২০ ডিসেম্বর, ২০১৬ ১০:৪০ এএম

চিকিৎসকরা সৃজনশীল লেখালেখির মাধ্যমেও সচেতনতা তৈরি করছেন: অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান

চিকিৎসকরা সৃজনশীল লেখালেখির মাধ্যমেও সচেতনতা তৈরি করছেন: অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান বলেছেন, চিকিৎসকরা কেবল রোগীই দেখেন না, তাঁরা সৃজনশীল লেখালেখির মাধ্যমেও মানুষের মাঝে সচেতনতা তৈরি করে যাচ্ছেন। যা থেকে মানুষ অনেক উপকার পাচ্ছেন। দিনে দিনে এটাও চিকিৎসকদের আরেকটি বড় সেবামূলক চর্চা হয়ে উঠছে। সোমবার সকালে ‘গ্যালারি এইচ’-এর উদ্যোগে ‘দি ক্রিয়েটিভ প্রেসক্রিপশন’ নামের বিশেষ এক প্রদর্শনীর উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মোঃ শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. এ এস এম জাকারিয়া স্বপন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আলী আসগর মোড়ল, ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ডা. এস এম মোস্তফা জামান, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সাবান মাহমুদ, বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি তৌফিক মারুফ।

এছাড়া শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন প্রদর্শনীতে থাকা লেখক-চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের গাইনী বিভাগের সহযোগি অধ্যাপক ডা. ফওজিয়া হোসেন।

এসময় লেখালেখির সঙ্গে যুক্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক, সহকারী অধ্যাপকসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের লেখক-চিকিৎসকরা উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহায়তায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের লবিতে এ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে অন্য বক্তারা বলেন, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা কেবল রোগীর চিকিৎসাই দেন না, তাঁদের অনেকেই বিভিন্ন রোগ ব্যাধি সম্পর্কে মানুষের মধ্যে তৈরি করেন সচেতনতা।

রোগীর হাতে প্রেসক্রিপশনের বাইরেও দেশের অনেক গুনি চিকিৎসক নিয়মিত লেখালেখি করেন বিভিন্ন মাধ্যমে।

যা থেকে মানুষ ঘরে বসেই প্রাথমিক ধারণা নিতে পারেন নিজের বা আপনজনদের রোগের উপসর্গ সম্পর্কে।

আবার কোন উপসর্গের জন্য কোনো বিষয়ের চিকিৎসককের কাছে যেতে হবে সেটাই জানতে পারেন।

একই সঙ্গে নানা রোগ থেকে মুক্তি বা সুরক্ষার উপায়, ভাল থাকার পদ্ধতি সম্পর্কেও জ্ঞান অর্জন হয় মানুষের।

আর চিকিৎসকদের এমন প্রয়াস তাঁদের পেশাগত সেবাব্রতের পাশাপাশি অন্যরকম এক সৃজনশীলতারও প্রকাশ ঘটে থাকে।

নতুন প্রজেন্মের চিকিৎসকদের মাঝে এই সৃজনশীলতাকে ছড়িয়ে দেয়ার উপর গুরুত্বারোপ করেন বক্তারা।

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত