২০ অগাস্ট, ২০২১ ০৫:৩১ পিএম

মেডিকেল কলেজ খোলা নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি: স্বাস্থ্য শিক্ষা ডিজি

মেডিকেল কলেজ খোলা নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি: স্বাস্থ্য শিক্ষা ডিজি
ফাইল ছবি।

মেডিভয়েস রিপোর্ট: এমবিবিএস দ্বিতীয় বর্ষ ও পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থীদের প্রফ পরীক্ষা সামনে রেখে দেশের মেডিকেল কলেজগুলো খুলে দেওয়ার ব্যাপারে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম এনায়েত হোসেন। আজ শুক্রবার (২০ আগস্ট) বিকেলে মেডিভয়েসকে এ তথ্য জানান তিনি।

অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম এনায়েত হোসেন বলেন, ‘কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি ২১ আগস্ট মেডিকেল কলেজগুলো খোলার ব্যাপারে সুপারিশ করেছে। এখন আমরা প্রশাসনিকভাবে দেখবো, কলেজ খোলার পরিবেশ তৈরি হলে আমরা খুলে দেবো। মেডিকেল কলেজগুলো খোলা ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হলে জানতে পারবেন।’

কারিগরি কমিটির হাতে মেডিকেল কলেজগুলো নিয়ন্ত্রণ নেই জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তারা সুপারিশ করেছে, এখন আমরা দেখবো। মেডিকেলগুলো খোলার বিষয়ে এখন পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।’

এর আগে এমবিবিএস দ্বিতীয় বর্ষ ও পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থীদের প্রফ পরীক্ষা সামনে রেখে আগামী ২১ আগস্ট থেকে দেশের মেডিকেল কলেজগুলো খোলার কমিটির কাছে প্রস্তাব পাঠায় স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর। বিষয়টি নিশ্চিত করে গত ১৩ আগস্ট স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক এনায়েত হোসেন মেডিভয়েসকে বলেন, ‘২১ আগস্ট মেডিকেল কলেজগুলো খুলে দেওয়ার ব্যাপারে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির মতামত চাওয়া হয়েছে। এ নিয়ে কমিটির কোনো সিদ্ধান্ত এখনো পাইনি।’

করোনায় মেডিকেল শিক্ষাকে সেশনজটমুক্ত রাখতে ধারাবাহিক কাজের অংশ হিসেবে এ প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, কমিটির মতামত এবং মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে ওই দুই ব্যাচের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে কয়েক মাসের জন্য মেডিকেল কলেজগুলো খুলে দিতে চায় অধিদপ্তর। 

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আরও বলেন, ‘এটা আমাদের ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। মেডিকেল কলেজ আমরা পুরোপুরি বন্ধ রাখিনি। আমরা পর্যায়ক্রমে শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে নিয়ে এসেছি। তারা পরীক্ষা দেওয়ার পর আবার ক্যাম্পাস ছেড়ে চলে গেছে। করোনার এই সময়ে একসঙ্গে সবাই ক্যাম্পাসে সবাই ছিল না। পরীক্ষার আগে আগে এসেছে। কিছু দিন ক্লাস হওয়ার পর তারা পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে, তারপর চলে গেছে। এভাবে আমরা ধারাবাহিকভাবে পরীক্ষা নিয়েছি।’ 

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ১২ আগস্ট মেডিকেল কলেজগুলো খুলে দিতে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রস্তাবে ইতিবাচক মত দেয় কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। 

পরে তাদের এ সংক্রান্ত সুপারিশে বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগ ২১/০৮/২০২১খ্রি. বা নিকটবর্তী যে কোনো তারিখ থেকে এমবিবিএস/বিডিএস কোর্সের ২য় বর্ষ ও পঞ্চম বর্ষ/শেষ বর্ষ এর ক্লাস চালুকরণের বিষয়ে জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির মতামত চেয়ে পত্র প্রেরণ করেছে। 

কমিটির সকল সদস্যরা এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। ইতোমধ্যে এ সকল ছাত্র/ছাত্রীদের দুই ডোজ টিকা প্রদান করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনেচলা সাপেক্ষে প্রাথমিকভাবে এই দুই বর্ষের ক্লাস শুরু করার পক্ষে কমিটি মত প্রদান করেন। 

ক. ক্লাস শুরুর আগে সকল ছাত্র/ছাত্রীদের সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের উপর প্রশিক্ষণ করাতে হবে।
খ. শতভাগ সঠিকভাবে মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করাসহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে।
গ. হাসপাতালের ওয়ার্ডে ক্লাসে ছাত্র/ছাত্রীদের সঠিকভাবে সুরক্ষা সামগ্রী ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।
ঘ. ছাত্র/ছাত্রীদের সংক্রমণের উপর নজরদারি রাখতে হবে।
ঙ. সংক্রমিত ছাত্র/ছাত্রীদের চিকিৎসা/আইসোলেশন এবং তাদের সংস্পর্শে আসা ছাত্র/ছাত্রীদের ১৪ দিন কোয়ারিন্টেনের ব্যবস্থা করতে হবে।

তবে ২১ আগস্ট মেডিকেল খোলার প্রস্তাব ও সুপারিশের পর এখনো পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট ঘোষণা আসেনি। 

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এর পর গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ এবং ২৬ মার্চ থেকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। এরপর লকডাউন তুলে দেওয়া হলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি ধাপে ধাপে বাড়ানো হয়। এর মধ্যে গত ১৩ জুন  থেকে স্কুল-কলেজ খোলা এবং শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনায় প্রয়োজনীয় প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে করোনা পরিস্থির অবনতি হওয়ায় ছুটির মেয়াদ আরও বাড়ানো হয়। সর্বশেষ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত বাড়ায় সরকার।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি