ডা. তরফদার জুয়েল

ডা. তরফদার জুয়েল

অনারারি মেডিকেল অফিসার, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। 


৩০ ডিসেম্বর, ২০১৬ ০৯:০৫ এএম

ডাক্তার ঋণ শোধ করেই যাচ্ছে

ডাক্তার ঋণ শোধ করেই যাচ্ছে

আমি সরকারি মেডিকেলে পড়েছি, জনগণের টাকায় পড়েছি>> সারাজীবন বিনা পয়সায় সেবা দিয়ে যাব।

বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫ থেকে সাড়ে ৫ বছর কোর্স শেষে অনার্স - মাস্টার্স ( পোস্ট গ্রেড) কম্পলিট আর আমি ৬ বছরে হই এমবিবিএস ডাক্তার+ ২ পরে এডমিশন টেস্ট দিয়ে পোস্ট গ্রেডে চান্স পাই+ ৫-৭ বছরে পোস্ট গ্রেড কম্পলিট। আমার পড়াশুনার ১১ বছরের মাঝে ৬ বছর বিনামূল্যে বা নামমাত্র সম্মানিতে ২৪ ঘন্টা এমবিবিএস ডাক্তার হিসাবে সেবা দেই। আমি আমার ঋণ শোধ করতে পারি নাই। তাই সারাজীবন এই ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে চলতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন জনগণের টাকা নাই। সবকিছু চলে ছাত্র-ছাত্রীর বাবা-মায়ের টাকায়। তাই তাদের কোন দায়ভার নাই। মাস্টার্স কম্পলিট। হল ছাড়ার দরকার নাই, হলে বসেই বিসিএস পড়, হল যে বাপের টাকায় চলে। বিসিএস দিয়ে বা অন্যভাবে সরকারি বা অন্য চাকরিতে ঢুকে যাও। তারপর সুশীল হয়ে নীতি কথা কপচাও।

আপনি সহকারি কমিশনার হয়েছেন, এই সহকারি কমিশনার হওয়ার আগে কয়দিন, কয়মাস বিনাবেতনে সহকারি কমিশনার হিসাবে জনসেবা করেছেন? নিজের পেছনে জনগণের যে টাকা খরচ হয়েছে তা শোধ করেছেন?

আপনি পুলিশের এএসপি হয়েছেন। পুলিস হিসাবে চাকরিতে ঢোকার আগে কয়দিন, কয়মাস বিনাবেতনে মানবসেবা করে নিজের ঋণ শোধ করেছেন?

আপনি শিক্ষক হয়েছেন। চাকরিতে ঢোকার আগে পাশ করার পর কয়দিন কয়মাস সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিনা পয়সায় মাস্টারি করেছেন ? আপনার ঋণ শোধ করেছেন ?

আমি সরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে সরকারি খরচে পড়ে ডাক্তার হয়েছি, আমার ঋণ আছে, মেনে নিয়েছি। আমি শোধ করেই যাচ্ছি।

ওই একই হাসপাতালে আপনি ৫ টাকার বহির্বিভাগের টিকেট কেটে বা ৩০ টাকার ইনডোর টিকেট কেটে জনগণের ট্যাক্সের টাকায় চলা হাসপাতাল থেকে অবস্থাভেদে ৫০০ থেকে লক্ষ টাকার সেবা নিয়েছেন।

সুস্থ হওয়ার পর কি একবারও মনে হয়েছে- আপনার হাসপাতালে থাকা, খাওয়া, চিকিৎসার খরচ জনগণের টাকায় হয়েছে। সুস্থ হওয়ার পর সেবাগ্রহনকারি এই হাজার হাজার মানুষগুলো কি তাদের ঋণের কথা একবারও মনে করেছে ?  তা শোধ করার জন্য চেষ্টা করেছে?

আমি আমার কর্তব্য পালন করার চেষ্টা করছি, আপনিও চেষ্টা করুন।

 

সিন্ডিকেট মিটিংয়ে প্রস্তাব গৃহীত

ভাতা পাবেন ডিপ্লোমা-এমফিল কোর্সের চিকিৎসকরা

প্রস্তুতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

অক্টোবর-নভেম্বরে ২য় ধাপে করোনা সংক্রমণের শঙ্কা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত