ঢাকা      রবিবার ১৮, অগাস্ট ২০১৯ - ৩, ভাদ্র, ১৪২৬ - হিজরী



ডা. বিনেন্দু ভৌমিক

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা। 


মায়েদের বলছি

আমরা এখন বলি কি, ডেলিভারীটা আপনি আর বাড়িতে করাবেন না। নরমাল ডেলিভারির জন্যই হাসপাতালে আসবেন।

কারণ হাসপাতালের প্রশিক্ষিত স্বাস্থ্যকর্মীর একটি সামান্য সেবাই আপনার ও আপনার বাচ্চার জন্য হয়ে উঠতে পারে- মহোপকার।

বুঝিয়ে বলছি।

 

বাচ্চা যখন মাতৃগর্ভে থাকে তখন সে থাকে 'AMNIOTIC FLUID' বা পানিতে নিমজ্জিত।

সেই পানিতে বাদামী-সাদা বর্ণের একধরণের পদার্থ থাকে যার নাম 'ভার্নিক্স'।

এটি নবজাতকের শরীরেও লেগে থাকে যখন সে ভূমিষ্ঠ হয়।

 

আগে আমরা ডেলিভারীর পরপর লিকুইড প্যারাফিন দিয়ে এগুলো মুছে বাচ্চাকে তকতকে পরিষ্কার করতাম।

পরে একটা নতুন টাওয়েল দিয়ে মুড়িয়ে মাসী বা খালার কাছে দিতাম পরিচ্ছন্ন একটা ইমেজের জন্য।

এখন কিন্তু বলা হয়, এগুলো না মোছার জন্য। কারণ এটি বাচ্চার জন্য পরম এন্টিবায়োটিক হিসেবে কাজ করে।

যতদিন এটি বাচ্চার শরীরে লেগে থাকবে ততদিনই এগুলো জীবাণুনাশক হিসেবে কাজ করবে।

 

তো, এই ভার্নিক্স শরীরে লেগে থাকলে ভালো।

কিন্তু এই ভার্নিক্সের একটি-দুটি দানা যদি নাসিকার ছিদ্রপথে বা মুখগহ্বরে থেকে যায় বা ঢুকে যায়, তখন তা মারাত্মক ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

বাচ্চা শ্বাস কষ্টে ভুগতে পারে যা হয়ত আপনি খেয়ালই করেন নি।

 

হাসপাতালে 'পেঙ্গুইন সাকার' নামে একধরণের ড্রপার আছে যা দিয়ে তা সহজেই টেনে আনা যায়, আপনি ড্রপার দিয়ে যেমন সিরাপ তুলে বাচ্চাকে খাওয়ান।

মেকানিজম একই। সাকার'টি পেঙ্গুইন পাখির আদলে তৈরী বলে এমন নামকরণ করা হয়েছে।

এরজন্য কোনো বিদ্যুৎ লাগেনা, ব্যাটারি লাগেনা, খরচও লাগে না।

 

আর এই একটি ছোট্ট উপকারই আপনার বাচ্চার জন্য হয়ে উঠতে পারে জীবনদায়ী একটি উপকার।

এই একটিমাত্র কারণে হলেও আপনার ডেলিভারীটা হাসপাতালে হওয়াটা কি আপনি বাঞ্ছনীয় মনে করেন না?

 

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ঈদে ভোজন-পূর্ব যে বিষয়গুলোতে দৃষ্টি রাখবেন

ঈদে ভোজন-পূর্ব যে বিষয়গুলোতে দৃষ্টি রাখবেন

শুরুতেই ঈদ মোবারক। কোরবানী ঈদের সবচেয়ে আনন্দদায়ক, আকর্ষনীয় শেষ পর্ব- মাংস কাটা,…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর