ডা. শরীফ উদ্দিন

ডা. শরীফ উদ্দিন

রেসিডেন্ট, বিএসএমএমইউ

 

 


১১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ০৩:১৪ পিএম

দুঃখের দেশে বেশী থাকে মহৎ ডাক্তার, যারা ভিজিট ছাড়াই রোগী দেখে দেয়

দুঃখের দেশে বেশী থাকে মহৎ ডাক্তার, যারা ভিজিট ছাড়াই রোগী দেখে দেয়

যে ডাক্তার ভিজিট নেননা, বিনা পয়সায় রোগী দেখে দেন, তিনি মহৎ।
আর যে ডাক্তার সর্বোচ্চ প্রফেশনালিজম বজায় রেখে রোগী দেখেন, সঠিকভাবে ডায়াগনোসিস করে সঠিক চিকিৎসা দেন, তিনি মহৎ না?
হয়তো মহৎ না, হয়তো উনার কাহিনী লিখলে জনগণ আবেগাপ্লুত হয় না। কিন্তু একটা দেশের জন্য যতটা না মহৎ ডাক্তার দরকার, তার চেয়েও অনেক বেশী দরকার দ্বিতীয় ক্যাটাগরির ডাক্তার।

আমাদের এই ক্ষুদ্র অর্থনীতির দেশে, যেখানে জীবন অন্য সবকিছুর চাইতে কম দামী, যেখানে রাষ্ট্র তার অমানবিকতার সর্বোচ্চ চর্চা করে যায় নাগরিকের সাথে, যেখানে মৌলিক প্রয়োজন পূরণের সরকারী বাধ্যবাধকতা কেবল সংবিধানের শোভা বর্ধন করে যায়, সেখানেও রাষ্ট্র অন্তত চিকিৎসাসেবায় তার মানবিকতা প্রদর্শন করার চেষ্টা করেছে।

বাংলাদেশের যেকোনো জায়গায় আপনি দশ টাকার টিকিট কেটে সরকারী চিকিৎসকের কাছে দেখাতে পারবেন। এবং সেই চিকিৎসক অন্ততপক্ষে এমবিবিএস পাশ করে আসা। এমবিবিএস পাশ কোনো চিকিৎসক যদি রোগ নির্ণয়ে অপারগ হন, তাহলে উপজেলা থেকে শুরু করে জেলা সদর এবং মেডিকেল কলেজগুলোতে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞকে দেখাতে পারবেন। তারপরও ফ্রী চিকিৎসা নামক শব্দটি এদেশে জনপ্রিয় হয়ে গেলো। এবং যে চিকিৎসক এই ফ্রী চিকিৎসা দিতে চান না, তাকে জনগণ লোভী কসাই হিসেবে দেখতে লাগলো।

জনগণের কথা কি বলবো, আমাদের ডাক্তাররাও সম্ভবত এরকমই মনে করেন। হোমপেজে অনেকের ফ্রী চিকিৎসা দেয়া ডাক্তারের মহানুভবতা দেখে এরকমই মনে হয়। এদেশের জন্য এটাই হয়তো স্বাভাবিক। সুখের দেশে প্রফেশনাল, স্কিলড ডাক্তার থাকে বেশী আর দুঃখের দেশে বেশী থাকে মহৎ ডাক্তার, যারা ভিজিট ছাড়াই রোগী দেখে দেয়।

 

দাবি পেশাজীবী সংগঠনের, রিট পিটিশন দায়ের

‘বেসরকারি মেডিকেলের ৮২ ভাগের বোনাস ও ৬১ ভাগের বেতন হয়নি’

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না