২৫ জুলাই, ২০১৭ ০৩:১১ পিএম

চোখে সমস্যা নারীদের বেশি?

চোখে সমস্যা নারীদের বেশি?

শুনলে হয়তো অবাক হবেন, দুনিয়াজুড়ে যত দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী আছেন তাঁদের দুই-তৃতীয়াংশই নারী। তার মানে কি চোখের সমস্যাগুলো নারীদেরই বেশি হয়? গবেষকেরা নানাভাবে এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজেছেন। তাঁরা জানিয়েছেন, বিশ্বজুড়ে নারীদের আয়ু পুরুষদের চেয়ে একটু বেশি। আর চোখে ছানি, ম্যাকুলা ডিজেনারেশন, রেটিনোপ্যাথি ইত্যাদি বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সম্পর্কিত। ডায়াবেটিস ও উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে নারীরা বেশ পিছিয়ে। আর কে না জানে এসব রোগ মানুষের চোখ নষ্ট করে দেয়। আবার কিছু অটোইমিউন রোগ (যেমন: রিউমাটয়েড আর্থরাইটিস, লুপাস ইত্যাদি) নারীদের বেশি হয়। এসব রোগে চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। চোখের শুষ্কতা সমস্যাও নারীদের বেশি।

ডায়াবেটিসে আক্রান্ত নারীরা গর্ভধারণের সময় বাড়তি ঝুঁকির মধ্যে পড়েন। এ সময় তাঁদের ডায়াবেটিসজনিত জটিলতার ঝুঁকি বাড়ে, বাড়ে চোখের সমস্যাও। অনেক নারী অপুষ্টির শিকার। দৃষ্টিশক্তি হারানোর জন্য ভিটামিনের অভাব দায়ী। আবার গৃহস্থালি ও কৃষিকাজে যুক্ত অনেক নারী আঘাত বা দূষণের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হন।

তাহলে নারীরা কীভাবে নিজেদের চোখ বিষয়ে আরও একটু বেশি সচেতন হবেন? 

কয়েকটি পরামর্শ:

* বয়স ৪০ পেরোনোর পর থেকে প্রতিবছর একবার করে চোখের সম্পূর্ণ পরীক্ষা করবেন। চোখ দেখানো মানে কেবল চোখের পাওয়ার দেখানো নয়। চোখের ভেতরের তরলের চাপ, পেছনের রেটিনা ইত্যাদিও দেখতে হবে।

* ডায়াবেটিস ও উচ্চরক্তচাপ থাকলে বিশেষভাবে সচেতন হোন। এগুলো নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি নিয়মিত চক্ষু পরীক্ষা জরুরি।

* চোখে ছানি পড়া বা দৃষ্টিশক্তি ক্ষীণ হয়ে আসাকে অনেক বয়স্ক নারী অবহেলা করেন এবং অযথা দেরি করেন। এটা বড় ভুল।

* চোখে যেকোনো প্রসাধনী ব্যবহারে সতর্ক হোন, লেন্স ব্যবহারের ক্ষেত্রেও তা-ই। যে জিনিসে চোখে অ্যালার্জি হয় বা লাল হয়ে যায়, চুলকায়—সেটা আর কখনোই ব্যবহার করবেন না। রোদে গেলে রোদচশমা ব্যবহার করবেন।

 ডা. পূরবী রাণী দেবনাথ

চক্ষু বিভাগ, বারডেম হাসপাতাল

সূত্র: প্রথম আলো 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে