০১ নভেম্বর, ২০১৬ ০৮:৩৯ এএম

অতীতাশ্রয়ী বিষাদ -১, ফরিদপুর

অতীতাশ্রয়ী বিষাদ -১, ফরিদপুর

অতীতাশ্রয়ী বিষাদ -১, ফরিদপুর

.........সৈয়দ ইমতিয়াজ হোসাইন

 

আমি আজকাল ভালো থাকিনা
ভালোথাকাটা আমার ধাতে নেই ,
অতীতাশ্রয়ী বিষাদ আমাকে গ্রাস করেছে
তাই আমার মন মেজাজ ভালো নেই !
বিষম সমস্যায় জর্জরিত জাতি
নিজের সমস্যা নিরসনে আমি দারুন আত্নঘাতি !
বিপদের আসন্ন ফ্রি রেডিকেলগুলো কিলবিল করছে বায়বীয় শূন্যতায়
ওরা হতাশার বীজ ছড়িয়ে দিয়েছে মানবমনে নির্ঘুম মৌনতায় ।
আলাদীনের প্রদীপ হাতে নেই
আলাদীনও ভয় পেয়ে যেত সমস্যার হিমালয় দেখে !
আমি সাত সাতটি সমুদ্র পেরিয়ে যেতে পারি সাঁতরে
তবু ঐ হিমালয়কে জয় করতে বলোনা !
এখানকার মানুষগুলো পিপাসার্ত
রক্ত মদ যথেষ্ট নয় !
দারিদ্রতা এদের লোলুপ করেছে
এরা সিঁধেল চোর হয়ে হাজতে যায়
অথচ পুকুর চোরেরা ভোটে বাহবা পায় !
দাবার চালের মত আটকে গেছে এখানকার অগ্রগতি
অসীম সমস্যাচালে দৃশ্যমান সীমাহীন দুর্গতি
কেরানির চেয়ে বটতলার সেলুনে আয় বেশি
অর্থই এখানে মর্যাদার মাপকাঠি !
আমি তবুও নীতির কাছে বাঁধা
তাই আমার দম আটকে আসে !
প্রত্যেক বেঈমানের প্রতিশোধ নিতে চেয়েছি
মানবতার আয়নিক বন্ধন আমাকে মুক্তি দেয় না !
তাই ওরা এ যাত্রায় বেঁচে গেলো !
বিপদে পড়লে রিক্সা চালকও কখনো ছাড় দেয়না
অথবা , চল্লিশার্ধ সিএনজি চালক ,
বুভুক্ষু মানুষকে কোন দোকানী ফ্রিতে চাল দেয়নি ,
তবু তোমরা ছাড় চাও ?
আমি ঈশ্বর নই !
ক্ষুতপিপাসা আমারও আছে !
মানবতার দায়ভার আমার একার নয় ।
দেশে দেশে অভাবের যুদ্ধ
সব মানুষ এখানে বেকার , তাদের অস্ত্র নেই
এরা কখনো স্বাধীন ছিলোনা ,
অভাব এদের পাতালপুরের দেবতা ,
মৌলিক চাহিদাগুলো এদের পরাধীন করে রেখেছে !
আমি কবিতায় তাদের কথা লিখি
এতটুকুই করতে পারি !
আর কিছু করতে বলোনা ,
তোমাদের জন্য শেষবিন্দু রক্ত দিতে পারবোনা !
মীরমদন বা সিনফ্রে শেষবিন্দু রক্ত দিয়ে যুদ্ধ করেছে
তবু মুক্তি আসেনি !
তোমরা আরোপিত বন্দী জাতি
এক নিমেষেই কখনো স্বাধীনতা আসেনি ।
যুদ্ধ করলেই দেশ স্বাধীন হয়না ,
অভাব , মৃত্যু গুলো পরাধীন সত্ত্বাঃ !
একটা ভরাট কণ্ঠের ভাষণ ,কিংবা একটা বিপ্লবীর বিপ্লব এমেরিকাকে মুক্তিদিতে পারে আমাদের পক্ষে তা সম্ভব নয় !
হিটলারের ভাষণ শুনেছি ,
তার মত বিপ্লবী আমার শতাব্দিতে আর দেখিনি !
যদিও খুনি বলে ,তাকে অনেকেই ঘৃণা করে !
অথচ এই যুগে সকলের বসতির নিচে মজলুমের টাটকা রক্ত !
অর্ধযুগে জার্মানি তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বাধাতে পারে ,
বাঙালির পক্ষে সেটা পাঁচশ বছরেও সম্ভব নয় ।
সারা ইউরোপে যুদ্ধবিগ্রহ ছিলো ,দারিদ্রতা ছিলো
তাদের চেতনাগুলো দুর্বল ছিলোনা ,
আমাদের চেতনার বাঁকগুলো জোনাকির আলোর মত অনুজ্জ্বল !
এরা রুটি নিয়ে যুদ্ধ করে ক্লান্ত হয়
আর মোনালিসা লুভরে শোভা পায় ।। 
অতীতাশ্রয়ী বিষাদ -১, ফরিদপুর।।

 

কবি : সৈয়দ ইমতিয়াজ হোসাইন

মেডিকেল শিক্ষার্থী, ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ। 

 

করোনা ও বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা

এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

এক বছর প্রয়োগ হবে সেনা সদস্যদের দেহে

চীনে করোনার প্রথম ভ্যাকসিন অনুমোদন

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না