আসমা আক্তার

আসমা আক্তার

আসমা আক্তার
সিনিয়র স্টাফ নার্স
কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, ঢাকা


২০ এপ্রিল, ২০২০ ০৪:৫১ পিএম

‘নার্সরা তো রোবট নয়, রক্ত মাংসেরই মানুষ!’

‘নার্সরা তো রোবট নয়, রক্ত মাংসেরই মানুষ!’

ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। ধন্যবাদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী। কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি আমাদের সুযোগ্য ডিরেক্টর স্যার ও মমমতাময়ী সুপারিন্টেনডেন্ট ম্যামকে। 

অনেক বৃষ্টির পরে মিস্টি রোদ উঠলে যেমন অসাধারন অনুভূতির সৃষ্টি হয় আজ তেমন অনুভব হচ্ছে। করোনা মহামারি ছড়িয়ে পরার পরে পুরো স্বাস্থ্য সেক্টরই হযবরল অবস্থায় পরিণত হয়েছিলো। সীমিত সামর্থ্য, আমলাতান্ত্রীক জটিলতা ও সমন্নয়হীনতার কারনে করোনায় দেশের সকল নার্সরাই সবচেয়ে অবহেলিত ও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় কাজ করে যাচ্ছিল। আমাদের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের চিত্রটাও এর ব্যতিক্রম ছিলোনা। বেশ কয়েকদিন যাবত করোনা ওয়ার্ডে ডিউটি করতে এসে খাবার ও আবাসন নিয়ে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে। কিন্তু আজ আমাদের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের ডিউটিরত সকল নার্সদের থাকার জন্য গুলশানের একটি অভিজাত হোটেল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। আমরা সবাই এখন এই হোটেলেই অবস্থান করছি। অসাধারন পরিবেশ। পুরো বিষয়টিই স্বপ্নের মতো লাগছে। কারন এতদিন এসব শুধু শুনেই এসেছিলাম কিন্তু বাস্তবায়ন না হওয়ায় মনে মনে অবিশ্বাস জন্মেছিলো। গত চারটি রাত প্রায় নির্ঘুম কাটানোর পরে আজ হয়তো ঘুমাতে পারবো সবাই। আসলে এই মহামারির সময় ঘুমটা আমাদের বিলাসিতা নয়, বরং নিজেদের শতভাগ সুস্থ ও এনার্জেটিক রাখতেই আমাদের মানসম্মত আবাসনের প্রয়োজন ছিলো। আমরা নার্সরাতো আর রোবট নই, রক্ত মাংসেরই মানুষ!

এমন সুন্দর একটি পরিবেশ উপহার দেওয়ার জন্য সকল নার্সদের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাই বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে। আমরা জানি দেশের প্রতিটি সমস্যা আপনাকে এক হাতেই সামাল দিতে হয়। আমাদের সৌভাগ্য আমরা আপনার মতো মানবিক একজন রাষ্ট্রনায়ক পেয়েছি। আজ আপনার নির্দেশে আমাদের এই আবাসন প্রাপ্তির পরে এটাই বুঝতে পারলাম যে আপনার অপার স্নেহ থেকে এদেশের কোনো মানুষই বঞ্চিত হয়না। পাশাপাশি অনেক অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি আমাদের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ডায়নামিক ডিরেক্টর স্যার এবং মমতাময়ী সুপারিন্টেনডেন্ট ম্যামকে। আপনদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা খুজে পাচ্ছিনা। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে যদি আপনাদের মতো দায়িত্বশীল অভিভাবক থাকে তাহলে সেই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সকলেই নিশ্চিন্তে, নিরাপদে ও স্বাচ্ছন্দ্যে চাকুরী করতে পারতো। আপনাদের সুযোগ্য পরিচালনায় এই হাসপাতালটি আজ সবার আস্থাভাজন প্রতিষ্ঠানে পরিনত হয়েছে। যার সুফল চিকিৎসা সেবা নিতে আসা প্রতিটি মানুষই উপভোগ করছে। আপনাদের নির্দেশনায় এই প্রতিষ্ঠানে চিকিৎসা সেবার মতো একটি মহৎ কাজে অংশগ্রহণ করতে পেরে নিজেও গর্ব অনুভব করছি।

সর্বোপরি দেশের সবার কাছে দোয়া চাই আমরা যাতে সুস্থ থেকে আমাদের উপর অর্পিত সকল দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করতে পারি। আল্লাহ সবাইকে ভালো রাখুক। আমিন।

  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি