২৪ অক্টোবর, ২০১৭ ১২:৪৬ পিএম

উৎসব মুখরতায় প্রথমবারের মতো পালিত হলো SOMC DAY 

উৎসব মুখরতায় প্রথমবারের মতো পালিত হলো SOMC DAY 

সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ৫৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে গত ২২ অক্টোবর নবীন ও প্রবীণ শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে নানা উৎসবের মাধ্যমে প্রথম বারের মতো  পালিত হলো  SOMC DAY । প্রিয় মেডিকেল কলজের জন্মদিনে এ অনুষ্ঠানে যেমন ছিল বর্তমান শিক্ষার্থীদের প্রাণোচ্ছলতা তেমনি নাড়ির টানে দেশের নানা প্রান্ত থেকে ছুটে এসেছিলেন সাবেক শিক্ষার্থীরাও। 

সকাল ১০ টায় প্রাক্তন শিক্ষার্থী ডা. মোনাজ্জের আলী খান কেক কেটে অনুষ্ঠানের উদ্ভোদন করেন। এ সময় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ মোর্শেদ আহমেদ। পরবর্তীতে কলেজের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে SOMC DAY 2017  উপলক্ষে নির্মিত পতাকা উত্তোলন এবং বেলুন উড্ডোয়ন করা হয়।

সকাল ১১ টায় মেডিকেল কলেজের প্রাক্তন -বর্তমান শিক্ষার্থী,  শিক্ষক কর্মচারী প্রত্যেকের অংশগ্রহণে এক আনন্দ শোভাযাত্রা আয়োজন করা হয়। শোভাযাত্রাটি পরিণত হয় নবীন-প্রবীণ এর এক মিলনমেলায়।  শোভাযাত্রা টি কলেজ প্রাঙ্গণ থেকে যাত্রা শুরু করে নগরীর রিকাবী বাজার মোড় ঘুরে আবারো কলেজ প্রাঙ্গণে ফিরে আসলে উপস্থিত শিক্ষক -শিক্ষার্থীদের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করেন কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক মোর্শেদ আহমেদ।

 

সকাল ১১.৩০ থেকে কলেজ অডিটোরিয়াম এ আয়োজিত হয় এক স্মৃতিচারণমূলক আলোচনা অনুষ্ঠান।  SOMC DAY উপলক্ষে প্রকাশিত স্মরণিকার মোড়ক উন্মোচনের মাধ্যমে আলোচনা অনুষ্ঠানের যাত্রা শুরু হয়।  

একে একে স্মৃতিচারণা করেন কলেজ এর ২য় ব্যাচ থেকে শুরু করে ২০তম ব্যাচ এর শিক্ষার্থীরা। কথা নিয়ে আসেন ডা. আসাদুল্লাহ (৪র্থ ব্যাচ),  অধ্যাপক ডা. হারুনুর রশিদ (১০ম ব্যাচ) ,ডা. মশিউর আহমেদ চৌধুরী (১১তম ব্যাচ), অধ্যাপক ডা. মইনুল ইসলাম (১২ তম ব্যাচ), অধ্যাপক ডা. এম এ মালিক (১৩ তম ব্যাচ), অধ্যাপক ডা. ইউসুফ চৌধুরী (১৬ তম ব্যাচ), ডা.বজলুল গণি ভুইয়া (১৭তম ব্যাচ) ডা. এন কে সিনহা(১৮ তম ব্যাচ),  ডা. মইনুল হক, ডা. আলমগীর চৌধুরী, ডা রীনা হক (১৯ তম ব্যাচ) সহ আরো অনেকে।

সাবেক শিক্ষার্থীদের অনেকেই এ সময় স্মৃতিকাতর হয়ে পড়েন। তাদের কথায় ফুটে ওঠে কলেজ প্রতিষ্ঠার পর থেকে নানা পট পরিবর্তনের গল্প। ফুটে ওঠে কলজের সাবেক ক্যাম্পাস এর গল্প- নানা আন্দোলন  সংগ্রাম-ভালোবাসার গল্প। সিলেট মেডিকেল কলেজ নামে যাত্রা শুরু করা এ প্রতিষ্ঠানের সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হওয়ার গল্প ও ফুটে ওঠে সাবেক শিক্ষার্থীদের আলোচনায়। বর্তমান শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে কথা নিয়ে আসেন সজল এস চক্রবর্তী(৫১ ব্যাচ),  রিফাত মাহমুদ (৫১ ব্যাচ),  সৌরভ সরকার(৫১ ব্যাচ) এবং আহসান মির্জা। দুপুর ১.৩০ এ মধ্যাহ্নভোজ এর মাধ্যমে অনুষ্ঠানের প্রথম পর্ব শেষ হয়।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে ছিল কলেজ এর বর্তমান শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে আয়োজিত সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা এবং কলেজ শিক্ষার্থীদের নিজস্ব ব্যান্ড "লিমেরিক" এর কনসার্ট। 

দিবসটির সকল আয়োজন পরিচালনা করেন কলেজের অধ্যক্ষ ও অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক অধ্যাপক ডা. মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী ও সদস্য সচিব উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. নন্দ কিশোর সিনহা।

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত