১২ জুলাই, ২০১৭ ১১:১০ এএম

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য সুখবর

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য সুখবর

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য সুখবর নিয়ে এলো আমেরিকার বেকটন, ডিকিনসন অ্যান্ড কোম্পানি।

ডায়াবেটিসে আক্রান্ত যেসব রোগী ইনসুলিন নেন, অনেক সময় অনুন্নতমানের পেন নিডেলস ব্যবহার করায় রোগীদের বিভিন্ন রকম জটিলতা দেখা দেয় এবং দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এ থেকে মুক্তি দিতে বাংলাদেশের বাজারে এলো সর্বাধুনিক মানের উন্নত বিডি পেন নিডেলস।

সোমবার বেলা আড়াইটায় ঢাকা ক্লাবের সিনহা লাউঞ্জে আমেরিকার বেকটন, ডিকিনসন অ্যান্ড কোম্পানির সর্বাধুনিক মানের উন্নত বিডি পেন নিডেলসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান করা হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন ও প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বারডেম হাসপাতালের এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. ফারুক পাঠান। আরো বক্তব্য রাখেন ও প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়াবেটিস ও এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এম এ হাসনাত, বারডেমের এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. আশরাফুজ্জামান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ডা. একে আজাদ খান। বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ এশিয়ার ডায়াবেটিস কেয়ারের অ্যাসোসিয়েট ডিরেক্টর ডা. ভানদিতা গুপ্ত।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বিডি (বেকটন, ডিকিনশন এবং কোম্পানি) একটি আন্তর্জাতিক খ্যাতনামা মেডিক্যাল টেকনোলজি কোম্পানি। বিডি মাইক্রোফাইন টিএম-৪এমএম সুঁই সব ধরনের রোগীদের শরীরের জন্য দীর্ঘস্থায়ী কার্যকরী ব্যবস্থা এবং তা ব্যথা নিরাময় করার ব্যাপারে উপযোগী হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। অর্থাৎ ডায়বেটিক রোগীদের ইনসুলিন দেওয়ার ক্ষেত্রে কার্যকর প্রমাণিত হয়।

অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ডা. মো. ফারুক পাঠান বলেন, ইনজেকশনের ভয় ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সুঁইয়ের মাধ্যমে কমানো যায়। বিডি মাইক্রোফাইন টিএম-৪এমএম সুঁই ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের অংশ হিসেবে এই সুঁইয়ের প্রযুক্তি গ্রহণ করা যায় এবং তা শিশু এবং প্রাপ্তবয়স্কদের উভয় ক্ষেত্রে নির্ভরযোগ্য  হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। এটি ইনসুলিন ইনজেকশনের বিকল্প হিসেবে কাজ করে এবং এটি চামড়ার নিচে চর্বিতে প্রবেশ করা যায় এবং এর মাধ্যমে মাংস পেশিতে এই নিডল প্রবেশ করানোর ঝুঁকি এড়ানো যায়। অধিকন্ত এটা রোগীদের জন্য সর্বোচ্চ যথার্থতা হিসেবে প্রমাণিত হয়।

সৌজন্যে : রাইজিংবিডি.কম

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি