ডা. রেদওয়ান বিন আবদুল বাতেন

ডা. রেদওয়ান বিন আবদুল বাতেন

জনস্বাস্থ্য গবেষক

ইউনিভার্সিটি অব আইওয়া


১৮ অক্টোবর, ২০১৭ ০৭:০৩ পিএম

রোড টু পিএইচডি-১৮: Statement of Purpose

রোড টু পিএইচডি-১৮: Statement of Purpose

SOP বা Statement of Purpose অ্যাপ্লিকেশানের গুরুত্বপূর্ণ একটি ধাপ। এখানে আপনি আপনার পারপাস বর্ণনা করবেন। অর্থাৎ কেন তুমি এইখানে পড়তে চাও টাইপের হুদাই প্রশ্নের ফাও উত্তর দেবেন।

সেদিন ক্লাসে এক প্রফেসর বলেই বসলেন, তোমরা অ্যাপ্লিকেশানের সময় স্টেটমেন্ট অব পারপাসে তো দুনিয়া উল্টায় ফেলবা টাইপের কথা বার্তা লিখে ফাটায় ফেলসিলা। এখন ঐ ঘোড়ার ডিমগুলা গেলো কই? সত্যি কথা লিখলেই তো পারতা তাই না? বলতা ভাই, আমার একটা ডিগ্রি দরকার তাই তোমাদের ইস্কুলে অ্যাপ্লাই করসি। আন্ডারগ্র্যাডের ডিগ্রি দিয়া আসলে কোন কাম হইতেসে না তাই তোমার ইস্কুলে আরেকটা ডিগ্রি কইরা একটু জাতে উঠতে চাই এসব লিখলেই তো হতো।

আমেরিকান প্রফেসরের মুখে এহেন বাস্তব কথার বয়ান শুনে পুলকিত হয়েছিলাম।

আরেক ভাই ফেসবুকে লিখেছিলেন কিছু অসাধারণ কিন্তু নির্মম সত্য কথা। তাঁর নাম মনে নেই। কোথায় পড়েছিলাম তাও মনে নেই। কথাগুলো ছিল কেন আপনি আমেরিকায় পড়তে আসতে চান তা নিয়ে।

একটা সিনারিও উনি লিখেছিলেন এভাবে – আপনি সারাজীবন ব্যাক বেঞ্চে কাটিয়েছেন, কোন রকমে পাশ করে বেড়িয়েছেন, এখন লাইফের সেকেন্ড ইনিংস শুরু করতে চান, আপনার মধ্যেও যে কিছু একটা আছে তা দেখিয়ে দিতে চান – ইত্যাদি ইত্যাদি কারণে আপনি আসলে আমেরিকায় পড়তে আসতে চাচ্ছেন। ভাইয়ের সাইক এনালাইসিস টু দ্যা পয়েন্ট ছিল।

যেটাই হোক, স্টেটমেন্টে তো আর এসব সত্য কথা এভাবে লিখতে পারবেন না। আপনাকে সিলেক্টিভ সত্য কথাগুলোকে মোড়কে মুড়িয়ে লিখতে হবে।

এখন কিছু সিরিয়াস কথা বলি। স্টেটমেন্ট অব পারপাস হতে হবে একদম ইউনিক - একথাটি ভালোভাবে বুঝে নিন। এটি আপনার নিজেকেই লিখতে হবে। অন্যের লিখে দেয়া স্টেটমেন্ট নিয়ে বেশিদূর যেতে পারবেন বলে মনে হয় না।

নিজের জীবনের অভিজ্ঞতাগুলোকে বাস্তবসম্মতভাবে তুলে ধরতে হবে। এ কাজটি আপনি ছাড়া আর কেউ পারবে না। যে কষ্টগুলো আসলেই করেছেন, যে ঘটনাগুলো আপনাকে আসলেই মোটিভেট করেছে সেগুলোর একটি শর্টলিস্ট করুন। তারপর লিখতে বসুন।

এই লিখাটি আপনাকে অনেকবার লিখতে হবে, বারবার লিখতে হবে। প্রচুর এডিট করতে হবে। দেখবেন যেভাবে শুরু করেছিলেন তাঁর কিছুই অবশিষ্ট নেই। আপনার লিখার সর্বশেষ ভার্শনটি প্রথমটি থেকে পুরোই ভিন্নরূপ ধারণ করেছে।

তাই সময় নিয়ে আগে থেকে শুরু করুন। আগে থেকে বলতে সেটি কয়েক বছর হতে পারে। আমি ৩ বছর ধরে নিজের স্টেটমেন্ট এডিট করেছি এবং তারপরেও এটি খুব জাতের/পদের কিছু হয়নি।

ল্যাংগুয়েজ ইজ ইম্পরট্যান্ট বাট নট এভরিথিং। মানে কঠিন কঠিন জিআরই শব্দ ব্যবহার করাই একমাত্র মাপকাঠি নয়। আমি অনেক সফল মানুষের স্টেটমেন্ট পড়েছি যেগুলোর সাধারণত্ব আমাকে বিস্মিত করেছিল।

এখানে স্মরণ করতে হবে যে শুধুমাত্র ভালো একটি স্টেটমেন্ট অব পারপাসের জন্য আপনি চান্স পেয়ে যাবেন এমনটি মোটেও না। একটি ব্যালেন্সড স্টেটমেন্ট আপনার পোর্টফোলিওকে সমৃদ্ধ করবে মাত্র।

ভুলেও অন্যেরটা টুক্লিফাই করতে যাবেন না। অ্যাডমিশান কমিটিতে বসে থাকা মানুষগুলোকে আন্ডারএস্টিমেট করবেন না প্লিজ। তাঁরা হাজার হাজার স্টেটমেন্ট পড়েছেন। তাঁদের হাতে নকল ধরার সফটওয়্যার আছে। টুকলিফাই করে নিজের পায়ে কুড়াল মারবেন কেন?

সিম্পল থাকুন। অরিজিনাল থাকুন। ন্যাচারাল থাকুন। নিজের সেন্স অব ল্যাংগুয়েজকে ফুটে উঠতে দিন। ট্রাই টু সাউন্ড অথেনটিক। অধমের পরামর্শ এতটুকুই।

ডিসক্লেইমার

পূর্ববর্তী পর্ব: রোড টু পিএইচডি-১৭: রেফারেন্স লেটার

পরবর্তী পর্ব: রোড টু পিএইচডি-১৯: WES ভেরিফিকেশন

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত