২৬ ডিসেম্বর, ২০১৬ ০১:৩৭ পিএম
কর্মশালায় বিশেষজ্ঞরা

থ্যালাসেমিয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ছে

থ্যালাসেমিয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ছে

প্রতিবছর হাজার হাজার শিশু থ্যালাসেমিয়া নিয়ে জন্মগ্রহণ করে এবং তাদের অধিকাংশ প্রয়োজনীয় চিকিৎসার অভাবে মারা যায়। কিন্তু বিয়ের আগে বর-কনের রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে বাহককে বিয়েতে নিরুৎসাহিত করে এ রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

তাই সরকারের স্বাস্থ্যবিধিতে অন্তর্ভুক্তকরণসহ ব্যাপক প্রচারণার দাবি করেন সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে বিজ্ঞজনেরা। তারা বলেন, ব্যয়বহুল এইরোগের  চিকিৎসা গ্রহণের সমর্থ নেই ৯৫ শতাংশ বাবা-মায়ের। তাই এই রোগ প্রতিরোধে ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানান তারা।

বাংলাদেশ থ্যালাসেমিয়া হাসপাতাল ও নারায়ণ হেলথসিটি হাসপাতাল বেঙ্গালোর ভারত এর আয়োজনে রবিবার সিরডাপ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত থ্যালাসেমিয়া রোগের চিকিৎসা, প্রতিকার, প্রতিরোধ বিষয়ক কর্মশালায় বিশেষজ্ঞরা এই আহ্বান জানান। 

বক্তারা বলেন, প্রতিবছর ১২ থেকে ১৫ হাজার শিশু এই রোগ নিয়ে জন্ম গ্রহণ করে এবং তাদের অধিকাংশ প্রয়োজনীয় চিকিত্সার অভাবে মারা যায়। অথচ একটু সচেতনতা অবলম্বন করে বিয়ের আগে বর-কনের রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে বাহককে বিয়েতে নিরুত্সাহিত করে রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব। অনেক দেশ তা প্রমাণ করে দেখিয়েছে।

আমাদের সমাজে এখনো এই বিষয়ে ব্যাপক সচেতনতা গড়ে ওঠেনি উল্লেখ করে বক্তারা সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবান ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহবান করেন।

মূল প্রবন্ধে এই রোগের স্থায়ী চিকিৎসার বিষয়ে বোনম্যারো প্রতিস্থাপনের বিষয় উল্লেখ করা হয়। ডা সুনিল ভাট বলেন, ভাইবোনদের মধ্যে রক্ত প্রদান করা হলে তা ভালো। তারপরও রক্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে ক্রসচেকসহ সকল পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে নেওয়ার কথা জানান তিনি।

তিনি আরো জানান, নারায়ণ হেলথ সিটি হাসপাতালের পক্ষ থেকে বিনা মূল্যে বোনম্যারো প্রতিস্থাপনসহ থ্যালাসেমিয়া চিকিৎসার জন্য বছরে দুইবার বিশেষজ্ঞ চিকিৎসাক বাংলাদেশে আসেন।

এতে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ থ্যালাসেমিয়া সমিতি ও হাসপাতালের সভাপতি ওমর গোলাম রব্বানী। প্রধান অতিথি ছিলেন অবসট্রেটিক এবং গাইনোক্লোজিকাল সোসাইটি অব বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. সামিনা চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন আনোয়ার খান মডার্ন মেডিক্যাল কলেজের শিশু রোগ বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা.খায়রুল আমিন, মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নারায়ণ হেলথসিটি হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট এবং বিভাগীয় প্রধান পেডিয়াট্রিক অনকোলজি এবং বোনম্যারো বিশেষজ্ঞ ডা সুনিল ভাট। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন থ্যালাসেমিয়া সমিতি ও হাসপাতালের সিইও এবং কনসালটেন্ট ডা. একরামুল হোসেন স্বপন।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি