ঢাকা      সোমবার ২৩, সেপ্টেম্বর ২০১৯ - ৭, আশ্বিন, ১৪২৬ - হিজরী

কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তাহীনতা : আশু সমাধান জরুরী

প্রকাশিত হলো মেডি ভয়েস নভেম্বর ২০১৪ সংখ্যা। সাফল্যের অগ্রযাত্রায় যুক্ত হলো আরেকটি স্বর্ণপালক। নানা প্রতিকূলতা ও সীমাবদ্ধতা থাকার পরেও আপনাদের ঔৎসুক্য, ভালোবাসা, সার্বিক সহযোগিতা আমাদের বার বার এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা। ভবিষ্যতে এই সহযোগিতার ধারা আরও ব্যাপ্তি পাবে এটাই প্রত্যাশা। তবেই ‘আমাদের কথা বলবো আমরাই’ এই স্লোগানের বাস্তবায়নে আমরা আরো বেশি সফল হতে পারবো।

সাম্প্রতিক সময়ে নানা প্রতিকূলতা চিকিৎসা পেশাকে কঠিন করে দিচ্ছে। মিডিয়ার বৈরিতা, কর্মস্থলে নিরাপত্তার অভাব, সরকারী হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা উপকরণ এবং প্রয়োজনীয় জনবলের সীমাবদ্ধতা স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে দারুন বাঁধা হিসেবে কাজ করছে। স্বাস্থ্যখাতে যেকোন অব্যবস্থাপনায় ঢালাওভাবে চিকিৎসকদের দোষারোপ করা বর্তমানে একটি রীতিতে পরিণত হয়েছে। প্রচারমাধ্যমের ধারাবাহিক অপপ্রচার, চিকিৎসকদের অর্জনগুলোকে এড়িয়ে ঋণাত্মক সংবাদের বহুল প্রচারের ফলে জনসাধারণের মনে চিকিৎসকদের সম্পর্কে একটি ভুল ধারণার সৃষ্টি হয়েছে। কতিপয় চিকিৎসকের কর্মক্ষেত্রে অবহেলা, অসদুপায় অবলম্বন ও দূর্ব্যবহার এই অবস্থাকে আরও ঘোলাটে করে দিচ্ছে। এ পরিস্থিতির পরিবর্তনে আমাদের সবার আন্তরিক প্রচেষ্টা ও নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করে যাওয়া জরুরি হয়ে পড়েছে।

সম্প্রতি ‘রোগী-সুরক্ষা আইন’ নামে একটি আইনের খসড়া হচ্ছে। এতে রোগীর অধিকারের পাশাপাশি চিকিৎসকদের অধিকারকেও আন্তরিকভাবে মূল্যায়ন করা হয়েছে। এই উদ্যোগের জন্য সরকারকে সাধুবাদ জানাই। আশা করি সরকার আইনটি অতিসত্ত্বর সংসদে পাস করে তা বাস্তবায়নে আন্তরিক উদ্যোগ নিবে। সাম্প্রতিক সময়ে চিকিৎসকদের উপর যেসকল হামলা হয়েছে এগুলোর যথাযথ তদন্তসাপেক্ষে দ্রুত বিচার হওয়া জরুরি। অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা হলে পরবর্তীতে এ ধরণের অনাকাক্সিক্ষত ঘটনার সংখ্যা দ্রুতই কমে আসবে। 

একজন চিকিৎসক আন্তরিকভাবে তখনই চিকিৎসাসেবা প্রদান করতে পারবেন যখন তিনি নিজেকে কর্মক্ষেত্রে নিরাপদ মনে করবেন। এই নিরাপত্তা প্রদানের দায়িত্ব সরকারেরই। পাশাপাশি আমাদের আন্তরিক ব্যবহার ও যথাযথ কাউন্সেলিং বাস্তবিক অর্থেই অনেক অপ্রীতিকর ঘটনার এড়িয়ে যেতে সাহায্য করবে। এই ছোটখাটো ব্যাপারগুলোতে আমাদের উদাসীনতা দূর হওয়া জরুরি। একজন রোগী ও চিকিৎসকের সম্পর্ক হওয়া উচিত আস্থা ও বিশ্বাসের। এমন কোন কাজ আমাদের করা উচিত নয় যা এই বিশ্বাসে চিড় ধরাতে পারে।
 

(মেডিভয়েস : সংখ্যা ৩, বর্ষ ১, নভেম্বর ২০১৪ তে প্রকাশিত)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


সম্পাদকীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ডাক্তারি ভাবনা: এমবিবিএস বনাম নন-এমবিবিএস ডাক্তার

ডাক্তারি ভাবনা: এমবিবিএস বনাম নন-এমবিবিএস ডাক্তার

ডা. আব্দুল করিম (ছদ্মনাম)। প্রেসক্রিপশনে নামের পাশে এমবিবিএস শব্দটি নেই। আছে কিছু…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস