ঢাকা      মঙ্গলবার ২৪, এপ্রিল ২০১৮ - ১১, বৈশাখ, ১৪২৫ - হিজরী

শুধু বই পড়ে ভালো ডাক্তার হওয়া যায় না: অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ

ইলিয়াস হোসেন: সমাজের মানুষ যখন আপনার স্বীকৃতি দেবে, আপনার রোগীরা যখন ভালো বলবে, কেবল তখনই আপনি ভালো ডাক্তার। শুধু বই পড়ে ভালো ডাক্তার হওয়া যায় না। এজন্য রোগীদের সর্বপরি মানুষকে বুঝতে হবে। উপরের কথাগুলো বলেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের ডীন অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত মেডিক্যাল কলেজ, ডেন্টাল কলেজ ও ইনস্টিটিউটসমূহে মার্চ ২০১৭ইং শিক্ষাবর্ষে এমডি/এমএস রেসিডেন্সী প্রোগ্রাম ফেজ-এ (MD/MS Residency Program Phase A)-তে ভর্তিকৃত রেসিডেন্ট চিকিৎসকবৃন্দের ইনডাকশন প্রোগ্রাম (Induction Program-বরণ ও পরিচিত অনুষ্ঠান) বুধবার (১ মার্চ) সকাল ৯টায় অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের এ-ব্লকস্থ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের সায়েন্টিফিক পার্টনার ছিলো বেক্সিমকো ফার্মা। 

অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ আরো বলেন, সবাই ক্ষুদ্র দলাদলির ঊর্ধে উঠে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা করতে হবে। তাহলেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মর্যাদা বাড়বে। এ বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্বের এক নম্বর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মর্যাদা পাবে।

নবাগত রেসিডেন্ট চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে বক্তৃতাকালে অনুষ্ঠানের সভাপতি বিএসএমএমইউর ভিসিঅধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান বলেন, রোগীদের প্রতি সেবার মনোভাব নিয়ে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, সব চাইতে মেধাবী চিকিৎসকবৃন্দ ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার মাধ্যমেই চিকিৎসা শিক্ষায় উচ্চতর ডিগ্রী অর্জনের সুযোগ পেয়েছেন। রেসিডেন্ট চিকিৎসকদের আগামী দিনে জাতি দরদী ও মহান চিকিৎসক হিসেবে দেখতে চায়। সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে শিক্ষা কার্যক্রম সম্পন্ন এবং রোগীদের প্রতি সেবা মনোভাব নিয়ে নিজেকে গড়ে তোলার মাধ্যমে রেসিডেন্ট চিকিৎসকগণ বা শিক্ষার্থীরা এ দেশের মেডিক্যাল শিক্ষা ও চিকিৎসাসেবাকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে এটাই সবার প্রত্যাশা। 

মেডিক্যাল চিকিৎসা শিক্ষায় উচ্চতর ডিগ্রী অর্জনের জন্য ভর্তিকৃত নবাগত রেসিডেন্ট চিকিৎসকবৃন্দের ইনডাকশন প্রোগ্রামে আরো বক্তব্য রাখেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. এ এস এম জাকারিয়া স্বপন, উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মোঃ শহীদুল্লাহ সিকদার, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোঃ আলী আসগর মোড়ল, বেসিক সায়েন্স ও প্যারা ক্লিনিক্যাল সায়েন্স অনুষদের ডীন অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান, সার্জারি অনুষদের ডীন অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে সারাদেশের ২৪টি মেডিকেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন অনুষদের ৩৪জন বিদেশী ছাত্র-ছাত্রীসহ ১০৩৪ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। এদের মধ্যে সার্জারি অনুষদে  ৪৪৩ জন, বেসিক সায়েন্স ও প্যারা ক্লিনিক্যাল সায়েন্স অনুষদে ১১৭জন, মেডিসিন অনুষদে ৪৫৯জন এবং ডেন্টাল অনুষদে ৪৯জন শিক্ষার্থী ইনডাকশন প্রোগ্রামে অংশ নেন। 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

প্রথম সফল বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট করলো বিএসএমএমইউ

প্রথম সফল বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট করলো বিএসএমএমইউ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট করে সুস্থ হয়ে ইফতে আরা বাড়ি…

অন্যরকম সরকারি হাসপাতাল

অন্যরকম সরকারি হাসপাতাল

সরকারি হাসপাতাল সম্পর্কে নেতিবাচক একটা ধারণা তৈরী হয়ে গেছে, যেভাবেই হোক। এর…

লাশ কেন হঠাৎ নড়ে উঠে?

লাশ কেন হঠাৎ নড়ে উঠে?

এক: তিন বছরের টুনটুন ছিলো বাবা মায়ের চোখের মনি। সারাদিন বাড়ির এ মাথা…

চলমান সকল নিয়োগে থাকছে কোটা

চলমান সকল নিয়োগে থাকছে কোটা

কোটা বাতিল হলেও সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে চলমান সব নিয়োগে বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি বহাল…

ঢাবির হল থেকে ছাত্রীদের বের করে দেয়ার অভিযোগে বিক্ষোভ

ঢাবির হল থেকে ছাত্রীদের বের করে দেয়ার অভিযোগে বিক্ষোভ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হল থেকে মধ্যরাতে ছাত্রীদের বের করে দেয়ার প্রতিবাদে…

মানহীন মেডিকেল কলেজ বন্ধ করা যাচ্ছে না

মানহীন মেডিকেল কলেজ বন্ধ করা যাচ্ছে না

আমরা মানহীন মেডিকেল কলেজ বন্ধ করে দেয়ার পক্ষে। আর টাকার বিনিময়ে আইনজীবীরা আদালত থেকে…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর