১৯ জুন, ২০২১ ০৫:০৭ পিএম

করোনা: চলমান পরিস্থিতিতে পেছাচ্ছে না এফসিপিএস পরীক্ষা

করোনা: চলমান পরিস্থিতিতে পেছাচ্ছে না এফসিপিএস পরীক্ষা
ছবি: মেডিভয়েস

মুন্নাফ রশিদ: দেশে করোনা ভাইরাস হানা দেওয়ার পর থেকে বন্ধ হয়ে আছে সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। সেই সঙ্গে একাডেমিক পরীক্ষাগুলোও থমকে পড়েছে। এমন পরিস্থিতি কিছুটা কাটিয়ে ওঠার কিঞ্চিৎ সম্ভাবনার মধ্যে আবারো আছড়ে পড়ে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। তবে ক্রমেই সে ঢেউ শক্তিশালী হয়ে উঠেছে সীমান্তবর্তী জেলা ও বিভাগগুলোতে। এমন অবস্থায় এফসিপিএসের সকল পরীক্ষা যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হওয়া নিয়ে উদ্বেগের মধ্যে রয়েছেন নবীন চিকিৎসকেরা। তবে ঘোষিত সময় অনুযায়ী পরীক্ষা গ্রহণের বিষয়ে অনড় বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ান্স অ্যান্ড সার্জনস (বিসিপিএস)।

প্রতিষ্ঠানটি বলছে, দেশে করোনার পরিস্থিতি বর্তমান সময়ে মতো থাকলে কোনোভাবেই পেছাবে না এফসিপিএস পরীক্ষা।

করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউন ও বিসিএস ভাইভাসহ নানা কারণে বিসিপিএসের নির্ধারিত তারিখে পরীক্ষার বিষয়ে পরীক্ষার্থীদের অনেকেই ভিন্ন ভিন্ন মত দিচ্ছেন। রাজশাহী থেকে এফসিপিএস পরীক্ষার্থী আশরাফুল মেডিভয়েসকে বলেন, ‘রাজশাহীতে কঠোর লকডাউন চলছে। এমন অবস্থায় দূরপাল্লার গাড়ি চলছে না। ফলে ঢাকায় এসে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা আমার মতো অসংখ্য পরীক্ষার্থীর পক্ষে অসম্ভব।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিসিপিএস চাইলে বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে। সেক্ষেত্রে এমন হতে পারে যে, বিসিপিএস প্রশ্নপত্র বিভাগীয় শহরগুলোতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠিয়ে দিতে পারে। তাহলে সবার জন্য সুবিধা হয় এবং লকডাউনের মধ্যেও সবার পরীক্ষায় অংশগ্রহণ নিশ্চিত হয়ে যায়।’

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একজন পরীক্ষার্থী বলেন, ‘রংপুর, রাজশাহী বিভাগ ও সাতক্ষীরাসহ সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে কঠোর লকডাউন চলছে। আগামী ২২ জুন থেকে খুলনাতেও কঠোর লকডাউন হবে। এমন অবস্থায় আমরা যারা এই জেলাগুলোতে আছি তারা কিভাবে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারি?’

বিসিপিএসের ইতিহাসে পরীক্ষা পেছানোর নজির ছিল না। তবে করোনা পরিস্থিতিতে সে ইতিহাসও গত বছর ভাঙতে হয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। তবে এবারের পরীক্ষা পেছানোর বিষয়ে তেমন কোনও ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। 

সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে এফসিপিএস পরীক্ষার বিষয়ে আজ শনিবার (১৯ জুন) বিসিপিএস কাউন্সিলরদের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। 

বৈঠকের বিষয়ে জানতে চাইলে বিসিপিএসের কাউন্সিলর ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. খান মো. আবুল কালাম আজাদ মেডিভয়েসকে বলেন, ‘পরীক্ষার বিষয়ে আমরা এখনও ইতিবাচক। কোনও নেতিবাচক সিদ্ধান্ত নেই। পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়ে কাউন্সিলররা এখনও অনড়। সুতরাং পরীক্ষা নিতে আমরা প্রস্তুত।’

লকডাউনসহ সার্বিক পারিস্থিতির মধ্যে পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের বিষয়টি অবশ্যই আমাদের বিবেচনায় রয়েছে। পরিস্থিতি অস্বাভাবিক পর্যায়ে গেলে অবশ্যই বিকল্প সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। কারণ শিক্ষার্থীদের জন্যই পরীক্ষা। তাহলে তারা যদি না আসতে পারে তাহলে কাদের পরীক্ষা নিবো? আগেও একবার পরীক্ষা পেছানো হয়েছে, অবস্থার অবনতি হলে আবারও পেছানো হবে। তবে এখন পর্যন্ত পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে।’ 

অধ্যাপক ডা. খান মো. আবুল কালাম আজাদ আরও বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের যেমন অনুভূতি আমাদেরও তেমন অনুভূতি। তারা দ্রুত ফেলোশিপ শেষ করতে পারলে আমরা অনন্দিত হবো। এ জন্য উভয় দিক বিবেচনা করে সকল প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।’ 

বিসিপিএস শিক্ষার্থীদের পক্ষেই আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা পরীক্ষার্থীদের পক্ষেই আছি। আমরা সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়ে রেখেছি। অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরীক্ষার চার/পাঁচদিন আগেও সিদ্ধান্ত বদলাতে পারে।’

প্রসঙ্গত, এফসিপিএস সকল পরীক্ষা আগামী ১ জুলাই থেকে শুরু হবে বলে সোমবার (১৪ জুন) এক বিজ্ঞপ্তিতে পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ান্স অ্যান্ড সার্জনস (বিসিপিএস)।  

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক ডা. মো. টিটু মিঞাঁ স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ‘জুলাই-২০২১ সেশনের সকল পরীক্ষা (এফসিপিএস ১ম পর্ব, এফসিপিএস ২য় পর্ব (শেষ পর্ব), প্রিলিমিনারী এফসিপিএস ২য় পর্ব, এফসিপিএস (সাব-স্পেশালিটি), এফসিপিএস মিড-টার্ম এবং এমসিপিএস লিখিত পরীক্ষা আগামী জুলাইয়ে শুরু হবে।’ 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : এফসিপিএস পরীক্ষা
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি