ডা. শরীফ উদ্দিন

ডা. শরীফ উদ্দিন

রেসিডেন্ট, বিএসএমএমইউ

 

 


২৭ অগাস্ট, ২০১৭ ১১:০৮ এএম

সমালোচনা ক্ষমতাহীন তরুণ ডাক্তারটিকে বিব্রতই করবে

সমালোচনা ক্ষমতাহীন তরুণ ডাক্তারটিকে বিব্রতই করবে

একজন ডাক্তার বিশেষ করে তরুণ ডাক্তারের সাথে দেখা হলেই, দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা এবং ডাক্তারদের নিয়ে সমালোচনার যে অভ্যাস গড়ে তুলেছেন, তা ত্যাগ করুন। বিশ্বাস করুন, আপনার এ সমালোচনা, এই সমস্যার সমাধানে কোনো গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখতে পারবেনা। শুধু প্রভাব প্রতিপত্তি আর ক্ষমতাহীন তরুণ ডাক্তারটিকে বিব্রতই করবে।

রুঢ় সত্য কথা হচ্ছে, আপনি অবচেতন মনে এই জিনিষটিই চান। যে ঘোড়ার ডিমের দেশে আমরা বসবাস করি, তাতে যে কোনো পেশাজীবী সমন্ধে কেউ অভিজ্ঞতা শেয়ার করলেই একটা মহাভারত হয়ে যাবে। একজন ডাক্তার আকাশ থেকে নেমে আসেনা। তারা ততটুকুই খারাপ, যতটুকু খারাপ আমি, আপনি এবং আমরা। তারা ততটুকুই ভালো, যতটুকু ভালো আপনি, আমি এবং আমরা। তাই একজন ডাক্তার দেখলেই যে আপনি বাংলাদেশের খারাপ চিকিৎসা ব্যবস্থা এবং ততোধিক খারাপ ডাক্তারদের নামে বদনাম করে তৃপ্তি পান, তা খুব অভদ্রোচিত কাজ। আপনি নিজেও রিকশায় উঠেও তাবত রিকশাওয়ালাকে গালি দেন না।

আপনার গোবেচারা, ভালো মানুষ বন্ধু বা আত্মীয় ডাক্তারটিকে আপনি যখন বলেন, ' অধিকাংশ ডাক্তারই তো দেখি খারাপ, তবে তোমার কথা আলাদা। তুমি নিশ্চয় ভালো হবে।' এতে কিন্তু সে ভালো হওয়ার তাড়না কিংবা তৃপ্ত বোধ করেনা। বরং এতে তার ভালো হওয়ার ইচ্ছাটাও উবে যায়।

বাংলাদেশের সমগ্র ডাক্তার সম্প্রদায়কে যে জীবন যাপন করতে হয়, যে সংগ্রামে নিত্যদিন কাটাতে হয়, সেই গল্প তার জানা। জানা বলেই আপনার এই সচেতন জনতাসুলভ ক্রিটিক ভাব তার মনে এক আশ্চর্য বোধের জন্ম দেয়। স্বপ্ন নয়, শান্তি নয়, ভালোবাসা নয়, দুঃখ নয়। হৃদয়ের ভেতর এক আশ্চর্য বোধ জন্ম লয়। ভুল দেশে থাকার, ভুল পেশায় আশার, ভুল মানুষদের ভালোবাসার এক আশ্চর্য বোধ। সেই বোধ জন্ম নেয় বলেই রাত বারোটার পরে একান্ত প্রিয় বন্ধু বা আত্মীয়ের ফোন সে রিসিভ করেনা।

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত