ঢাকা শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ৩ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৬ ঘন্টা আগে
ডা. সুমন প্রধান

ডা. সুমন প্রধান

postgraduate medical student at London, United Kingdom


৩০ মার্চ, ২০১৭ ২২:৫৩

চিকিৎসা শাস্ত্রে উচ্চশিক্ষা : (ধারাবাহিক লিখনী)-২

চিকিৎসা শাস্ত্রে উচ্চশিক্ষা : (ধারাবাহিক লিখনী)-২

চাকুরী বাজার (যুক্তরাজ্য) , যোগ্যতা - শুধুমাত্র এমবিবিএস পাশ (বাংলাদেশ)

  • বাংলাদেশে এমবিবিএস পাশ করার পর একটা কঠিন বাস্তবতার সম্মুখীন হয় নবীন চিকিৎসকরা । একটি মেডিকেল কলেজ /হাসপাতালে / চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান অ্যাপোলো , স্কয়ার ,ইউনাইটেড ,ল্যাবএইড ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানে মেডিকেল অফিসার ( বেতন-১৬,০০০ টাকা- ২৫,০০০ টাকা + ) পদে , প্রভাষক পদে ( ২০-২২ হাজার টাকা ) চাকুরীর জন্য দিনের পর দিন অপেক্ষা , যোগাযোগ , লবিং অনেক কিছুই করতে হয় । এর উপর এসকল পোস্টের জন্য প্রতিযোগিতা করতে হয় পার্ট - ১ , প্রাপ্তদের সাথেও । সে এক অস্হির আর অস্বস্তির সময় । এর মাঝে সময় বের করে বিসিএস , পার্ট -১ এর পড়াশুনা চালাতে হয় । অবশেষে ০৬ মাস , ১/২ বছরে ভাগ্যের চাকা হয়তো খুলে যায় , পরিশ্রমের সফলতা আসে অনেকের - ই ।

 

  • এখন বলবো , যারা সফল হতে পারেন নি , হতাশার কিছু নেই । আপনার জন্য সুযোগ শেষ হয় নি । সামান্য - ০১ মাসের একটু চেষ্টা আপনাকে সফলতায় নিয়ে যাবে । আইইএলটিএস - (৬+) , পেলে আপনি যুক্তরাজ্যে পড়ার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেন । আপনার স্কোর (৭+) হলে স্কলারশীপে পড়াশুনার সুযোগ পাবেন , আর পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না । শুধুই সামনে এগিয়ে যাওয়া । স্কোর -(৬+) হলে টিউশনির ফি দিতে হবে মিনিমাম - ৬০% , বেশির ভাগ মাস্টার্স কোর্স - ০১ বছর , টিউশন ফি - ১১ লাখ টাকা প্রায় - যার ৬০% (৬ লাখ ৬০ হাজার + অ্যাপলিকেশন ফি + ব্যাংক মানি চার্জ = মোট ০৭ লাখ টাকা ) । ২ মাস বাসা/হোস্টেল ফি সহ খাবার , যাতায়াতের জন্য ০২ লাখ টাকা হাতে নিয়ে যুক্তরাজ্যে আসবেন । বলা বাহুল্য , এখানে মানুষ জন কম পাবেন কিন্ত মানুষরুপী রোবট পাবেন সবাইকে । দেশে থেকে হেলথ ইন্সুরেন্স - ১ বছরের জন্য প্রায় - ২৫,০০০* টাকা , ভিসা ফি - ৩৮,০০০*টাকা , বিমান ভাড়া - ৫০,০০০*টাকা পে করতে হয় । যুক্তরাজ্যে প্রবেশের আগে টিউশন ফি ছাড়া শুধুমাত্র খরচ হবে , ১ লাখ ১৫ হাজার টাকা মাত্র ( হেলথ ইন্সুরেন্স , ভিসা ফি , বিমান ভাড়া ) । আর টিউশন ফি সহ সব মিলিয়ে খরচ হবে ৮ লাখ + টাকা ।

 

  • কি টাকার হিসেব শুনে থমকে গেলেন ? না এখানে শেষ নয় । সমাধান আছে । যুক্তরাজ্যে আসার পর আপনি এই টাকা ০৬ টমাসে তুলে ফেলতে পারবেন । এখানে মাস্টার্স কোর্স ১ বছর হওয়ায় আপনি ০৪ মাস বাড়তি ভিসা পাবেন , তার মানে ১৬ মাসের ভিসা । এসময় ফুল টাইম কাজ করতে পারবেন । এছাড়া ক্রিসমাস ডে ( ০১ মাস* , ইস্টারডে- ( ০১মাস* ) সামার ভেকেশন - ০৩* মাস মোট -মাস্টারস কোর্সে ছুটি পাবেন - ( ৪মাস বাড়তি ভিসা+১+১+৩=৯ ) মাস । এসময় ফুল টাইম কাজ করতে পারবেন । প্রতিদিন - ১০ ঘন্টা করে হলে মাসে যদি ২৫ দিন কাজ করেন তাহলে মোট - (২৫*১০ = ২৫০ ঘন্টা কাজ , প্রতি ঘন্টা - ৮* কম পক্ষে , সে হিসেবে মাসে ২ লাখ , ৯ মাসে ১৮ লাখ টাকা । আশা করি হিসেব টা বুঝতে বাকি নেই কারো !! এবার আসি যদি আমার আরো টাকা দরকার হয় তবে , বিনা শর্তে ০১ টাকা জামানত ছাড়া , স্টুডেন্ট লোন পাবেন - ০৪ লাখ থেকে শুরু করে ১০ লাখ টাকা , ০৭ দিনে লোন দেয় । এ সুযোগ পাবেন যুক্তরাজ্যে ঢুকে অনলাইনে ভোটার হিসেবে রেজিস্টার করার - ০৩ মাসে , রেজিস্টার হতে সময় নিবে - ০২ সপ্তাহ মাত্র * । এছাড়া ক্রেডিট কার্ডের বিপরীতে লাখ টাকা লোন নিতে পারবেন , বিনা জামানতে মোট টাকা হলো ২০-২৫ লাখ আরো টাকার দরকার আছে কি ? এটাও সত্য অনেকে আছে তারা ০৯ মাসে অক্লান্ত শ্রমে প্রতি মাসে ০৩ লাখ* করে ইনকাম করবে ।।

 

  • এবার আসি কিছু প্রচলিত , মিথ্যে , বিভ্রান্তিকর তথ্যের ব্যাপারে । যারা অন্য দেশে আছেন যুক্তরাজ্য ব্যতীত তারা অনেকে বলেন , এখানে নাকি চাকুরীর বাজার ভালো না । চাকুরীর বাজার কাদের জন্য ভালো না ??? ডাক্তারদের জন্য না কি অন্য পেশার জন্য । নি:সন্দেহে অন্য পেশার জন্য ; ডাক্তারদের আছে অপার সম্ভাবনা । অনেকে বলে এখানে নাকি ডাক্তারদের অড জব করতে হয় - যেমন ট্যাক্সি চালানো , রেস্টুরেন্ট এ কাজ , বিভিন্ন শপে কাজ ইত্যাদি । আমি বলবো , এগুলো কিভাবে এসেছে । যারা বলে এ ধরনের কথা তারা এগুলো রিলেটিভ দের কাছে শুনেছে , বা নিজেরা এগুলো করে । এনারা , ফলের দোকান , কফি শপ , মাকডোনাল্ডস , পিজ্জা , কেএফসি , টেসকো ইত্যাদির বাইরে চাকুরি খুঁজে নি ; প্লাস পাননি । কারণ চিকিৎসা রিলেটেড পেশা কি কি আছে না আছে এটা তাদের কাছে পরিস্কার নয় । তাই না জেনে মন্তব্য করে আপনার যদি কোনো চিকিৎসক ভাই বোন স্বজন থাকে তার কাছে জিজ্ঞেস করুন । আসল তথ্য পাবেন এখানে শুধুমাত্র বাংলাদেশ থেকে , শুধুমাত্র এম বি বি এস পাশ করা একজন ডাক্তার - সায়েন্টেফিক অফিসার , রিসার্চ অফিসার , হেলথ এসিসটেন্ট , সাইট সেন্টার ওয়ার্কার , হসপিটাল & নার্সিংহোম রিসেপশনিস্ট (রোগীদের মোটিভেট করা) , টিম লিডার সহ অনেক জব পাবেন । খুবই স্পষ্ট কথা , যুক্তরাজ্যে জব নাই - এরকম লোক নাই ( পাগল/হোমলেস) ছাড়া।

 

  • জব কিভাবে পাবেন ??? বাংলাদেশ থেকে অনেক বড় বড় ডাক্তার আছেন এদেশে ।  অনেক জি পি ডাক্তার , কনসালটেন্ট আছেন এদেশে । একবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছেন কি ? ? পরামর্শ চেয়েছেন কি ??? যাই হোক , এখানে জবের পেছনে আপনাকে ছুটতে হবে না !! জব আপনাকে খুঁজবে , খুঁজে নিবে । একবার শুধু জব সাইটে আপনার সি ভি টা আপলোড করুন , দিনে আপনাকে ফোন আর মেইল করে ইন্টার ভিউ এর জন্য পাগল বানায় ফেলবে । উল্লেখযোগ্য সাইটগুলো হলো - Indeed jobs , reed uk , cv library ... শুধু সিভি আপলোড করুন আর ইন্টারভিউ এর জন্য রেডি থাকুন ।

 

  • কিছু ০১ দিনের কোর্স অনলাইনে করতে হবে অথবা সরাসরি হেলথ ইনন্সিটিউট গুলো তে করতে পারেন , অধিকাংশই ০১ দিনে করায় । খরচ - ৫,০০০ * টাকা । তবে এজেন্সীরর মাধ্যমে চাকুরীর আবেদন করলে তারা ফ্রি করায় কোর্স গুলি ( ১২ টি কোর্স ) , ০১ দিনে ( এগুলোর জন্য কোন পরীক্ষা হয় না ) । এবার আরেকটি কথা বলি , বাংলাদেশ থেকে আসার সময় যদি পারেন ড্রাইভিং লাইসেন্স আনুন - ০১ বছর গাড়ি চালাতে পারবেন , আর পারলে ভ্যাকসিনেশন নিয়েছেন - এর প্রমাণপত্র আনবেন , এটা হসপিটাল এ কাজ করতে শো করতে হয় । না আনলে সমস্যা নেই , এজেন্সি ফ্রি চেক আপ করাবে আপনাকে ।। যুক্তরাজ্যে ঢুকার পর - ১ম যে কাজটি করবেন তা হলো কাজের জন্য ( NI- National Insurance, Online -এ ১৪ দিনে দিয়ে দেয় ) করাবেন।

 

  •  আরেকটা কথা , যারা আইএলটিএস - শুধুমাত্র ০৬ পেয়েছেন , তারা যদি জানুয়ারী সেশনে ভর্তির জন্য আবেদন করেন । সব থেকে ভাগ্যবান হবেন আপনারা !! কারণ শুনুন ,, প্রি মাস্টারস / প্রি সেশনাল করতে হবে আপনাকে স্কোর কম - এজন্য , এটা শুরু হবে - ফেব্রুয়ারী শেষ হবে , একই বছরের - এপ্রিল , পরের সেমিস্টার শুরু হবে , সেপ্টম্বর/ অক্টোবর । ছুটি পাবেন - (এপ্রিল - অক্টোবর = ০৫ মাস , একটানা কাজ করবেন যতখুশি ততো ।

 

  • আজকে শুধু চাকুরি নিয়ে কথা বললাম , মুক্ত আলোচনা করলাম । মাস্টারস শেষ করে অবশ্যই টার্গেট থাকবে পিএইচ ডি । এদেশে পিএইচডি করলে , যেমন টাকা আছে ; তেমনি আছে সম্মান । জীবনের শ্রেষ্ঠ অর্জন হলো - সম্মান । সম্মানের সাথে বাঁচতে হবে । আর বাঁচতে হলে , সবথেকে বেশি দরকার টাকা । সর্বোপরি বলবো , জীবনের শেষ এখনো হয়নি , এখনো সময় আছে , সুযোগ আছে । যদি বিসিএস , পার্ট-১ হয় তাহলে , সমস্যা নেই ; কিন্তু এসব হয়নি বলে , কপাল টা শেষ হয়ে যায় নি । সামনে আছে অপার সম্ভাবনা --- (পরবর্তী লিখনী - ভার্সিটি , সাবজেক্ট চয়েস & স্কলারশীপ Ielts , Accommodation , ভর্তি পক্রিয়া) ।

 

ডা : সুমন প্রধান 
রংপুর মেডিকেল কলেজ ( ৩৮ তম )
লন্ডন , যুক্তরাজ্য ।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত