৩০ অক্টোবর, ২০১৬ ০৯:৩৩ পিএম

সাহায্য ও সহযোগিতা পেলে আরও অনেক কিছু করা যেত : মমেক পরিচালক

সাহায্য ও সহযোগিতা পেলে আরও অনেক কিছু করা যেত : মমেক পরিচালক

মেডিভয়েস রিপোর্ট : ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, আমি দুর্নীতি করছি না। আমার স্টাফ বা অন্য-কেউ দুর্নীতি করলে চিঠি বা টেলিফোনে জানান। মনগড়া কথা লিখবেন না। আমি কাজ বন্ধ করে দিয়ে সেনাবাহিনীতে ফিরে যাব।  দায়িত্বের একবছর পূর্তি উপলক্ষ্যে ময়মনসিংহের সাধারণ মানুষ ও সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে নিজ ফেসবুকে দেয়া বিবৃতিতে তিনি এসব উল্লেখ করেছেন।

তিনি লিখেছেন, মনে রাখবেন এ হাসপাতাল আপনাদের। আপনারা সহযোগী না হলে অল্প কিছু লোক তাদের স্বার্থের জন্য ময়মনসিংহ বিভাগের গরীব মানুষগুলোকে সুচিকিৎসা হতে বঞ্চিত করবে।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে গত এক বছরের উল্লেখযোগ্য উন্নয়নের কথা মনে করে দিয়েছেন এই সেনা অফিসার।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. নাসির উদ্দিন আহমেদ লিখেছেন, এক বছরে আপনাদের সকলের সমর্থন ও সহযোগিতায় পরিচালক হিসেবে চেষ্টা করেছি হাসপাতাল ভালভাবে পরিচালনা করতে।

সেবার মান উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি লিখেছেন, হাসপাতালে নিউরোসার্জারি ওয়ার্ড চালু হওয়ার পর ৫৫ জন রোগীর মস্তিষ্কে জটিল অপারেশান সুসম্পন্ন হয়েছে। এ বিভাগের জন্য প্রায় ৪০ লাখ টাকা নিজস্ব ব্যবস্থায় জোগাড় করা হয়েছে। 

হাসপাতালে আগে যেখানে ১৭শ’ থেকে ১৮শ’ রোগী ভর্তি হতো- এখন গড়ে ২৪শ’ রোগি ভর্তি থাকে। প্রতিদিন আউট ডোরে সেবা পাওয়া রোগীর সংখ্যা ১৫ শ’ থেকে বেড়ে ৩ হাজারে উন্নীত হয়েছে।

লিখেছেন, ডায়াবেটিস রোগিদের সুবিধার্থে আউডোর চালু করা হয়েছে। ডেন্টাল বিভাগের জন্য কেনা হয়েছে ১২টি বিশেষ চেয়ার। সেইসঙ্গে, রোগিদের ওষুধ শতভাগ দেয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করা হচ্ছে বলে দাবি তাঁর। 

হাসপাতালের উন্নয়ন ও সংস্কার প্রসঙ্গে লিখেছেন, হাসপাতালের সৌন্দর্য  বৃদ্ধি ও নিরাপত্তার স্বার্থে নীচতলায় ১৩ লাখ টাকা খরচ করে গ্রিল বসানো হয়েছে। কনফারেন্স রুম সংস্কার করে আধুনিকায়ন করা হয়েছে। এক্স-রে বিভাগের জন্য ৩৬ লাখ টাকা ব্যয়ে করে ২টি আলট্রাসাউন্ড মেশিন কেনা হয়েছে।

এ বিভাগের উন্নয়নে আরো ২৭ লাখ টাকা টাকা ব্যয় করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন মমেকের পরিচালক। ডায়েট (খাবার) ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা আনা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেছেন ডা. নাসির উদ্দিন।  

তিনি লিখেছেন, প্রথমবারের মত ১লা নভেম্বর থেকে ৫০ জন সশস্ত্র আনসার নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ভাল সার্ভিসের জন্য নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় অতিরিক্ত ৪শ’ জনবল নিয়োগ দিয়েছেন তিনি।  

মমেক পরিচালক লিখেছেন, আমি বলি না আমি সব করেছি। সাহায্য ও আরো সহযোগিতা পেলে আরো অনেক কিছু করা যেত। আমার একার পক্ষে সব পরিবর্তন করা সম্ভব নয়।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, আপনাদের হাসপাতলে ক্যাথল্যাব নেই। ডায়ালাইসিস মেশিন নেই। এম আার মেশিন ও সিটি স্ক্যান মেশিন ১০ বছরের পুরানো। রেডিও থেরাপি মেশিন নিয়ে লাল ফিতার খেলা চলছে।

২০১৩ সালে তৈরি করা নুতন ভবন এর চৌকাট দরজা ঘুনে ধরে গেছে। সব জিনিস সেমিটারি লাইট চুরি হয়ে গেছে।

চলমান সমস্যা কাটাতে বাড়তি বাজেটের ডিমান্ড পাঠানো হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দিন আহমেদ।  

 

করোনা ও বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা

এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

এক বছর প্রয়োগ হবে সেনা সদস্যদের দেহে

চীনে করোনার প্রথম ভ্যাকসিন অনুমোদন

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত