২৫ নভেম্বর, ২০২২ ০৬:২১ পিএম

স্বাচিপ সভাপতি ডা. জামাল, মহাসচিব ডা. কামরুল

স্বাচিপ সভাপতি ডা. জামাল, মহাসচিব ডা. কামরুল
ডা. জামালউদ্দিন চৌধুরী ও অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান মিলন। (বাম দিক থেকে)

মেডিভয়েস রিপোর্ট: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সহযোগী ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের চিকিৎসকদের সংগঠন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

স্বাচিপের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি অধ্যাপক ডা. জামাল উদ্দিন চৌধুরীকে সভাপতি ও অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান মিলনকে মহাসচিব করা হয়।

অধ্যাপক ডা. জামাল উদ্দিন চৌধুরী বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল প্র্যাকটিশনার্স অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব এবং বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) কেন্দ্রীয় সদস্য। আর অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান মিলন জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে কর্মরত আছেন।

সংগঠনটির সদ্য বিদায়ী কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান আজ শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় মেডিভয়েসকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ প্রসঙ্গে ঢাকা ডেন্টাল কলেজের অধ্যক্ষ ও বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির মহাসচিব অধ্যাপক ডা. হুমায়ুন কবীর বুলবুল রাতে মেডিভয়েসকে বলেন, ‘মাননীয় নেত্রী স্বাচিপের নতুন নেতৃত্ব নির্ধারণ করে দিয়েছেন। অধ্যাপক ডা. জামাল উদ্দিন চৌধুরীকে সভাপতি এবং অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান মিলনকে মহাসচিব করা হয়েছে। নতুন সভাপতি, মহাসচিব শিগগিরই পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করবেন।’

সংগঠনে নতুন দায়িত্বশীলদের অবদানের কথা তুলে ধরে স্বাচিপের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে প্রত্যেক কেন্দ্রীয় কমিটির এ সদস্য বলেন, ‘যাদের সভাপতি, মহাসচিব করা হয়েছে তারা সংগঠনের দুঃসময়ের নিবেদিত প্রাণকর্মী। তাদের জন্য শুভকামনা রইলো। আমি মনে করি, নেত্রী তাঁদের ওপর যে দায়িত্ব তুলে দিয়েছেন, তারা সেটা যথাযথভাবে পালন করবেন।’

সম্মেলনের সফলতার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) ৫ম সম্মেলন সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। সম্মেলনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কোভিডকালীন সময়ে চিকিৎসকদের ভূমিকার ভূয়সী প্রসংশা করেছেন। কোভিড মোকাবেলায় সরকারের সকল কার্যক্রম এবং বিগত ১৪ বছরে স্বাস্থখাতে সরকারের সকল অর্জন তুলে ধরেছেন। তিনি আগামী নির্বাচন এবং আন্দোলন সংগ্রামে চিকিৎসকদের ভূমিকা নিয়ে দিক নির্দেশনা দিয়েছেন।’

এর আগে বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাচিপের ৫ম সম্মেলনে সভাপতি ও মহাসচিবের নাম ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সূত্রে জানা গেছে, সম্মেলনে সারাদেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠান থেকে চিকিৎসক, শিক্ষকসহ অনেক স্বাস্থ্যকর্মী যোগ দিয়েছেন। সব মিলিয়ে উপস্থিত ছিলেন অন্তত ৩০ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী।

প্রতি পাঁচ বছর পর পর সংগঠনটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। তবে নানা কারণে প্রায় ৭ বছর পর এবার স্বাচিপের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। দীর্ঘ দিন পর সম্মেলন হওয়ায় নেতা-কর্মীদের মধ্যে বেশ উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা গেছে এবং প্রত্যেকেই সংগঠনকে আগামী দিনে গুছিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে নতুনভাবে প্রত্যয়দীপ্ত হয়েছেন।

জানা গেছে, এর আগে ২০১৫ সালের ১৩ নভেম্বর স্বাচিপের সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। আজকের সম্মেলনে ভার্চুয়ালি স্বাচিপের কেন্দ্রীয় অফিস উদ্বোধন করেছেন শেখ হাসিনা। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : স্বাচিপ
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি