২৪ এপ্রিল, ২০১৭ ১১:১০ এএম

স্মৃতিভ্রমের প্রতিষেধক আবিষ্কার

স্মৃতিভ্রমের প্রতিষেধক আবিষ্কার

স্মৃতিভ্রম ও স্নায়ুজনিত মস্তিষ্ক রোগের প্রতিষেধক পাওয়ার দাবি করেছেন বিজ্ঞানীরা। একদল ব্রিটিশ গবেষক ২০১৩ সালে প্রথমবারের মতো প্রাণির মৃতকোষ আবার জীবন্ত অবস্থায় ফেরানোর প্রতিষেধক আবিষ্কারের ঘোষণা দেয়। তবে সেই প্রতিষেধকটি মানুষের জন্য উপযুক্ত ছিল না। এবারে দুটি নতুন প্রতিষেধকের খবর পাওয়া গেছে যা একইভাবে কাজ করতে সক্ষম এবং এরই মধ্যে তা মানুষের শরীরে ব্যবহারও করা হয়েছে। অধ্যাপক জিওভানা মল্লুসি বলেন, এটা সত্যি দারুণ খবর। তিনি প্রতিষেধক দুটি পরীক্ষামূলকভাবে স্মৃতিভ্রম রোগীর ওপর প্রয়োগ করে দেখতে চান।

বিজ্ঞানীরা বলেন, স্নায়ুজনিত অনেক রোগ মস্তিষ্কে ভুল প্রোটিন তৈরি করে যা আস্তে আস্তে ভয়াবহ ফল ডেকে আনে। পর্যায়ক্রমে মস্তিষ্কের কোষগুলোর মৃত্যু ঘটে এবং মস্তিষ্ক অকেজো হয়ে পড়ে। এমনকি মৃত্যুও ঘটে।

এমন পরিস্থিতিতে নিরাপদ প্রতিষেধকের সন্ধানে ২০১৩ সাল থেকে যুক্তরাজ্যের ওই গবেষক দল কাজ করে। তারা প্রায় এক হাজার ওষুধ মানুষ ও ইদুরের শরীরে প্রয়োগ করেন। এর মধ্যে দুটি ওষুধ সফলতার মুখ দেখে। ওষুধ দুটি স্মৃতিভ্রম ও মস্তিষ্কের কোষকে মৃত্যুর হাত হতে রক্ষা করে।

জিওভানা মল্লুসি আরও বলেন, প্রথম প্রতিষেধকটি হতাশাগ্রস্তদের চিকিৎসায়ও ব্যবহার হয়ে আসছে। আর অন্যটি ক্যান্সার আক্রান্তদের চিকিৎসায় ব্যবহার হয়।

সূত্র: জনকণ্ঠ

 

স্বাস্থ্য খাতের সংস্কার প্রতিবেদনে সুপারিশ

রোগী থেকে সরাসরি টাকা গ্রহণ নয়, চিকিৎসক হবেন বেতনভুক্ত কর্মচারী

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত