০২ মার্চ, ২০২২ ১১:৩২ এএম

শ্রবণ প্রতিবন্ধিতা কমাতে জরুরি সচেতনতা: বিএসএমএমইউ ভিসি

শ্রবণ প্রতিবন্ধিতা কমাতে জরুরি সচেতনতা: বিএসএমএমইউ ভিসি
বিএসএমএমইউ ভিসি বলেন, শব্দের মাত্রা ৬০ ডেসিবেল সাউন্ড পর্যন্ত আমাদের জন্য সহনীয়।

মেডিভয়েস রিপোর্ট: শ্রবণ প্রতিবন্ধিতা কমাতে সচেতনতা বাড়ানো জরুরি বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।

বিশ্ব শ্রবণ দিবস-২০২২ উপলক্ষে আজ বুধবার (২ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সি’ ব্লকে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

শ্রবণে সমস্যার জন্য অনেক সময় সংসার ভেঙে যায় উল্লেখ করে বিএসএমএমইউ ভিসি বলেন, সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য দিবসটি পালিত হচ্ছে। শব্দের মাত্রা ৬০ ডেসিবেল সাউন্ড পর্যন্ত আমাদের জন্য সহনীয়।

তিনি আরও বলেন, শিশু বয়স থেকে এ রোগ থেকে মুক্তি নিশ্চিত করা গেলে জীবনটি সুন্দর করে বাঁচতে পারবে। প্রত্যেকে তার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করলে শ্রবণ প্রতিবন্ধী কমিয়ে আনা সম্ভব।

আলোচনা সভায় বাংলাদেশে সোসাইটি অব অটোলজির সভাপতি অধ্যাপক ডা. আবুল হাসনাত জোয়ারদার বলেন, এ আলোচনা সভার মূল আবেদন হলো মানুষকে সচেতন করে তোলা। এই সচেতনতা তৈরিতে চিকিৎসকদেরই ভূমিকা পালন করতে হবে। বিশ্ব শ্রবণ দিবসের মাধ্যমে সবাইকে সচেতনত করে তুলতে হবে। শব্দদূষণ আমাদের কানকে অকেজো করে দিচ্ছে। এজন্য গুরুত্বপূর্ণ সচেতনতা। এই সচেতনতা তৈরিতে সকলকেই ভূমিকা রাখতে হবে।

বিশ্বে ১.১ বিলিয়ন শ্রবণ ঝুঁকিতে রয়েছে জানিয়ে প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর সাইফুদ্দিন আহমেদ বলেন, প্রতিটি শিশুর শ্রবণ শক্তি যেন সঠিক মাত্রায় থাকে, এ ব্যাপারে চিকিৎসকদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। 

অনুষ্ঠানে হেডফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান নাক-কান-গলা (ইএনটি) বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আজহারুল ইসলাম।

একই বিভাগের অধ্যাপক ডা. জহুরুল হক বলেন, কানে না শোনার কারণে বহু মানুষ কথা বলতে পারে না। কানের সঙ্গে গলার সম্পর্ক ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এ সময় এয়ার ডিভাইস ব্যবহারের ক্ষেত্রে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

সভায় গাড়ির শব্দ কমিয়ে আনার অনুরোধ জানান বক্তারা। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি