০৩ জুলাই, ২০২২ ০৯:৪৬ এএম

দেশে সূঁচবিহীন টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদন

দেশে সূঁচবিহীন টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদন
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবির জানান, ট্রায়াল শুরু হলে এই টিকা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার তালিকায় থাকবে বাংলাদেশ।

মেডিভয়েস রিপোর্ট: দেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী সূঁচবিহীন একটি টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল (বিএমআরসি)। শনিবার (২ জুলাই) বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই টিকা আবিষ্কার করেছেন সুইডেনের বিজ্ঞানীরা। পাউডারের মতো নাক দিয়ে নেওয়ার সেই টিকা সুইডেনে ইতোমধ্যে প্রাণীদেহে পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে; সেখানে শতভাগ সফলতা পাওয়া গেছে। এখন বিজ্ঞানীরা মানব শরীরে ট্রায়াল শুরু করবেন। প্রবাসী কয়েকজন বাংলাদেশি চিকিৎসকের উদ্যোগে মানব ট্রায়ালের প্রথম পর্যায়ের জন্য বাংলাদেশকে বেছে নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

সুইডেনের ইম্যিউন সিস্টেম রেগুলেশন হোল্ডিং এবি বা আইএসআর মানব ট্রায়ালের জন্য কন্ট্রাক্ট রিসার্চ অর্গানাইজেশন (সিআরও) হিসেবে বাংলাদেশে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালস লিমিটেডের সঙ্গে সমঝোতা চুক্তি করেছে।

এর সিআরও হিসেবে কাজ করা ইমেরিটাস  অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ জানিয়েছেন, প্রথম দফায় দুই শত স্বেচ্ছাসেবীর ওপর পরীক্ষা চালানো হবে। সেখানে নিরাপদ প্রমাণিত হলে দ্বিতীয় দফায় আরও বেশি মানুষের ওপর পরীক্ষা চালানো হবে। সেখানে সফলতা পাওয়া গেলে তৃতীয় পর্যায়ে কয়েক হাজার মানুষের ওপর পরীক্ষা করা হবে। বাংলাদেশে ফেজ-ওয়ান ট্রায়ালে ১৮০ জন স্বেচ্ছাসেবীর ওপর পরীক্ষা করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে, যারা সবাই স্বাস্থ্যকর্মী। তিনি জানান, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এই পরীক্ষা হতে পারে।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবির জানান, ট্রায়াল হলে এই টিকা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার তালিকায় থাকবে বাংলাদেশ। সেটা উৎপাদনের অনুমতিও মিলবে। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : বিএমআরসি
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি