ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ৯ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৬ ঘন্টা আগে

বাংলাদেশের তরুণেরা ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বময়

বাংলাদেশের তরুণেরা ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বময়

আমাদের মেডিক্যাল কলেজের ভেতরে একটি গ্লোবাল ম্যাপ রাখা আছে। পৃথিবীর কোন কোন প্রান্ত থেকে এখানে ফ্যাকাল্টি, স্টাফ বা ছাত্রছাত্রী আসে তারা সবাই যার যার ম্যাপে একটি করে পিন পুঁতে দেবেন। বাংলাদেশের ম্যাপে শুধু আমার পুঁতে দেয়া একটি সবুজ পিন। কারণ, এখানে কোর ফ্যাকাল্টি একমাত্র বাংলাদেশি আমি। যারা এফিলিয়েটেড ফ্যাকাল্টি তাঁরা সবাই বাইরে অন্য হাসপাতালে বা ক্লিনিকে কাজ করেন। এখানে মাঝে মাঝে আসেন, কিম্বা আমাদের ছাত্রছাত্রীরা ক্লার্কশীপ করতে যায় সেখানে।

অন্যদিকে যে এক'দুজন বাংলাদেশের বাবা-মায়ের সন্তান ছাত্রারছাত্রী হিসাবে আসে তারা কেউ আবার নিজেকে বাংলাদেশের মনে করতে চায় না, কারণ তাদের জন্ম এখানে। তাই প্রতিদিন এটার পাশ দিয়ে যাই আর ভাবি কবে আরো পিন দেখতে পাবো?

 

 

আজকে ছিল ক্লাস শুরুর প্রথম দিন। সকালে প্রথমবর্ষ, বিকেলে দ্বিতীয়বর্ষের ক্লাস ছিল। তার পরপরই বায়োমেডিক্যাল কলেজের গ্রাজুয়েট স্টডেন্টদের ওরিয়েন্টেশন। সেখানে পোস্টার দিয়ে রিসার্চের পসরা সাজিয়ে বসে আছে ছাত্রছাত্রী-শিক্ষক সবাই। বায়োমেডিক্যাল স্কুল এই মেডিক্যাল কলেজেরই অংশ। এখানে আসতেই এক ছাত্রের দৃষ্টি আকর্ষণ খাঁটি বাংলায়ঃ

"স্যার, কেমন আছেন? আমি বাংলাদেশ থেকে এবার এসেছি। আপনার ফেসবুক ফলোয়ার"

একে একে চারজন। গতবারে এসেছে একজন। সব মিলিয়ে ছয়জন বাংলাদেশের ছাত্র। এরা বায়োমেডিক্যাল এবং বায়োলজিক্যাল সায়েন্সে মাস্টারস এবং পিএইডি করতে এসেছে। আমি মহা আনন্দে বাংলায় কথা বলি আর সবার সঙ্গে ওদের পরিচয় করিয়ে দিই। একজন কলিগ, প্রফেসর তো বলেই ফেললেন, 'তুমি ডাইভারসিটির ডীন হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ডাইভারসিটি বেড়ে যাচ্ছে।"

সে যাই হোক, বাংলাদেশের তরুনেরা ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বময়। হ্যাঁ, আমি মনে করি যতো বেশি সম্ভব দেশ বিদেশে ছড়িয়ে পড়া দরকার এবং দেশের ভালোর জন্যে কাজ করা দরকার। যেসব লোকজন দেশে থাকা, দেশপ্রেম ইত্যাদি গুলিয়ে ফেলেন তাঁরা বর্তমান যুগের বিশ্বজনীন সম্ভাবনা কে বুঝতে পারেন না; দেশে থেকে ঘুষ, দুর্নীতি, কুনীতির অংশ হয়ে যারা মনে করে দেশপ্রেম দিয়ে ভরে দিচ্ছে তাঁদের চেয়ে বিদেশে এসে উচ্চশিক্ষা নিয়ে দেশের অর্থনীতি, প্রযুক্তি, বিজ্ঞান, সমাজপরিবর্তনে ভূমিকা নেয়া অনেক বড় কাজ। এই তরুনেরা সেই পথে ধাবিত হোক এই কামনা করি।

পুনশ্চ: ছয়জনের সবাই ছাত্র; আগামীতে বায়োমেডে ছাত্রী দেখতে চাই। 

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত