ডা. সুরেশ তুলসান

ডা. সুরেশ তুলসান

সহকারী অধ্যাপক (সার্জারি), কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ।


১৯ এপ্রিল, ২০২০ ১২:২৭ এএম

করোনাকালে এপেন্ডিসাইটিস অপারেশন!

করোনাকালে এপেন্ডিসাইটিস অপারেশন!
ছবিটি প্রতীকী

কয়েক দিন আগে এক রোগীর বাবা এসেছেন আলাপ করতে। ছেলের বয়স ১৫ বৎসর। তিন মাস আগে এপেন্ডিসাইটিস হয়েছিল। ছেলে এখন ভালো আছে, তবে তিনি অপারেশন করিয়ে ফেলতে চাচ্ছেন। খুব করে বোঝানোর চেষ্টা করলাম। এখন করার দরকার নাই। করোনার কারনে দেশের পরিস্থিতি ভালো না, কিছুদিন পরে করেন। 

কিন্তু তিনি নাছোড়বান্দা। পরে মাথায় এলো মোক্ষম দাওয়াই। বললাম এই যে আপনাকে আমি দূরে বসতে বললাম। এটা কিন্তু আমার জন্য না। এটা আপনার জন্য। 
বোঝেন তো, আমরা ডাক্তাররা সারা দিন কত রোগী ঘাটাঘাটি করি। কোনটা কিসের রোগী তার ঠিক নেই। আমার শরীর থেকে যেন আপনার শরীরে করোনার জীবাণু না যেতে পারে এজন্যই আপনাকে দূরে বসতে বলা। তাছাড়া আমাদের যেসব নার্স, ওয়ার্ডবয়, ওটিবয় থাকে ওদের থেকে করোনা ছড়ানোর ভয় আরও বেশি।
  
আমরা ডাক্তাররা তো খুব অল্প সময়ের জন্য হাসপাতালে থাকি। ওদের তো সারা দিনই হাসপাতালে থাকা লাগে। ওদের শরীর থেকে রোগীর শরীরে করোনা ছড়ানোর ভয় আরও বেশি। তারপর ক্লিনিকগুলোতে জ্বর, সর্দি-কাশি শ্বাসকষ্টের রোগী তো থাকেই।
তাছাড়া ক্লিনিকের খাট, চৌকি, বিছানাপত্তর থেকেও করোনা ছড়াতে পারে। 

ঠিক আছে আপনি যখন শুনবেনই না তখন ছেলেকে ভর্তি করে দেন। আজ রাতেই অপারেশন করে দিবো। এখন যেহেতু আমাদেরও কাজকর্ম নাই, অপারেশন এর বিলও অনেক কমায়ে দিবো। দেন তাহলে আজকেই ভর্তি করে দেন। আর শোনেন ছেলেকে ভর্তি করে আমাকে ফোনে জানিয়ে দেবেন। ভর্তি না করলেও জানাবেন। আমাদের প্রস্তুতির একটা বিষয় আছে তো।

আধা ঘন্টা পর ফোন, " স্যার ছেলের মা খুব ভয় পাচ্ছে, কদিন পরে অপারেশন করালেই মনে হয় ভালো হয় "।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা
পিতাকে নিয়ে ছেলে সাদি আব্দুল্লাহ’র আবেগঘন লেখা

তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না