ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ১ ঘন্টা আগে
ডা. শিরীন সাবিহা তন্বী

ডা. শিরীন সাবিহা তন্বী

মেডিকেল অফিসার, রেডিওলোজি এন্ড ইমেজিং ডিপার্টমেন্ট,

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বরিশাল।


১৮ জুন, ২০১৭ ২১:২৫

সব দিবসেই বাবার দিকে তাকাও

সব দিবসেই বাবার দিকে তাকাও

আমি দিবস উদযাপনের পক্ষে না। বিশেষত মা, বাবা, ভালোবাসা দিবস। আমার বিপক্ষে অবস্থানের প্রধান কারন, আমি এর ব্যবসায়িক ন্যাকেড চেহারাটা দেখতে পাই। দ্বিতীয়ত যাদের বাবা, মা, ভালোবাসা মারা যায়, হারিয়ে যায় - এ দিনটি তাদের জন্য দুর্বিসহ হয়ে ওঠে। যে সন্তান তার চার বা পাঁচ বছর বয়সে কোন একদিন ঘুম থেকে উঠে দেখে ঘরের মাঝে বাবা মায়ের রক্তাক্ত লাশ, যে শিশু খেলতে গিয়ে ঘরে ফিরে এসে দেখে ফ্যানের সাথে মায়ের ঝুলন্ত লাশ কিংবা স্কুল থেকে ফিরে দেখে প্রিয় বাবা আর প্রিয় মটর বাইক শত খন্ডে খন্ডিত, তারাও আমাদের সমাজের ই মানুষ।

তোমার বাবা আশি বছর বয়সেও বেঁচে আছেন- বাবা দিবসে উৎসব করছ। কাল তোমার অপমৃত্যুতে এই দিন তোমার সন্তানের কাছে বিভীষিকাময় হয়ে উঠতেই পারে। সত্যিকারের বাবা মায়ের ভালোবাসার জন্য স্মরন করবার জন্য এই এক দুটি দিন যথেষ্ঠ না। আবার বাবা মায়েদের ও এই মহাব্যস্ততার রথে চড়া জীবনে সন্তানের জন্য করার সুযোগ এবং প্রয়োজন অপরীসীম। পিতা মাতা এমন এক ঐশ্বরিক সম্পদ একমাত্র যাদের ভালো এবং মন্দের দায়ভার সন্তানের সারা জীবন বয়ে বেড়াতে হয়। বাবা হওয়ার কোন প্রতিষ্ঠান নেই। নেই কোন পরীক্ষা পদ্ধতি যাতে করে তুমি তোমার গ্রেড টা জেনে নেবে। সন্তানের ভাষ্যে নিজেকে মূল্যায়ন করবে? এই পরিকল্পিত পরিবারের যুগে তুমি যদি পিছিয়ে পড়া, অটিজম, ডাউনস কিংবা কোন অসুস্থ বাচ্চার বাবা হও! হয়ত তুমি সারা জীবনে বাবা ডাকটাই শুনবে না। মূল্যায়ন তো অনেক দূর!

তাই বাবা, তোমার মূল্যায়ন তোমার বিবেক। তুমি যেই পেশা, ধর্ম, বর্ন বা গোত্রের ই হও। তুমি একজন বাবা। তোমাকে আশ্রয় করে যে শিশুটি পৃথিবীতে বাড়ছে তার জীবনের অনেকটা জুড়ে কেবল তোমার থাকার কথা। তোমার অবহেলাতে সে স্থান শূন্য না থেকে যায়। আজ হয়ত তুমি পূর্ন। কিন্তু তোমার শূন্যতার দিনে এই কষ্ট তোমাকে একেবারে নিঃস্ব করে দেবে। তোমার জীবন যদি এখুনি বাবাবিহীন হয়, তুমি ভাগ্যাহত।

আর যদি জন্মদাতা নয়, বাবা নামক অমূল্য সম্পদ থেকে থাকে বছরে একটি দিন কেবল বাবা দিবস না। সব দিবসেই বাবার দিকে তাকাও। তার প্রতি সদয় হও। তার শত ভাজে কুঞ্চিত করুন মুখে হাসি ফোঁটাও যেমনটি তোমার ছেলেবেলায় তিনি ফুটিয়েছিলেন তোমার অবুঝ শিশুমুখমন্ডলে!

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত