ডা. শাহারিয়ার মাহমুদ

ডা. শাহারিয়ার মাহমুদ

এমবিবিএস, এমএইচ শমরিতা মেডিকেল কলেজ। 


০৭ জানুয়ারী, ২০১৭ ১১:০১ এএম
চিকিৎসা কথন- ৪

পোস্ট গ্রাজুয়েশন করা চিকিৎসকের সংখ্যা বাড়ছে না

পোস্ট গ্রাজুয়েশন করা চিকিৎসকের সংখ্যা বাড়ছে না

৫ জানুয়ারি প্রথম আলোর প্রথম হেডলাইন ছিলো, মেডিকেল এর শিক্ষা বিষয়ক কিছু বিশ্লেষণ, কিছু পরিসংখ্যান। সেখানে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখানো হয়েছে তীব্র শিক্ষক সংকট, ক্লাস রুমের সংকট। এই হেডলাইনের কথা এজন্যই বললাম, চিকিৎসকের সংখ্যা যদি এতই বেশি হয় তাহলে এই এত এত মেডিকেলে এত এত চিকিৎসক সংকট কেন হবে?

এখন এই প্রেক্ষিতে, একটা প্রশ্ন আসতে পারে যে, সেই সব মেডিকেলে তো অধ্যাপক, সহকারী, সহযোগী অধ্যাপকের সংকট, তো শুধু এমবিবিএস ডিগ্রীধারীদের দিয়ে কি এ সমস্যার সমাধান সম্ভব! উত্তর হচ্ছে না। এখানে একটা উত্তর চলে আসছে যে, দেশে এমবিবিএস এর সংখ্যা যে হারে বাড়ছে, সে হারে পোস্ট গ্রাজুয়েশন করা চিকিৎসকের সংখ্যা বাড়ছে না? অনেকে পোস্ট গ্রাজুয়েশনে ঢুকছেন ঠিকই- কিন্তু হতাশ হয়ে আর কনটিনিউ করতে পারছেন না।

এখন এত এত মেডিকেলের অনেক অসুবিধার কথা বলা হয়েছে। এবার আমি কিছু বিষয় এর উপর আলোকপাত করি। দেশে কিছু স্বনামধন্য মেডিকেল কলেজ রয়েছে। যেগুলো হাত দিয়ে গোনা যাবে। এর বাইরে অন্য মেডিকেল কলেজগুলোকে অনেকে গোনায়ই ধরে না। অনেক সরকারী মেডিকেল কলেজকেই তারা গোনায় ধরতে চান না। আর বেসরকারির কথা না হয় বাদ-ই দিলাম।এখানে তো মানুষ পড়ে না, গরু গাধা পড়ে !!

এবারের এফসিপিএস পরীক্ষায় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বেসরকারি এবং পিছনের সারির সরকারী মেডিকেলের শিক্ষার্থী চান্স পেয়েছেন। আল্লাহ্‌ যদি চান, তারা একদিন এফসিপিএস কমপ্লিট করে প্রফেসরও হবেন। এখন হিসেবমতে, তো এদের চান্স পাওয়ারই কথা না। এদের তো স্বনামধন্য মেডিকেলগুলোর মত চিকিৎসক ছিল না। রোগী ছিলো না। এত এত প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও সুযোগ পেয়েছে। এখন বলুন, এই মেডিকেল কলেজগুলো না থাকলে কি তারা তাদের এই মেধার পরিচয় রাখতে পারতো? এদের জন্য কি আলাদা কোন প্রশ্ন করা হয়েছে? একই প্রশ্নে ঢাকা মেডিকেল কলেজের একজন শিক্ষার্থী চান্স পেয়েছে, আবার সেও কিন্তু পেয়েছে।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, এভাবে চিকিৎসক সংকট কি চলতে থাকবে? উত্তর হচ্ছে না। আর এজন্য সরকারকে উদ্যোগ নিতে হবে। সরকারী যেসব মেডিকেল শিক্ষক নেই, ক্লাসরুম নেই, সেসব যাতে হয় সে ব্যাপারে উদ্যোগ নিক। এইসব মেডিকেলে পড়া শিক্ষার্থী দের কিন্তু কোন দোষ নাই, এত এত সীমাবদ্ধতার মাঝেও যদি এরা এই ফলাফল করতে পারে, তাহলে একবার ভাবুন সুযোগ সুবিধা যদি বাড়ে তাহলে এই পারসেনটেজ কোথায় গিয়ে ঠেকবে। এতে করে তো দেশেরই ভালো, দেশ কিছু ভালো মেধাবী চিকিৎসক পাবে। 

আর বেসরকারি মেডিকেলগুলোর ক্ষেত্রে একটা সুনির্দিষ্ট নীতিমালা করা হোক। এর বাইরে গেলে, সেই বেসরকারি মেডিকেল বাতিল করা হবে। সেই মেডিকেলের মালিক যতই পাওয়ারফুল হোক না কেন? এসব ক্ষেত্রে সরকারের একটু সদিচ্ছা প্রয়োজন।  তাহলেই মেডিকেলের এই সমস্যাগুলো অার থাকবে না।

সবশেষে বলবো, কিছু মানুষের নাক খুব উচু থাকে। তাদের উদ্দেশ্য এ বলি, ভাই পৃথিবীটা গোল ; আপনি নিজেও জানবেন না কখন আপনার সেই উচু নাকটা ভোতা হয়ে যায়। মানুষকে ছোট করে দেখা বন্ধ করেন। জানেন তো, আপনি আনফেয়ার কিছু করলেও, উপরে একজন আছেন- যিনি কিন্তু ঠিক সময়ে ঠিক জিনিস এরই প্রতিদান দিবেন, ইনশাআল্লাহ।

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না