ঢাকা শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ১৮ মিনিট আগে
ডা. রেদওয়ান বিন আবদুল বাতেন

ডা. রেদওয়ান বিন আবদুল বাতেন

জনস্বাস্থ্য গবেষক

ইউনিভার্সিটি অব আইওয়া


১৬ অক্টোবর, ২০১৭ ১৪:২৮

রোড টু পিএইচডি-১৬: SOPHAS এর মাধ্যমে অ্যাপ্লাই

রোড টু পিএইচডি-১৬: SOPHAS এর মাধ্যমে অ্যাপ্লাই

SOPHAS বা Schools of Public Health Application Service হলো একটি সেন্ট্রালাইজড বডি। এটি আমেরিকার পাবলিক হেলথ স্কুলগুলোর অ্যাপ্লিকেশান প্রসেস সমন্বিতভাবে পরিচালনা করে। আমেরিকায় পাবলিক হেলথ স্কুলগুলোতে অ্যাপ্লাই করতে হলে এই SOPHAS এর মাধ্যমে করতে হবে।

SOPHAS এর মাধ্যমে অ্যাপ্লাই করার ব্যাপারটি ডাক্তারদের জন্য বাধ্যতামূলক। এধরনের সেন্ট্রালাইজড কোন বডির মাধ্যমে অ্যাপ্লাই করার ধাপটি অন্য সাবজেক্টের বন্ধুদের নেই। তাই তাঁদেরকে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করে কোন ফল পাবেন না।

SOPHAS দিয়ে অ্যাপ্লাই করার সুবিধা এবং অসুবিধা দু’টোই আছে। সুবিধা হলো আপনার ডকুমেন্টগুলো এক জায়গায় থাকবে। একটি প্রোফাইলের মাধ্যমে আপনি অ্যাপ্লিকেশানের প্রসেস দেখতে পারবেন। পেমেন্ট করতে পারবেন। একটি ওয়েবসাইটে সম্ভাব্য সকল প্রোগ্রামের তালিকা থাকে সেখান থেকে বাছাই করা আপনার জন্য সহজ হতে পারে ইত্যাদি।

অসুবিধা হলো SOPHAS এর জন্য আপনাকে আলাদা ফি দিতে হবে। এই ফি আবার ইউনিভার্সিটির নিজস্ব অ্যাপ্লিকেশান ফি থেকে আলাদা। অর্থাৎ, পাবলিক হেলথে অ্যাপ্লাই করতে হলে আপনাকে প্রতি প্রোগ্রামের জন্য SOPHAS এও ফি দিতে হবে, আবার প্রতিটি ইউনিভার্সিটিকেও আলাদা আলাদা ফি দিতে হবে।

ডাক্তারদের জন্য অ্যাপ্লিকেশান ফি তাই ডাবল যা অন্যদের নেই। কিছু করার নেই। এটাই বাস্তবতা। কেন যে ডাক্তারি পড়েছেন তার জন্য মাতম করার এটাই উপযুক্ত সময়। টেবিলে রাখা নোকিয়া বাটখারা সিরিজের ফোনটিকে দু’টো আছাড় মারুন। কাজে ফিরে আসুন।

আমেরিকার প্রায় সবক’টি পাবলিক হেলথ স্কুল এখন SOPHAS এর মেম্বার হয়ে গেছে এবং তাঁরা ডিপার্টমেন্টের নিজস্ব অ্যাপ্লিকেশানের পাশাপাশি SOPHAS এর মাধ্যমে অ্যাপ্লিকেশান করাটাকে ম্যান্ডেটরি করে ফেলেছে। অর্থাৎ, SOPHAS এর অ্যাপ্লিকেশান ফর্ম পূরণ করার পাশাপাশি প্রতিটি প্রোগ্রামের নিজস্ব অ্যাপ্লিকেশান সাইটে গিয়েও আপনাকে ফর্ম পূরণ করতে হবে।

কাজের কথা হলো ফর্মগুলো এক বসায় পূরণ করতে হবে এমন কোন কথা নেই। সেভ করে পরবর্তীতে আবার লগইন করে ফর্ম পূরণের কাজ করে যেতে পারেন। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ প্রতিটি ফর্ম পূরণ করতে আপনাকে অনেক সময় ব্যয় করতে হবে। তাই একবারে না করে ধীরে ধীরে করাটাই বুদ্ধিমানের কাজ।

অ্যাপ্লিকেশনের জন্য আপনাকে একটি আইডি খুলতে হবে। এই আইডি এবং পাসওয়ার্ডগুলো একটি জায়গায় লিখে রাখবেন। SOPHAS এর মাধ্যমে আপনি কোন কোন প্রোগ্রামে অ্যাপ্লাই করবেন তার সিলেকশন করতে হবে। প্রতিটি প্রোগ্রাম এর জন্য আলাদা আলাদাভাবে ডকুমেন্ট আপলোড করতে হবে, GRE, TOEFL স্কোর পাঠাতে হবে, আলাদাভাবে ফি দিতে হবে।

প্রতিটি প্রোগ্রামের নিজস্ব ডেডলাইন থাকে। তবে SOPHAS এর নিজস্ব ডেডলাইন হলো ডিসেম্বরের ১ তারিখ। এই তারিখের মধ্যে আপনার সকল ডকুমেন্ট এবং ফি SOPHAS এর কাছে পৌঁছাতে হবে। তাই আগে থেকেই কাজ শুরু করুন।

বাংলাদেশে ইউনিভার্সিটি থেকে কাগজ তোলা, পাঠানো ইত্যাদি বিষয়গুলোতে কত সময় লাগবে তা নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয়। আর সেপ্টেম্বর, অক্টোবর, নভেম্বর এই মাসগুলোতে অনেক সরকারি ছুটি থাকে। তাই আগে থেকে কাজ না করলে ডেডলাইন মিস হবার চান্স প্রবল।

আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট হলো আপনার রেফারেন্সগুলো এই SOPHAS এর সাইটের মাধ্যমে সাবমিট করতে হবে। অর্থাৎ আপনার সিলেক্ট করা ফ্যাকাল্টির ইমেইল আইডি এই SOPHAS এর সাইটে দিলে সেখান থেকে অটোমেটিকভাবে ঐ ফ্যাকাল্টির কাছে ইমেইল চলে যাবে। তাঁরা ফর্ম পূরণ করে রেফারেন্স সাবমিট করলে সেটি SOPHAS এর প্রোফাইলে ঢুকে নিশ্চিত হতে পারবেন। তবে তাঁরা কী লিখেছেন তা দেখা যাবে না।

সব ডকুমেন্ট আপলোড করার পর, ফি দেবার পর অ্যাপ্লিকেশান সাবমিট করতে হবে। SOPHAS এর ওয়েবসাইটের Frequently Asked Questions (FAQ) অংশটি বারবার পড়ে পুরো প্রসেসটি ভালোভাবে বোঝার চেষ্টা করতে হবে।

 

ডিসক্লেইমার

পূর্ববর্তী পর্ব: রোড টু পিএইচডি-১৫: IELTS নাকি TOEFL

পরবর্তী পর্ব: রোড টু পিএইচডি-১৭: রেফারেন্স লেটার

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত