৩০ জুলাই, ২০২১ ০৬:২৭ পিএম

শিল্পকারখানা ১ আগস্ট থেকে খোলা

শিল্পকারখানা ১ আগস্ট থেকে খোলা
ছবি: সংগৃহীত

মেডিভয়েস রিপোর্ট: করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে চলমান লকডাউনের মধ্যেই আগামী ১ আগস্ট থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পোশাকসহ রপ্তানিমুখী সব শিল্পকারখানা খোলা থাকবে। আজ শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. রেজাউল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ১ আগস্ট সকাল ৬টা থেকে রপ্তানিমুখী সব শিল্প ও কলকারখানা বিধিনিষেধের আওতামুক্ত রাখা হলো।

গত ২৩ জুলাই কঠোর বিধিনিষেধ জারি হওয়ার পর থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সব শিল্প-কারখানা। তবে ঈদের পর থেকেই কারখানা খোলার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে আসছিলেন শিল্প-কারখানার মালিকরা। 

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল বৃহস্পতিবার ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল ব্যবসায়ী মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সঙ্গে বৈঠক করে যত দ্রুত সম্ভব শিল্পকারখানা খুলে দেওয়ার অনুরোজ জানান। তার একদিন পরই রপ্তানিমুখী সব শিল্পকারখানা খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিল সরকার।

করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে গত এপ্রিলে বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। তবে রপ্তানিমুখী পোশাকসহ অন্যান্য শিল্প কারখানা থাকে এর আওতামুক্ত। সর্বশেষ গত ২৮ জুন শুরু হওয়া সীমিত ও পরে ১ থেকে ১৪ জুলাই কঠোর বিধিনিষেধেও পোশাকসহ অন্যান্য শিল্প কারখানাগুলো তাদের উৎপাদন চালানোর সুযোগ পায়। তবে ২৩ জুলাই থেকে শুরু হওয়া ১৪ দিনের কঠোরতম বিধিনিষেধে সব ধরণের শিল্প-কারখানা বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় সরকার। এর পর থেকে সরকারের সঙ্গে দেন-দরবারে নামেন পোশাক ও বস্ত্র খাতের পাঁচ সংগঠনের নেতারা। মন্ত্রীপরিষদ সচিবের সঙ্গে বৈঠক করে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠিও দেন তারা। শেষ পর্যন্ত কোনো কিছুই কাজে আসেনি। ফলে কুরবানির ঈদ হওয়ার পরও বন্ধ ছিল চামড়াসহ ওষুধ, খাদ্য প্রক্রিয়াজাত শিল্প ছাড়া অধিকাংশ শিল্পকারখানা।

গত মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সভাপতিত্বে সরকারের উচ্চপর্যায়ের সভায়ও চলমান বিধিনিষেধে শিল্প কারখানা খোলার জন্য ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়। তবে তা গৃহিত হয়নি। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : শিল্পকারখানা খোলা
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি