২৯ নভেম্বর, ২০২২ ০৬:৪২ পিএম

‘করোনায় আক্রান্ত হলেও পালিয়ে যাননি চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীরা’

‘করোনায় আক্রান্ত হলেও পালিয়ে যাননি  চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীরা’
স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘স্বাধীনতা যুদ্ধে শরীক হওয়ার সুযোগ পাইনি। কিন্তু করোনায় লড়াইয়ের সুযোগ হয়েছে। এ যুদ্ধে চিকিৎসকসহ সকল শ্রেণীর মানুষ যুক্ত হয়েছেন। ছবি: আবু নাঈম মনির

মেডিভয়েস রিপোর্ট: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেও চিকিৎসকসহ কোনো স্বাস্থ্যকর্মী যুদ্ধ ছেড়ে পালিয়ে যাননি বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। আজ মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) হোটেল রেডিসন ব্লুতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, ‘স্বাধীনতা যুদ্ধে শরীক হওয়ার সুযোগ পাইনি। কিন্তু করোনায় লড়াইয়ের সুযোগ হয়েছে। এ যুদ্ধে চিকিৎসকসহ সকল শ্রেণীর মানুষ যুক্ত হয়েছেন। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সাফল্য এসেছে।’

তিনি বলেন, ‘করোনা মহামারীর সময় সব বন্ধ থাকলেও স্বাস্থ্য সেবাসহ সকল কিছু চালু ছিল। আমাদের শিক্ষা-প্রশিক্ষণসহ সবই চলমান ছিল। চিকিৎসক তৈরির ধারা অব্যাহত রাখতে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষাও আয়োজন করা হয়েছে।’

করোনার সময় নানা প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, আশপাশে করোনা ছড়িয়ে পড়ার কথা বলে অনেকে হাসপাতাল করতে বাধা দিয়েছেন।

দেশের স্বাস্থ্য খাতে নানা সাফল্যের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, হাসাপাতালগুলোতে শয্যা সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। সকল বিশেষায়িত হাসপাতালে চমৎকারভাবে সেবা নিশ্চিত হচ্ছে এবং সকল হাসপাতালে পরিকল্পিত বর্জ্য ব্যবস্থাপনা চালু হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশের স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানে ১৫ হাজার চিকিৎসক ও ২৫ হাজার নার্সসহ ব্যাপক সংখ্যক স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ করোনা মোকাবিলায় জয় লাভ করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যেসব দেশ করোনা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়েছে, তারা অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়েছে। এ ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জন করায় বাংলাদেশে অর্থনীতিসহ সকল কিছু গতিশীল আছে। 

হাসপাতালের অবকাঠামোর কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন সাধিত হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এখন স্বাস্থ্য সেবা ও স্বাস্থ্য শিক্ষার মানোন্নয়নে মনোযোগী সরকার।

দেশের সকল স্তরের হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, তারা আক্রান্ত হলেও পিছপা হননি।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক স্বাস্থ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ও কমিউনিটি ক্লিনিক হেলথ সাপোর্ট ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতি অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সাইফুল হাসান বাদল, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব ড. মো. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ কে এম আমিরুল মোরশেদ, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের বিভিন্ন স্তরের চিকিৎসক ও কর্মকর্তাবৃন্দসহ উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্য সেবা অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবীরের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. টিটো মিঞা, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) নবনির্বাচিত সভাপতি অধ্যাপক ডা. জামাল উদ্দিন চৌধুরী ও মহাসচিব অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান মিলনসহ পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি