০৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ১২:২৬ পিএম

মিটফোর্ড হাসপাতালে অবৈতনিক প্রশিক্ষণে আবেদনের বিজ্ঞপ্তি

মিটফোর্ড হাসপাতালে অবৈতনিক প্রশিক্ষণে আবেদনের বিজ্ঞপ্তি
বেসরকারি চিকিৎসকদের এককালীন ছয় মাসের জন্য নিয়োগ করা হবে। প্রশিক্ষণ সন্তোষজনক হলে পুনরায় ছয় মাসের জন্য নিয়োগ করা হবে।

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ঢাকার স্যার সলিমুল্যাহ মেডিকেল কলেজে মিটফোর্ড হাসপাতালে ছয় মাসের অবৈতনিক প্রশিক্ষণ আবেদনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। বুধবার (১ নভেম্বর) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজী মো. রশিদ-উন-নবী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, ‘ঢাকার মিটফোর্ড হাসপাতালে ১ জানুয়ারি ২০২২ থেকে ৩০ জুন ২০২০ তারিখ পর্যন্ত ছয় মাসের জন্য চিকিৎসা শাস্ত্রের বিভিন্ন এমবিবিএস বা বিডিএস পাসকৃত বেসরকারি চিকিৎসকদের অবৈতনিক স্নাতকোত্তর প্রশিক্ষণে মনোনয়ের জন্য বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের স্থায়ী রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের নিকট নিম্ন লিখিত শর্তসাপেক্ষে নির্ধারিত ফরমে আবেদনপত্র আহ্বান করা হলো। আবেদ ফরম আগামী ১৫ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখ অফিস চলাকালীন নিম্ন স্বাক্ষরকারীর অফিসের সংশ্লিষ্ট শাখায় জমা দিতে হবে।’

শর্তসমূহ:

১. আবেদনপত্রের সাথে এসএসসি সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি, ইন্টার্নি সমাপ্তির সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি এমবিবিএস, বিডিএস পাসের মূল সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি, বিএমডিসির মূল রেজিস্ট্রেশনপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি অন্য কোন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত থাকলে সেই প্রতিষ্ঠান প্রধানের অনুমতিপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি, পাসপোর্ট সাইজের ছবি দুই কপি এবং পাঁচশত টাকার পে-অর্ডার পরিচালক মিটফোর্ড হাসপাতাল ঢাকার অনুকূলে জমা রাখতে হবে।

২. বেসরকারি চিকিৎসকদের এককালীন ছয় মাসের জন্য নিয়োগ করা হবে। প্রশিক্ষণ সন্তোষজনক হলে পুনরায় ছয় মাসের জন্য নিয়োগ করা হবে।

৩. প্রতি ইউনিটে চারজনের বেশি প্রশিক্ষণার্থী নিয়োগ করা হবে না। কোন বিশেষ কারণে চারজনের অতিরিক্ত মনোনয়ন বিষয়টি কর্তৃপক্ষের এখতিয়ারভুক্ত থাকবে।

৪. প্রশিক্ষণ সার্বক্ষণিক হবে। প্রশিক্ষণ চলাকালে প্রশিক্ষণার্থীদের কোন রোগীর ইনজুরি সার্টিফিকেট এবং ডেথ সার্টিফিকেট ইস্যু করতে পারবে না। প্রশিক্ষণে অনুপস্থিত থাকলে প্রতি অনুপস্থিত দিনের জন্য তিন টাকা হারে জরিমানা আদায় করা হবে। প্রশিক্ষণার্থী চিকিৎসকরা সরকারি চিকিৎসকের মতই দায়িত্ব পালন করবেন। প্রশিক্ষণকালে তারা অন্য কোথাও চাকরি করতে পারবেন না। বাহিরে চাকরি করেন প্রমাণিত হলে তাকে সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে না। তাদেরকে সরকারি বাসস্থান প্রদানের ব্যবস্থা করা হবে না। নিজ দায়িত্বে বাসস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে।

৫. যেসকল প্রার্থী বর্তমানে প্রশিক্ষণরত অবস্থায় আছেন, তাদের মধ্যে কেউ যদি পরবর্তী ছয় মাসের জন্য প্রশিক্ষণ গ্রহণে আগ্রহী হন, পুনরায় সংশ্লিষ্ট বিভাগের অধ্যাপকের সুপারিশসহ আবেদনপত্রের দাখিল করিতে হবে। তবে প্রশিক্ষণ সময়কাল বছরের অধিক হবে না।

৬. প্রশিক্ষণ শেষে স্ব-স্ব বিভাগের অধ্যাপক বা সহযোগী অধ্যাপক প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ সনদপত্রের স্বাক্ষর করবে এবং অত্র হাসপাতালের পরিচালক প্রতি-স্বাক্ষর করবেন।

৭. প্রশিক্ষণার্থী চিকিৎসকরা যে ভিাগে বা ইউনিটে প্রশিক্ষণ নিতে ইচ্ছুক তাদেরকে সংশ্লিষ্ট বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বা ইউনিট প্রধানের সুপারিশসহ আবেদনপত্র নিম্ন স্বাক্ষরকারীর দপ্তরে দাখিল করতে হবে। সংশ্লিষ্ট বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বা ইউনিট প্রধানের সুপারিশ ব্যতিরিকে কোন আবেদনপত্র গ্রহণ করা হবে না। আবেদনকারী চিকিৎসকরা এক বিষয় ছাড়া একাধিক বিষয়ে আবেদন করতে পারবেন না।

৮. প্রশিক্ষণ মনোনয়নের জন্য আগামী ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখ বেলা ১১টার মধ্যে অত্র হাসপাতালের পরিচালকের অফিস কক্ষে এক সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে। আবেদনকারী চিকিৎসকরা উক্ত সাক্ষাৎকারের সময় উপস্থিত থাকতে হবে এবং ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখ নোটিস বোর্ডের মাধ্যমে ফলাফল ঘোষণার নিযুক্তিপত্র অত্র অফিস থেকে দেওয়া হবে। সাক্ষাৎকারের জন্য আলাদা কোনো সাক্ষাৎকার পত্র ইস্যু করা বা যাতায়াত খরচ দেওয়া হবে না।

►বিজ্ঞপ্তিটি দেখতে ক্লিক করুন

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি