ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াস

ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াস

রেসিডেন্ট (নিউরোলজি), বিএসএমএমইউ


২৯ মে, ২০১৭ ০৯:৩১ এএম

তোমরা যারা ফাইনাল প্রফে (এমবিবিএস ফাইনাল পরীক্ষা) ফেল করেছ

তোমরা যারা ফাইনাল প্রফে (এমবিবিএস ফাইনাল পরীক্ষা) ফেল করেছ

মেডিকেল লাইফ একটি টেস্ট ম্যাচ।

টেস্ট ম্যাচে পাঁচ দিনে পনেরটি সেশন থাকে, আর মেডিকেলে ও পনেরটি সেশন।

তবে টেস্ট ম্যাচে প্রতি দু’ঘণ্টায় একটি সেশন হলেও মেডিকেল লাইফে পনেরটি সেশন মানে ১৫ বছর।

প্রথম ৫ সেশন এমবিবিএস এর পাঁচ বছর

পরের ৫ সেশন এফসিপিএস এমডি র ট্রেনিং এবং প্রিলিমিনারী পোস্ট গ্রেডে ভাল প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নিশ্চিত করা।

এরপর পোস্ট গ্রেড ট্রেনিং/ডিগ্রি হবার পরের পাঁচ বছর হচ্ছে নিজেকে সফল স্টুডেন্ট থেকে সফল উদীয়মান ডাক্তার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা।
এই উদীয়মান তরুণ ডাক্তারের বয়সটা জানো কত???
মাত্র ৩৫ কি ৪০ বছর

আজ যারা এমবিবিএস পাশ/ফেল করেছে, তারা একটি টেস্ট ম্যাচের পঞ্চম সেশনএ তথা দ্বিতীয় দিনের চা বিরতি - র পর্যায়ে আছে।
টেস্ট ম্যাচ জয় এখনো বহুদূর।

যেকোন দলের সাথে বাংলাদেশের অসংখ্য টেস্ট ম্যাচ, আর অস্ট্রেলিয়া, সাউথ আফ্রিকার মাটিতে উপমহাদেশের টিমগুলোর অসংখ্য টেস্ট ম্যাচে দেখবেন, বাংলাদেশ এবং উপমহাদেশের টিমগুলো টেস্টের চতুর্থ দিন অর্থাৎ ১২ সেশন পর্যন্ত ডমিনেট করে শেষ তিন সেশনে বাজে খেলে হেরে যায়।

অতএব এমবিবিএস এর পাশ ফেলকে খুব বেশি হাইলাইট করার কিছু নেই। বিসিএস, এফসিপিএস, এমডি, এমএস, এমআরসিপি র প্রিলিমিনারী পার্টগুলো উত্তীর্ণ হওয়াও এমন কিছু আহামরি এচিভমেন্ট না। মেডিকেল সাইন্সে মূল্যবোধ নিরপেক্ষ কোন এচিভমেন্ট যদি থাকে - সেটি হচ্ছে এমনভাবে একজন রোগী ম্যানেজ করা - যেন একই সাথে রোগী, রোগীর লোক, জুনিয়র কলিগ এবং চিকিৎসক স্বয়ং নিজে - এই চার গ্রুপকে সেটিস্ফাইড রাখতে পারা।

এটাই হচ্ছে প্রোডাক্ট।

ডিগ্রি, টাকা, খ্যাতি সবই বাই প্রোডাক্ট।

যোদ্ধার ট্রেইনিং সার্টিফিকেটের মূল্য সঠিক ভাবে যুদ্ধ করে জয়ী হতে পারার মধ্যে, সার্টিফিকেট অর্জনের মধ্যে নয়। 

আর যারা পাশ করেছো

ডাক্তার সমাজে অফিশিয়ালি প্রবেশ করার জন্য অভিনন্দন। মানব সেবার মহত্তম প্রত্যয়ে এই পেশায় আগমন - সেটার প্রমাণ দেওয়ার সময় আজ থেকে শুরু হল। এতদিন এই কথাগুলো বলাটা ফেইক। মানুষের সেবায় নিজের দায়বদ্ধতার প্রমাণ ডাক্তার হওয়ার পর থেকে দিতে হয়, আগে নয়। "মানুষের প্রতি মমত্ববোধ এমবিবিএস পাশের পর অতিবাহিত সময়ের ব্যস্তানুপাতিক" এই সূত্র ভুল প্রমাণ করার দায় নিয়েই যাত্রা শুরু হচ্ছে আজ থেকে।

এই যাত্রায় শুভকামনা জ্ঞাপন করছি।

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত