ডা. শেখ মইনুল খোকন

ডা. শেখ মইনুল খোকন


মেডিক্যাল অফিসার, কিডনি ফাউন্ডেশন হাসপাতাল, মিরপুর, ঢাকা


১০ মার্চ, ২০১৭ ০৬:০৪ পিএম

স্থুলতা এবং কিডনি রোগ

স্থুলতা এবং কিডনি রোগ

২০১৪ সালে বিশ্বব্যাপী অতিরিক্ত মুটিয়ে যাওয়া মানুষের সংখ্যা ছিলো প্রায় ৬০০ মিলিয়ন। অতিরিক্ত স্থুল বা মোটা মানুষের ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তাচাপ বেশী হয়। ডায়াবেটিস এবং উচ্চ রক্তচাপের কারনে ক্রনিক কিডনি ডিজিজ এমনকি কিডনি ফেল্যিউর হতে পারে। নিশ্চিন্ত হওয়ার বিষয় হলো- মুটিয়ে যাওয়া সমস্যা সমাধান সম্ভব। যথাযথ খাদ্যাভ্যাস, নিয়মিত ব্যায়াম এবং জীবন যাপনে পরিবর্তন করে মুটিয়ে যাওয়া সমস্যা প্রতিরোধ করা যায়।

মুটিয়ে যাওয়া কিভাবে কিডনি রোগ করে?

মোটা মানুষের উচ্চ রক্তচাপ এবং ডায়াবেটিস হয় যেগুলো কিডনির গ্লুমেরুলাস বা চাকনির ইনফেকশন করে কিডনি রোগ করে।কিন্তু স্থুলতা কিভাবে কিডনি রোগ করে এর মেকানিজম নিয়ে স্পষ্ট বর্ণনা না থাকলেও। বলা হয়ে থাকে, স্থুলতার কারনে Adiponectin, lectin এবং Resistin এর তৈরি প্রক্রিয়ায় পরিবর্তন আসে।

এগুলোর কারনে কয়েকটি প্রক্রিয়ায় পরিবর্তন আসে-

১. ইনফেকশান হওয়ার সম্ভবনা বাড়ে।
২. চর্বি ভাঙন প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়।
৩. উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রনের শারীরিক প্রক্রিয়া Renin-Angiotensin-Aldesteron System কার্যকর হওয়া।
৪.ইন্সুলিন তৈরি হওয়া।

এসবের কারনে কিডনিতে কয়েকটি পরিবর্তন আসে-

১.কিডনিতে চর্বি জমা।
২.কিডনির সাইনাসে চর্বি জমা।
৩.কিডনির গ্লুমেরুলাসে উচ্চ রক্তচাপ হওয়া।
৪.গ্লুমেরুলাসের পারমিয়াভেলেটি বেড়ে যাওয়া।
একে Obesity Induced Glumerulopathy বলে।

স্থুলতার কারনে আরো কয়েকটি কিডনি সমস্যা হয়।

১.কিডনিতে পাথর হওয়া
২.ফোকাল সেগমেন্টাল গ্লুমেরুলো স্ক্লেরোসিস 
৩.কিডনির ক্যান্সার হওয়া।

মুটিয়ে যাওয়া সমস্যা কিভাবে সমাধান করা যায়?

১. পরিমিত শর্করা এবং ফ্যাটি খাবার খাওয়া।
২.বেশী পরিমানে প্রোটিন বা আমিষ খাওয়া।
৩.নিয়মিত ব্যায়াম করা।
৪.প্রতিদিন কমপক্ষে ৩০ মিনিট হাটা।
৫.প্রচুর পানি খাওয়া।
৬.ডাক্তারের পরামর্শ সাপেক্ষে এবং ক্রিয়েটিনিন ১.৫ এর কম হলে Metformin খাওয়া যেতে পারে।

ডাঃ শেখ মইনুল খোকন
মেডিক্যাল অফিসার, কিডনি ফাউন্ডেশন হাসপাতাল, মিরপুর, ঢাকা।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে