০৪ ডিসেম্বর, ২০১৬ ০৯:৪৭ এএম

অস্থিসন্ধির রোগনির্ণয়েও আলট্রাসনোগ্রাফির ব্যবহার বাড়ছে

অস্থিসন্ধির রোগনির্ণয়েও আলট্রাসনোগ্রাফির ব্যবহার বাড়ছে

আলট্রাসনোগ্রাফি এত কাল ব্যবহার করা হতো পেটের নানা রোগনির্ণয় ও গর্ভস্থ শিশুর পরিস্থিতি জানার জন্য। এখন বাংলাদেশে অস্থিসন্ধি রোগ, বিশেষ করে বাতজনিত রোগ নির্ণয়েও এই প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ছে।

 

গতকাল শনিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) অস্থিরোগ চিকিৎসায় আলট্রাসাউন্ড ব্যবহার নিয়ে এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের রিউম্যাটোলজি বিভাগ ও বাংলাদেশ রিউম্যাটোলজি সোসাইটি এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। 

 

মূল উপস্থাপনায় বিএসএমএমইউর রিউম্যাটোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মিনহাজ রহিম চৌধুরী বলেন, অধিকাংশ বাতজনিত রোগ এখন আলট্রাসনোগ্রাফির মাধ্যমে নির্ণয় করা সম্ভব হচ্ছে। বাত, গেঁটেবাত, ট্যান্ডোনাইটিস (ট্যান্ডোন প্রদাহ), বারসাইটিস (হাড় ও ট্যান্ডোনের মধ্যকার পানির থলিতে প্রদাহ) নির্ণয়ে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে।

 

তিনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁর বিভাগে প্রায় দুই বছর আগে থেকে আলট্রাসনোগ্রাফির মাধ্যমে রোগ নির্ণয় করা হচ্ছে। এই প্রযুক্তির ব্যবহারও বাড়ছে। এ নিয়ে বিশেষ কোর্স বিশ্ববিদ্যালয়ে চালু হয়েছে। অনুষ্ঠানে আলট্রাসনো বিশেষজ্ঞ এ কে এম জহির আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

 

অনুষ্ঠানের পর তিনি বলেন, আলট্রাসনোগ্রাফিতে রোগনির্ণয়ে শব্দতরঙ্গ ব্যবহার করা হয়। যন্ত্রের মাধ্যমে পাঠানো শব্দ প্রতিধ্বনি হয়ে ফিরে আসে, যা প্রতিচ্ছবি হিসেবে কম্পিউটারের পর্দায় ভেসে ওঠে। সনাতন আলট্রাসনোগ্রাফিতে কম্পাঙ্ক (ফ্রিকোয়েন্সি) কম। আর বাত নির্ণয়ের যন্ত্রগুলোর কম্পাঙ্ক বেশি, যন্ত্রের দামও বেশি।

 

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, দেশের পূর্ণবয়স্কদের ২৫ শতাংশের বেশি কোনো না কোনো বাতরোগে আক্রান্ত। তাঁদের মধ্যে পাঁচ লাখের বেশি মানুষ জটিল বাতরোগে আক্রান্ত। এই প্রযুক্তি বাতরোগ ছাড়াও অর্থোপেডিকস, ফিজিক্যাল মেডিসিন, স্পোর্টস মেডিসিনসহ বিভিন্ন শাখায় ব্যবহৃত হচ্ছে।

 

বিশিষ্ট বাতরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক সৈয়দ আতিকুল হক প্রথম আলোকে বলেন, ‘কিছু কিছু ক্ষেত্রে বাত নির্ণয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগতাম। নতুন এই প্রযুক্তি অনিশ্চয়তা দূর করতে সহায়তা করছে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, ঊরু অস্থি সন্ধিস্থলের বাত নির্ণয় খুব কঠিন ছিল। এই যন্ত্র তা সহজ করেছে।’

 

গতকালের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ রিউম্যাটোলজি সোসাইটির প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক এম এ জলিল চোধুরী। অনুষ্ঠানে বিএসএমএমইউর উপাচার্য অধ্যাপক কামরুল হাসান খানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের পদস্থ কর্মকর্তা ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা উপস্থিত ছিলেন।

 

সৌজন্যে: প্রথম আলো।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত