৩০ নভেম্বর, ২০১৬ ০২:১৯ পিএম

হাসপাতালে কাতরাচ্ছে ২৩ নারী-শিশু

হাসপাতালে কাতরাচ্ছে ২৩ নারী-শিশু

আশুলিয়ার লাইটার কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ ২৩ নারী ও শিশু আট দিন ধরে হাসপাতালে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে।

 

তাদের মধ্যে ১৮ জন এখনো ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন। এ ইউনিটের তৃতীয় তলার শেষ দিকে এক কোণায় কয়েকজনকে এক সারিতে রাখা হয়েছে। বাকিরা আছে হাইডিপেন্ডেন্সি ইউনিট (এইচডিইউ) ও ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ)।

 

গতকাল মঙ্গলবার হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেছে, দগ্ধদের মধ্যে কেউ ব্যথায় গোঙাচ্ছে, কেউ ড্রেসিংয়ের যন্ত্রণায় কাঁদছে। নিজের জীবন ও পরিবার নিয়ে অনিশ্চয়তাও দুশ্চিন্তায় ফেলেছে তাদের। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, গত সোমবার পর্যন্ত তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এখনো বেশি শঙ্কায় আছে পাঁচজন। বাকিরাও শঙ্কামুক্ত নয়।

 

বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন ডা. পার্থ শঙ্কর পাল বলেন, দগ্ধ সবার অবস্থাই আশঙ্কাজনক বলা যায়। তাদের শরীরের ২০ থেকে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত পুড়েছে। শ্বাসনালিও পুড়ে গেছে কারো কারো। চার-পাঁচজনের অবস্থা বেশি খারাপ। তবে তাদের সুস্থতায় চিকিৎসকরা আপ্রাণ চেষ্টা করছেন।

 

গত ২২ নভেম্বর আশুলিয়ার জিরাবো এলাকার ‘কালার ম্যাক্স (বিডি) লিমিটেড’ নামের একটি লাইটার কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি