১৯ জুন, ২০২১ ০৭:০০ পিএম

ঢাবির ফাইনাল প্রফ পরীক্ষা পেছাচ্ছে না

ঢাবির ফাইনাল প্রফ পরীক্ষা পেছাচ্ছে না
ছবি: মেডিভয়েস

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) অধিভুক্ত মেডিকেল কলেজগুলোর ফাইনাল প্রফ পরীক্ষা যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন ঢাবি মেডিসিন অনুষদের ডিন ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ কমিটির চেয়ারম্যান ডা. শাহরিয়ার নবী। আজ শনিবার (১৯ জুন) সন্ধ্যায় মেডিভয়েসকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তিনি।

করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ফাইনাল প্রফ পরীক্ষা যথাসময়ে হবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘যথাসময়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।’

নেপাল ও ভারতের শিক্ষার্থীদের একটি অংশ এখনো বাংলাদেশে আসতে পারেনি। নিয়ম অনুযায়ী, তারা আসার পর আবার ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনের একটি বিষয় রয়েছে।

এ অবস্থায় তাদের জন্য কোনো পরিকল্পনা আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তাদের বড় একটি অংশ এরই মধ্যে চলে এসেছে। এর পর যারা বাদ পড়বে তারা স্বাভাবিকভাবেই নভেম্বর সেশনে চলে যাবে। ওদের একটি সেশন খোয়া গেছে অর্থাৎ মে সেশনটা শেষ হয়ে যাচ্ছে। এখন তো নেওয়া হচ্ছে গত নভেম্বর সেশনের পরীক্ষা। এ কারণে গত এপ্রিল-মে মাসে পরীক্ষাটা নিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু সেটা করা যায়নি। এতে তাদের আরেকটি সেশন হারিয়ে গেলো। অন্য কোনো বর্ষের শিক্ষার্থীদের বেলায় তা হয়নি।’

যথাসময়ে পরীক্ষা আয়োজনে নিজের সক্রিয় ভূমিকার কথা তুলে ধরে ঢাবি মেডিসিন অনুষদের ডিন বলেন, ‘নানা কারণে ঢাবি অধিভুক্ত মেডিকেল কলেজগুলোর ফাইনাল প্রফ পরীক্ষা যথাসময়ে আয়োজন করা যায়নি। অথচ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে মেডিকেল শিক্ষার্থীরা এরই মধ্যে ফাইনাল প্রফ পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পেয়েছে,  চিকিৎসক হয়েছে। এমনকি তারা বিসিএসে অংশ নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছে। অথচ এই প্রফ পরীক্ষা আয়োজনে আমি সবাইকে রাজি করিয়েছিলাম। এমনকি করোনায় ঝুঁকি নিয়ে পরীক্ষা আয়োজনে ভূমিকা রাখায় আমার ওপর অনেকের অভিমানও ছিল। শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে সেই উদ্যোগ নিয়েছিলাম। কারণ বয়স কম হওয়ায় আমাদের চেয়ে তাদের করোনা ঝুঁকি কম। আমি ভেবেছিলাম, ঝুঁকি নিয়ে হলেও শিক্ষার্থীদের একটু সামনের দিকে এগিয়ে দিই। এই চিন্তা থেকে কাজটা করেছিলাম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এতোটা সময় চলে গেলো। সুতরাং পরীক্ষা পেছানোর আর কোনো সুযোগ নাই।’

কোনো কোনো বিদেশি শিক্ষার্থীর পরীক্ষায় অংশ গ্রহণের অনিশ্চয়তায় দুঃখ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘বিদেশি শিক্ষার্থীরা নিজ দেশে চলে যাওয়ার সময় বিশ্ববিদ্যালয়, এমনকি কলেজ কর্তৃপক্ষের অনুমতি পর্যন্ত নেয়নি। তবে ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজসহ বেশ কিছু কলেজের কোনো শিক্ষার্থী দেশে ফিরে যায়নি। একশ’ শিক্ষার্থীর কথা ভাবতে গিয়ে চার হাজার শিক্ষার্থীকে হতাশ করার কোনো সুযোগ নেই।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশনা ছাড়া তাদের ক্যাম্পাস ছাড়ার ঘটনায় উষ্মা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘করোনার এ সংকটে দেশে ফেরার পথে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে এই দায়ভার কে গ্রহণ করতো?’

এর আগে ১০ জুন ঢাবি অধিভুক্ত মেডিকেল কলেজগুলোর এমবিবিএস ফাইনাল প্রফেশনাল পরীক্ষা রুটিন প্রকাশ করা হয়। ঢাবির মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. শাহরিয়ার নবী স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত নোটিসে বলা হয়, এমবিবিএস ফাইনাল প্রফেশনালের নভেম্বর ২০২০ এর নতুন সিলেবাস ও জানুয়ারি ২০২১ এর পুরাতন সিলেবাসের লিখিত পরীক্ষা আগামী জুন মাসে অনুষ্ঠিত হবে। ২৯ জুন থেকে শুরু হয়ে লিখিত পরীক্ষা চলবে আগামী ১১ জুলাই পর্যন্ত।

এতে আরও বলা হয়, প্রত্যেক মেডিকেলের পরীক্ষা তাদের নিজ নিজ ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে পরীক্ষা একটায় শেষ হবে।

এছাড়া অবজেক্টিভ স্ট্রাকচারড প্রাকটিক্যাল পরীক্ষা আগামী ১৫ জুলাই এবং ওরাল ও ব্যবহারিক পরীক্ষা আগামী ৭ আগস্ট থেকে শুরু হবে।

আদেশের অনুলিপি অবগতি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের ডিন, রেজিস্ট্রার, বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাবরক্ষক কর্মকর্তা ও মেডিকেল কলেজগুলোর অধ্যক্ষকে পাঠানো হয়েছে।

সময়সূচি প্রকাশের এক দিন আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) অধিভুক্ত সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজের নভেম্বর ২০২০ ও জানুয়ারি ২০২১ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস চূড়ান্ত পেশাগত পরীক্ষা জুন মাসের শেষ সপ্তাহের মধ্যে আয়োজনের নির্দেশ দেয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচলককে পাঠানো ওই চিঠিতে বলা হয়, ‘উপর্যুক্ত বিষয় ও স্মারকের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণপূর্বক জানানো যাচ্ছে যে, যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজের নভেম্বর ২০২০ ও জানুয়ারি ২০২১ সেশনের এমবিবিএস ফাইনাল প্রফেশনাল পরীক্ষা জুন ২০২১ এর শেষ সপ্তাহের সুবিধাজনক সময়ে গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।’

মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের চিকিৎসা শিক্ষা-১ শাখার উপসচিব মোহাম্মদ আব্দুল কাদের স্বাক্ষরিত চিঠির অনুলিপি অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পররাষ্ট্র সচিব, ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা অনুষদের ডিন ও স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিবের একান্ত সচিবসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে পাঠানো হয়েছে।

একই সঙ্গে চিঠিতে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালকের (চিকিৎসা শিক্ষা) দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : ফাইনাল প্রফ পরীক্ষা
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত