ডা. জাহাঙ্গীর আলম

ডা. জাহাঙ্গীর আলম

 ইন্টার্ন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। 


১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০২:০১ পিএম

হাসপাতালের ডাক্তারদের চেয়ে গ্রামের বাজারের ডাক্তাররাই ভাল!

হাসপাতালের ডাক্তারদের চেয়ে গ্রামের বাজারের ডাক্তাররাই ভাল!

এলাকা থেকে এক চাচা ফোন দিয়েছে। তার গত ২ সপ্তাহ থেকে জ্বর ভাল হচ্ছে না। কি ঔষধ খাবে তা জানতে চাইল।

২ সপ্তাহের জ্বরের হিস্ট্রি দেয়ায় তাকে জেলা সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখানোর পরামর্শ দিলাম। সেটা শুনে তো চাচা মহা মনঃক্ষুণ্ণ হলেন। এবার তিনি বলা শুরু করলেন "হাসপাতালের ডাক্তাররা তো কিচ্ছু জানে না, খালি প্যারাসিটামল দেয়। তার চেয়ে গায়ের বাজারের ডাক্তাররাই ভাল। দামি দামি ঔষুধ দেয় আর। অসুখও তাড়াতাড়ি ভাল হয়।"

চাচাকে জিজ্ঞেস করলাম, আপনার জ্বর ভাল হচ্ছে না কেন তাহলে? এবার সে বলল,এগুলা ঔষধ আর কাজ করতেছে না। আরও নাকি দামি ঔষধ খাইতে হবে।

চাচাকে বললাম,চাচা ইতোপূর্বে দু একদিনের সামান্য জ্বর- স্বরদিতে আপনি হয়তো দামি দামি এন্টিবায়োটিক খেয়েছেন। আর সেটার দ্বারা আপনার সেই জ্বর হয়তো তাড়াতাড়ি ভালও হয়ে গেছে। তবে আপনার অই কাজটা অনেকটাই মশা মারতে গিয়ে কামানের ব্যাবহার হয়ে গেছে। এখন আপনি আপনার কামানের সব গোলা শেষ করে ফেলেছেন। তাই যুদ্ধের ময়দানে আপনার গোলা শর্ট পরে গেছে। চাচা হয়তো কিছু না বুঝেই "হুম" বলে ফোনটা কেটে দিল।

অনেকেই রেজিস্টার্ড ডাক্তারের পরামর্শ ব্যতীত ফার্মেসি ওয়ালাদের কথায় অথবা স্বপ্রনোদিত হয়ে সামান্য অসুস্থতায় এন্টিবায়োটিক খেয়ে থাকে। যা এক সময় শরীরে এন্টিবায়োটিকে রেজিসটেন্সি তৈরী করে।

এন্টিবায়োটিক রেজিসট্যান্সি বলতে এক কথায় এরকম বুঝায়- অপব্যবহারের জন্য দেহে এন্টিবায়োটিকের কার্যক্ষমতা নষ্ট হয়ে যাওয়া।

তাই সামান্য অসুস্থতায় এন্টিবায়োটিক সেবন পরিহার করাই ভাল। যদিও প্রয়োজন হয় তা অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ সহকারে সঠিক ডোজে ব্যাবহার করা উচিত।

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত