২৭ ডিসেম্বর, ২০২১ ০৫:০১ পিএম

এইচআইভি সংক্রমণ রোধে জোনভিত্তিক চিকিৎসা বাড়াতে হবে: স্বাস্থ্য সচিব

এইচআইভি সংক্রমণ রোধে জোনভিত্তিক চিকিৎসা বাড়াতে হবে: স্বাস্থ্য সচিব
বিএসএমএমইউর এ ব্লকের অডিটোরিয়ামে এইচআইভি বিষয়ক এক গবেষণা প্রকাশ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। 

মেডিভেয়েস রিপোর্ট: এইচআইভি সংক্রমণ রোধে জোন ভিত্তিক চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে করতে হবে। সংক্রমণ রোধে শনাক্তকরণ ও রেড জোনগুলোতে সেবা বাড়াতে হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়া।

আজ সোমবার (২৭ ডিসেম্বর) সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) এ ব্লকের অডিটোরিয়ামে এইচআইভি বিষয়ক এক গবেষণা প্রকাশ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। 

স্বাস্থ্য সচিব বলেন, ‘এক সময় এ দেশে এইচআইভি ছিল না। বর্তমান বিশ্ব একটি গ্লোবাল ভিলেজে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশ সেই গ্লোবাল ভিলিজের অংশ। দেশের জনগন বিভিন্ন দেশে কাজ করছে এবং এদেশেও বিদেশি অনেক মানুষ চাকরি করে। ফলে বিভিন্ন ভাবে এদেশেও এইচআইভির সংক্রমণ ঘটেছে। দেশে এইচআইভি নিয়ন্ত্রণে আছে। তবে সঠিকভাবে শনাক্ত ও চিকিৎসার আওতায় না আনা গেলে তা ছড়িয়ে পড়তে সময় লাগবে না।’  

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দেশের মানুষ অনেক বেশি ধর্মপ্রাণ, পারিবারিক সম্পর্ক ভালো। আমাদের নৈতিক শিক্ষা রয়েছে। আমি আশা করি, আমাদের দেশে এই সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে থাকবে। এ লক্ষ্যে রেড জোনে চিকিৎসা সেবা বৃদ্ধি করতে হবে। এবং আক্রান্তদের শনাক্ত করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।’

গবেষণা কার্যক্রমকে স্বাগত জানিয়ে এর পরিধি আরও বাড়ানো আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্যের অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেছা বেগম বলেন, ‘আমরা যতই বলি দেশে এইচআইভি সংক্রমণ কম তবে একটা আশঙ্কাও রয়েছে যে আমরা প্রকৃত তথ্য কতটুকু তুলে আনতে পারছি। আমারা শুধুমাত্র অধিক কি-পপুলেশনকে নিয়ে গবেষণার ফল তুলে ধরছি। যারা দেশের মোট জনসংখ্যার ক্ষুদ্রতম অংশ। আমাদের আরও বিস্তারিত পর্যায়ে গবেষণা প্রয়োজন।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘গবেষণায় দেখা যাচ্ছে দেশের যৌনকর্মীদের মধ্যে কনডমের ব্যবহারসহ এইচআইভি ও যৌনরোগের বিষয়ে সচেতনা বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে হিজড়া ও অন্যান্য জনগোষ্ঠীর মধ্যে এই হার অনেক কম দেখা যাচ্ছে। এটি একটি ভালো উদ্যোগ তবে এই গবেষণায় প্রবাসীদের তথ্য উঠে আসেনি। এই বিষয়টি বিবেচনায় আনা উচিত। একইসঙ্গে মা থেকে শিশুতে ছড়ানোর বিষয়টিতে আরও নজর দিতে হবে।’

অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে প্রখ্যাত ভাইরোলজিস্ট ও বিএসএমএমইউ সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘এইচআইভি ছড়ায় তিনভাবে, শারীরিক সম্পর্ক, সিরিঞ্জের মাধ্যমে এবং মা থেকে সন্তানে। আমাদের দেশে ব্লাড দানে এবং সিরিঞ্জের মাধ্যমে ছড়াতো বেশি। ব্লাড ট্রান্সমিশনে কোনো পরীক্ষা করা হতো না। এখন সেটা করা হচ্ছে, ইঞ্জেকশনের বিষয়টি পরিষ্কার করা হয়েছে। কাঁচের সিরিঞ্জের পরিবর্তে 
নিষ্পত্তিযোগ্য সিরিঞ্জ ব্যবহার হচ্ছে। তবে সিরিঞ্জে মাদক গ্রহণে এইচআইভি সংক্রমণ এখনও সর্বাধিক। এতে এইচআইভিতে যদি ৬ ভাগে আক্রান্ত হয় তবে হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হয় ৬০ ভাগ। কারণ হেপাটাইটিস অনেক বেশি সংক্রামক।’

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : এইচআইভি
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি