৩০ অক্টোবর, ২০২১ ০৪:৫৪ পিএম

নিন্সে গরিব রোগীদের বিনামূল্যে থ্রোম্বলাইসিস

নিন্সে গরিব রোগীদের বিনামূল্যে থ্রোম্বলাইসিস
স্ট্রোকের চিকিৎসা যত দ্রুত করা সম্ভব তত ফলাফল ভালো হয়। ছবি: মেডিভয়েস

স্ট্রোক একটি ঘাতক ব্যাধি। প্রতি বছর প্রায় দেড় কোটি মানুষ এ রোগের আক্রান্ত হন। এর মধ্যে মারা যান অর্ধ কোটি মানুষ আর অর্ধ কোটি পঙ্গুত্ববরণ করেন। বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর দ্বিতীয় কারণ এটি। মারা যাওয়াদের দুই-তৃতীয়াংশ আমাদের মতো দেশে ঘটে। দিন দিন স্ট্রোক আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গবেষণায় দেখা গেছে ২০৫০ সালের মধ্যে এ হার প্রায় ৮০ গুণ বেড়ে যাবে। বাংলাদেশেও এ হার কিন্তু কম নয়। গবেষণায় দেখা গেছে, দেশে প্রতি ১ হাজার জনে প্রায় ১২ জন স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। ঘাতক এ ব্যাধি থেকে বেঁচে থাকতে সচেতনতার বিকল্প নেই।

স্ট্রোক নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য দেশে নিউরোলজির চিকিৎসায় নেতৃত্বদানকারী ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেসে (নিন্স) আজ শনিবার (৩০ অক্টোবর) সকালে বিশ্ব স্ট্রোক দিবস পালিত হয়েছে।

সোসাইটি অব নিউরোলজিস্ট অব বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ সোসাইটি অব স্ট্রোক ও নিউরোইন্টারভেনশনের উদ্যোগে সকাল ৮টায় র‍্যালির মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। র‍্যালিতে চিকিৎসকদের পাশাপাশি নিন্সে চিকিৎসাধীন রোগীদের আত্মীয়- স্বজন যোগদান করেন। 

সকাল ১১টায় আয়োজন করা হয় সেমিনার। সেমিনারে চেয়ারপার্সন হিসেবে ছিলেন প্রখ্যাত নিউরোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. কাজী দীন মোহাম্মদ। প্রধান অতিথি ছিলেন অধ্যাপক ডা. ফিরোজ আহম্মেদ কোরাইশি। বিশেষ অতিথি মো. বদরুল আলম ও আবু নাসার রিজভী।

প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন ডা. খাইরুল কবির পাটোয়ারি, ডা. শিরাজী শফিকুল ইসলাম ও ডা. এটিএম হাছিবুল হাসান।

প্রবন্ধ উপস্থাপনায় বক্তারা বলেন, স্ট্রোকের চিকিৎসা যত দ্রুত করা সম্ভব তত ফলাফল ভালো হয়। স্ট্রোকের চিকিৎসায় দেরি করলে উন্নতি হওয়ার সম্ভবনা কমে যায়। তাই দেরি না করে দ্রুত হাসপাতালে নিতে হবে। যদি মুখ বেঁকে যায়, এক হাত অবশ হয়ে যায়, কথা জড়িয়ে যায় তাহলে দেরি না করে দ্রুত হাসপাতালে নিতে হবে। সাড়ে চার ঘণ্টার মধ্যে নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নিলে অত্যাধুনিক আইভি থ্রোম্বলাইসিস করা সম্ভব। স্ট্রোক প্রতিরোধে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা, ধূমপান না করা ও নিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন করা জরুরি। 

বাংলাদেশ সোসাইটি অব স্ট্রোক ও নিউরোইন্টারভেনশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক কাজী মহিবুর রহমান বলেন, আমাদের দেশে স্ট্রোক রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। স্ট্রোকের আধুনিক সব চিকিৎসা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স (নিন্স) হাসপাতালে হচ্ছে। স্ট্রোকের অত্যাধুনিক চিকিৎসা যেটাকে মেকানিক্যাল থোম্বেক্টমি বলে আগামী বছর থেকে দেশে প্রথমবারের মতো নিন্সেই শুরু হবে বলে আশা করছি। নিনন্সেই নিয়মিতভাবে স্ট্রোকের আধুনিক চিকিৎসা আইভি থ্রোম্বলাইসিস, রক্তনালীর ফোস্কা বা এনিউরিজম, এভিএম বা অস্বাভাবিক রক্তনালীর চিকিৎসা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সোসাইটি অব স্ট্রোক ও নিউরোইন্টারভেনশনের সভাপতি অধ্যাপক শরীফ উদ্দিন খান বলেন, বাংলাদেশে সরকারিভাবে একমাত্র নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নিয়মিতভাবে আইভি থ্রোম্বলাইসিস করা হচ্ছে। শুধু তাই নয় এ হাসপাতালের ইন্টারভেনশনাল নিউরোলজি বিভাগ স্ট্রোকের অত্যাধুনিক চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছে।

সোসাইটি অব নিউরোলজিস্ট অব বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ফিরোজ আহম্মেদ কোরাইশি স্ট্রোকের আধুনিক চিকিৎসা আইভি থ্রোম্বলাইসিস জেলা পর্যায়ে ছড়িয়ে দিতে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানান। 

নিউরোসায়েন্সস হাসপাতালের যুগ্ম-পরিচালক অধ্যাপক বদরুল আলম মন্ডল বলেন, নিউরোসায়েন্স হাসপাতাল স্ট্রোক চিকিৎসায় দিকপালের কাজ করছে। স্ট্রোকের অত্যাধুনিক চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছে এটি। এ পর্যন্ত একশোর বেশি আইভি থ্রোম্বলাইসিস করেছে। রোগীরাও সুস্থ আছে। শুধু তাই নয়, গরিব রোগীদের এ অত্যাধুনিক চিকিৎসা ফ্রি করছে নিন্স। উপজেলার চিকিৎসক ও নার্সদের স্ট্রোকের চিকিৎসার প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। তরুণদের মধ্যে স্ট্রোকের হার বাড়ছে। এটা প্রতিরোধ করার এখনই চেষ্টা করতে হবে।

অনুষ্ঠান আরও উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ডা. মালিহা হাকিম, অধ্যাপক ডা. জাহেদ হোসেন, অধ্যাপক ডা. খুরশীদ মাহমুদ, অধ্যাপক ডা. রাজিব নারায়ন চৌধুরী, অধ্যাপক ডা. জহিরুল হক চৌধুরী, ডা. সুভাষ কান্তি দে।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : স্ট্রোক
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি