ঢাকা      শনিবার ২০, অক্টোবর ২০১৮ - ৪, কার্তিক, ১৪২৫ - হিজরী



রিফাত নিলা

শিক্ষার্থী, শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ, বগুড়া। 


কিছু মানুষের ভাল না থাকার গল্প

হাসপাতাল এ হয়তো আমরা অনেকেই যাই, কেউ চিকিৎসা নিতে, আত্মীয়-স্বজন দেখতে অথবা স্টাডি পারপাস এ...

প্রত্যেকদিন লেডিস হোস্টেল এর সামনে ৩-৪ জন বা তার চেয়ে কম বা তার চেয়ে বেশি মহিলা, পুরুষ অথবা বাচ্চা দাঁড়িয়ে থাকে...

তাদের চাহিদা এক ব্যাগ রক্ত... তার ভাই, বোন, বাবা, মা, স্বামী, ছেলে, মেয়ে কারো হয়তেো সার্জারি, খুবই বিপদজ্জনক অবস্থা..

রক্ত না হলে বাঁচবেনা.... মানুষগুলো এসে সকাল থেকে রাত পার করে দেয় এক ব্যাগ রক্তের জন্য... কারো জীবন বাচানোর জন্য...

হসপিটাল এ আমরা কি কেউ কখনও খেয়াল করে দেখেছি মানুষের কষ্টগুলো, হয়তো দেখি কিন্তু বুঝি না...

চারদিকে কান্নার আহাজারি.. নিচতলা থেকে চারতলার কান্নার আওয়াজ পাওয়া যায়... কেউ বা হাসপাতাল এর বেড এ মুমূর্ষু অবস্থায় পড়ে আছে, ডাক্তারের কাছে জানতে চাওয়া 'আব্বা কি আর বাচবে না'।।।

চারদিকে মানুষের যন্ত্রনার চিৎকার... আমরা যাই একবার দেখে চলে আসি কখনও বুঝি না আসলে ঐ মানুষগুলো জীবন-মৃত্যুর মাঝে পড়ে কিভাবে ছটফট করছে আর তার পাশের মানুষগুলোর সেই আর্তনাদ....

রেলস্টেশন এ তো প্রায়ই যাই আমরা... খুব শীতের রাতে কেউ দেখেছি শুয়ে ঘুমিয়ে থাকা মানুষগুলোকে.... একটা পাতলা চাদর গায়ে দিয়ে আছে.. কোন শীতের কাপড় নাই।সারাদিন খেয়ে না খেয়ে দিনমজুরি করতে হয় রাতে তার মাথা গুজার ঠাই কই... এমনি কোন রাস্তের ধারে, খোলা আকাশের নিচে অনেক স্বপ্ন মরে যায়....

তবু এরা ভাল আছে.. খাবার জোটে দু বেলা সেই বেশ.... কোন অভিযোগ নেই জীবনের প্রতি এদের....

এবার আসি আমাদের কথায়...

আমরা হুম আমারা... আমাদের দিনে দু বেলা মুরগী না হলে ভাত হজম হয় না... সপ্তাহে দু তিনবার বাইরে রেস্টুরেন্ট এ খাওয়া চাই... ঘুড়তে যাওয়া লাগে... সপ্তাহে সপ্তাহে নতুন জামা লাগে, নতুন ঘড়ি, নতুন জুতা এগুলা না হলে আমাদের চলেনা...

নতুন মডেলের ফোন ব্যবহার না করতে পারলে, সোসাল নেটওয়ার্কিং সাইট ব্যবহার না করলে আমরা আবার ব্যাকডেটেড হয়ে যাই....

তবুও দিনশেষে আমরা ভাল নাই.. প্রতিনিয়ত আফসোস আমাদের জীবনে এটা নেই, ওটা নেই, এটা কেন এমন হলো না, আরো দামী জামা কাপড় লাগবে.... আরো কতকিছু ...

আসুন এবার তাকিয়ে দেখি সেই হসপিটালের মানুষগুলোর ঔষধ কিনতে গিয়ে হিমশিম খাওয়া মানুষগুলোকে, নিজের বাবার জন্য রক্তের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকা মানুষগুলোকে, আর খোলা আকাশের নিচে বসবাসরত সেসব মানুষকে...

তাহলে হয়তো আমরা বুঝব.. আমাদের চেয়েও মানুষের অনেক বেশি কষ্ট আর আমারা সেই তুলনায় কত্ত সুখী আছি...

আমাদের যা আছে তা নিয়েই ভাল থাকা শেখা উচিত... জীবনটা এর চেয়ে খারাপ ও হতে পারে..

 

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে চান্স না পেলে এখন মেডিকেলে পড়ে!

ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে চান্স না পেলে এখন মেডিকেলে পড়ে!

মেইড ইন চায়না এখন শুধু জিনিসপত্রেই সীমাবদ্ধ নেই। শুরু হয়েছে হিউম্যান রিসোর্স…

মুলারিয়ান এজেনেসিস: প্রকৃতির অবিবেচক খেয়াল ও প্রমিতির কান্না

মুলারিয়ান এজেনেসিস: প্রকৃতির অবিবেচক খেয়াল ও প্রমিতির কান্না

প্রমিতি, বয়স- ১৬। এইচএসসি ১ম বর্ষে পড়ে। প্রাণবন্ত, উচ্ছ্বল প্রজাপতির মতো। যখন কথা…

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা

ফাঁকিবাজির মহান ব্রত নিয়ে ইন্টার্নি শুরু করেছিলাম। আমি জন্মগত ভাবেই ফাঁকিবাজ। সবাই…

সব মৃত্যুই দুঃখের, সুখের কোন মৃত্যু নেই!

সব মৃত্যুই দুঃখের, সুখের কোন মৃত্যু নেই!

তখন আমি সিওমেক হাসপাতালের ইন্টার্ন। মেডিসিন ওয়ার্ডে রাউন্ড দিচ্ছেন প্রফেসর ইসমাইল পাটোয়ারি…

‘বুকের ভিত্রে চ্যাংনা চ্যাঁও চ্যাঁও করে’

‘বুকের ভিত্রে চ্যাংনা চ্যাঁও চ্যাঁও করে’

ডাক্তার- আপনার সমস্যা কী? রোগী- বুকের ভিত্রে চ্যাংনা চ্যাঁও চ্যাঁও করে। ডাক্তার-…

‘তোমরা তো একদিন ডাক্তার হবে, কেন বুঝতে পারছ না খাবার খেতে দিলে তোমারই ক্ষতি?’ 

‘তোমরা তো একদিন ডাক্তার হবে, কেন বুঝতে পারছ না খাবার খেতে দিলে তোমারই ক্ষতি?’ 

বছরখানেক আগের কথা। আমার মুখে গুনে গুনে ৩৪টা এফথাস আলসার হয়েছে। একটা…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর