক্ত মাথাকে পৃথক করেছিলেন।

যখম দুটি শিশু একই গর্ভে জন্মায় তবে তাকে টুইন (জমজ) বলা হয়। বেশিভাগ ক্ষেত্রে শিশুরা পৃথক হয়ে জন্ম নেয়। তবে অনেক ক্ষেত্রে জন্মগত ত্রুটি দেখা যায়। এক্ষেত্রে ফিটাসদ্বয় অালাদা হতে পারে না। তাদের শরীরের কিছু অংশ যুক্ত থেকে যায়। এদের বলা হয় কনজয়েন্ট টুইন (Conjoint Twin)। এদের কিছু ভাগ অাছে।

যেমন-

১. বক্ষপিঞ্জরে জোড়া অবস্থায় থাকলে বলা হয় Thoraco Pagus

২. মাথা জোড়া অবস্থায় থাকলে বলা হয় Craniopagus।

মাথা জোড়া লাগানো থাকলে সাধারণত পৃথক করা যেত না। অনেক সার্জন অনেক চেষ্টা করেন কিন্ত সবার চেষ্টাই ব্যার্থ হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যেত যে হয় দুটি শিশুই মারা যেত না হলে একটা বেঁচে থাকতো। কারণ পৃথক করা বেশ কঠিন ছিলো। অনেক ঝুঁকি থেকে যেতো। আবার দুটি শিশুই Cranial Dura এর রক্তনালি শেয়ার করতো। যেমন: Superior Saggital Sinus etc। তাই পৃথক করতে গেলে এই শিরা ছিড়ে যেত। এরপর ব্লিডিং হয়ে শিশুদ্বয় মারা যেত। কারণ শিশুর শরীরে অল্প রক্ত বহন করে।

১৯৮৭ সালে বেন কারসন ও তার সহযোগী দল ৭ মাস এর মাথা সংযুক্ত টুইন (Cranio pagus) বেবিদ্বয়কে পৃথক করে ইতিহাস সৃষ্টি করেন।

এখনকার বেন কারসন এক সময় এমনটা ছিলেন না। তিনি একজন গরীব ছাত্র ছিলেন। তার মা অশিক্ষিত ছিলেন। ১৯৯৪ সালে জনস হপকিন্স, কারসনকে পেডিয়াট্রিক নিউরোসার্জারি বিভাগের পরিচালক নিযুক্ত করা হয়েছিল। সার্জন হিসেবে তিনি মারাত্মক মস্তিষ্কের আঘাত, মস্তিষ্ক এবং মেরুদণ্ডের টিউমার, অচন্ড্রোপলাসিয়া, স্নায়বিক ও জন্মগত ব্যাধি, ক্রনিয়োজিনোস্টোসিস, মৃগী ও ট্রাইগমিনাল নিউরোলজিয়ার এর বিশেষজ্ঞ ছিলেন।

তিনি বলেন যে, তার হাত-চোখ সমন্বয় এবং ত্রি-মাত্রিক যুক্তি তাকে একটি প্রতিভাধর সার্জন করেছে। তিনি হেমিস্ফিয়ারেকটোমি এর নতুন নিয়ম চালু করেন। বর্তমানে তিনি যুক্তরাষ্ট্রীয় সেক্রেটারি অব হাউসিং ও অারবান ডেভলপমেন্ট এ নিযুক্ত অাছেন। তার ৬টা বই বেস্টসেলার।

সূত্রঃ 1. Langman's Medical Embryology 2. Human Anatomy 3. Wikipedia

 

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর