০৩ মে, ২০১৭ ০৩:৪০ পিএম

দৃঢ় হচ্ছে চিকিৎসক ঐক্য প্রয়োজন ধারাবাহিকতা

দৃঢ় হচ্ছে চিকিৎসক ঐক্য প্রয়োজন ধারাবাহিকতা

সাম্প্রতিক সময়ে নানা বিষয় নিয়ে মেডিকেল অঙ্গণ বেশ উত্তাল। বর্তমানে চলছে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস বিতর্ক, অষ্টম বেতন স্কেলে  বিসিএস ক্যাডারদের টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পুনর্বহালের দাবিতে এবং শিক্ষানবীশ চিকিৎসকদের ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলন। কদিন আগেই শেষ হল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজের টিউশন ফি’র উপর আরোপিত ভ্যাট বাতিলের দাবিতে ও ক্যারি অন পুনর্বহালের দাবিতে আন্দোলন। এ আন্দোলনগুলো চিকিৎসক সমাজের ক্রমবর্ধমান ঐক্যের শক্তিকে প্রতিফলিত করছে। এতোটা ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ আগে লক্ষ্য করা যায়নি। তবে এখনো  বয়োজ্যেষ্ঠদের অংশগ্রহণ এখনো আশানুরূপ নয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো এ ঐক্য গঠনে সত্যিই বেশ অবদান রাখছে। লক্ষ্য রাখতে হবে এ ঐক্য যেন আন্তঃর্জালের বাইরে প্রায়োগিক ক্ষেত্রেও যথাযথভাবে কাজে লাগে।

এক বছর হয়ে গেলো ৩৩তম বিসিএস এর সাড়ে ছয় হাজার তরুণ চিকিৎসক সারাদেশে ছড়িয়ে গেছেন। পর্যালোচনা হওয়া দরকার তারা স্বাস্থ্যখাতের এতোসব দুর্নীতি, অনিয়ম-অব্যবস্থাপনার পরিবর্তনের পক্ষে কাজ করতে চেষ্টা করছেন কতোটুকু? না নিজেরাই সিস্টেমের ফাঁকফোঁকর খুজছেন! মনে রাখতে হবে বর্তমানে দেশের কল্যাণে এই তারুণ্যের শক্তিই সবচেয়ে বেশি দরকার। পরিবর্তন করতে হবে নিজ নিজ জায়গা থেকেই, নিজ নিজ সাধ্যমতো।
দিন দিন চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষা অর্জনের পথকে কঠিন করে দেয়া হচেছ। বিভিন্ন পন্থায় সামনে দাড় করিয়ে দেয়া হচ্ছে নানা অপনিয়ম ও দীর্ঘসূত্রিতার বাঁধা। কর্তৃপক্ষের উচিৎ বাহুল্য বর্জন করে উচ্চশিক্ষা অর্জনের যথাযথ পরিবেশ সৃষ্টি করা। 

বাংলাদেশের সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালগুলো অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অনারারী চিকিৎসক নির্ভর তা অস্বীকার করার কোনো সুযোগ নেই। এ অমানবিক প্রথার আশু সম্মানজনক ও বাস্তবসাপেক্ষ সংস্কার প্রয়োজন। ভুললে চলবে না এই চিকিৎসকদেরও পরিবার পরিজন আছে। শুরুতে অন্ততঃ ন্যূনতম একটি ভাতা দিয়ে হলেও এ অবস্থার পরিবর্তনে কাজ শুরু করা সময়ের দাবি।
 

(মেডিভয়েস : সংখ্যা ৬, বর্ষ ২, ডিসেম্বর-জানুয়ারী ২০১৬ তে প্রকাশিত)

‘চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলাম, এর মধ্যে আবার এ হয়রানি’
যৌন হয়রানির শিকার শেবাচিমের নারী ইন্টার্ন চিকিৎসক

‘চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলাম, এর মধ্যে আবার এ হয়রানি’

যৌন হয়রানির শিকার শেবাচিমের নারী ইন্টার্ন চিকিৎসক

‘চিকিৎসা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলাম, এর মধ্যে আবার এ হয়রানি’

করোনা ও বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা

এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

এক বছর প্রয়োগ হবে সেনা সদস্যদের দেহে

চীনে করোনার প্রথম ভ্যাকসিন অনুমোদন

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত