১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৯:২৮ পিএম

‘ভুল চিকিৎসায়’ রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ, যা বললেন চিকিৎসক

‘ভুল চিকিৎসায়’ রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ, যা বললেন চিকিৎসক
রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

মেডিভয়েস রিপোর্ট: সিলেটের জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক নারীর মৃত্যুর ঘটনায় চিকিৎসার কোনো গাফলতি ও ভুল ছিল না বলে দাবি করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. তারেক আজাদ সাংবাদিকদের জানান, ফুলজান বিবি নামক ওই রোগীকে কোনো ভুল চিকিৎসা প্রদান করা হয়নি। তাঁর মৃত্যু ও চিকিৎসা নিয়ে স্বজনদের সঙ্গে ভুল বুঝাবোঝি হয়েছে।

হাসপাতাল পরিচালক বলেন, ‘৭৩ বছর বয়সী ফুলজান বিবি পেটে টিউমারের সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। সিটি স্ক্যান রিপোর্টে দেখা যায়, নারী অঙ্গে টিউমার রয়েছে এবং সেটি জটিল অবস্থায় রয়েছে। একই সঙ্গে কিডনি ও এর নলেও বেশ কিছু সমস্যা ছিল। মহিলা বিষয়ক রোগ হওয়ায় তাঁকে গাইনি বিভাগে ভর্তি করা হয়। তাঁর সকল রিপোর্ট দেখে ১৩ সেপ্টেম্বর তাঁর পেটে অস্ত্রোপচার করা হয়। পেট খোলার পর দেখা যায়, তাঁর জরায়ুতে নয়, বরং নাড়িতে টিউমার রয়েছে। এ থেকেই তাঁর কিডনির সমস্যা হয়েছে। তখন নিয়ম অনুযায়ী সার্জারির চিকিৎসককে ডাকা হয়। তাঁরা রোগীর অস্ত্রোপচার করেন এবং টিউমার কেটে বাদ দেওয়া হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘রোগী অস্ত্রোপচারের পর অ্যানেস্থেশিয়া পরিস্থিতি থেকে বের হয়ে আসতে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছিল, যা বয়স্ক ও অনেক রোগীর ক্ষেত্রে খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। তবে রোগী স্বাভাবিক অবস্থায় আসতে বেশি দেরি হওয়ার ফলে শ্বাসকষ্ট দেখা দেয় এবং প্রেসার উঠছিল না। তখন তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) স্থানান্তর করা হয়। দুইদিন চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তার আত্মীয়-স্বজনরা রোগীকে দেখাশোনা করেছেন এবং ওষুধ দিয়েছেন। তবে রোগীর অবস্থার উন্নতি হয়নি। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।’

‘গতকাল দুপুর আড়াইটাই রোগীর মৃত্যুর পর তাঁর স্বজনরা ভারাক্রান্ত ও ক্ষুব্ধ হয়ে হাসপতাল ও আইসিইউতে হামলা ও ভাঙচুর করেন। এতে আইসিইউতে ভর্তি রোগীরাও আহত হন’, যোগ করেন অধ্যাপক তারেক আজাদ।

আইসিইউতে ভর্তি অবস্থায় রোগীর স্বজনরা রোগীর সঙ্গে দেখা করতে পরেননি এমন অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, ‘সকল হাসপাতালের মতো এখানেও আমরা আইসিইউতে রোগীর স্বজনদের থাকার অনুমতি দেই না। আইসিইউতে ভর্তি রোগীর সকল দায়িত্ব থাকে আমাদের স্টাফদের। তবে রোগীর স্বজনরা প্রতিদিন রোগীকে দেখতে পারেন এবং রোগীর অবস্থানের বিষয়ে স্বজনদের জানানো হয়। ওই রোগীকে গত ১৩ সেপ্টেম্বর আইসিইউতে ভর্তির পর ১৬ সেপ্টম্বর মারা যান। এর মধ্যে উনারা রোগীর কাছে যেতে পারেননি, এমন অভিযোগ হাসপাতালের সাধারণ নিয়মের সঙ্গে যায় না।’

এ বিষয়ে রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপাধ্যক্ষ ও সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. একেএম দাউদ বলেন, ‘রোগীর মৃত্যুর ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। সারাবিশ্বেই প্রথম রোগীর রোগের ইতিহাস জানা হয়, তারপর চিকিৎসা শুরু করা হয়। অস্ত্রোপচার রোগীর পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্ট দেখেই করা হয়। আমরাও সেই একই নিয়ম অনুসরণ করি। এই রোগীর আল্ট্রাসনোগ্রাম ও সিটি স্ক্যানের রিপোর্ট দেখে গাইনি বিভাগ তার অস্ত্রোপাচার করার জন্য নিলেও পরে টিউমারের অবস্থান দেখে তারা সার্জারি বিভাগকে দায়িত্ব হস্তান্তর করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘রোগী বয়স্ক মানুষ ছিলেন, তাঁর বার্ধক্যজনিত কিছু সমস্যাও ছিল। অস্ত্রোপাচারের আগে রোগীর সার্বিক অবস্থা জানিয়ে তাঁর পরিবারের সম্মতি নেওয়া হয়েছে। সব ঠিক থাকলেও রোগী অ্যানেস্থেশিয়া রিকোভার করতে পারেননি। সেজন্য তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। আইসিইউর খরচ ও আনুষাঙ্গিক বিবেচনায় রোগীর পরিবারের সঙ্গে তার অবস্থা জানিয়ে অনুমতি নেওয়া হয়েছে। আইসিইউতে রোগীকে ক্যাথেটার করা হয়েছে, যা আইসিইউয়ের সাধারণ নিয়ম। সেটি নিয়েও ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। কোনো চিকিৎসক চান না রোগীর মৃত্যু হোক।’ 

এ সময় হাসপাতালটিতে এমবিবিএস পর্যায়ে কোনো চিকিৎসক অস্ত্রোপচার করেন না। চিকিৎসকরা সবাই এফসিপিএসসহ উচ্চ ডিগ্রিধারী এবং অভিজ্ঞ বলেও জানিয়েছেন অধ্যাপক দাউদ।

প্রসঙ্গত, রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে রোগীর স্বজনদের সঙ্গে হাসপাতালের নিরাপত্তাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। স্বজনদের অভিযোগ ফুলজান বিবি তিন দিন আগেই ভুল চিকিৎসায় মারা যান এবং মৃত্যুর পরও লাশ আইসিইউতে রেখে দেন মেডিকেল কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনার প্রতিবাদ করতে গেলে তাদের উপর হামলা করা হয়। এর প্রতিবাদে নিহতের স্বজনসহ পরিবহন শ্রমিকরা পাঠানটুলা এলাকায় দীর্ঘ সময় সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে রাখেন। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি