১৭ এপ্রিল, ২০২০ ১১:০০ এএম
মেডিভয়েসকে বিশেষ সাক্ষাৎকারে আকরাম খান

চিকিৎসকদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা আরও বেড়ে গেছে

চিকিৎসকদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা আরও বেড়ে গেছে
জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান। ফাইল ছবি

করোনাভাইরাসের কারণে পুরো বিশ্ব স্থবির। লক্ষাধিক মানুষের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। প্রতিদিনই বিভিন্ন দেশে হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, মৃত্যুর সংখ্যাও লাফিফে লাফিয়ে বাড়ছে। এই কঠিন পরিস্থিতিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী এই সংকটময় মুহূর্তে মেডিভয়েসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও বাংলাদেশের কিংবদন্তি ক্রিকেটার আকরাম খান তার ব্যক্তিগত নানা ভাবনা তুলে ধরেন। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন আবদুল্লাহ আল-মামুন

মেডিভয়েস: করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে ঘরে থাকার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য। এ ব্যাপারে আপনি  কিছু বলুন।

আকরাম খান: এব্যাপারে তো গত একমাস ধরে বলে আসছি, এটা তো আসলে একটা খুব ক্রাইসিস মুহূর্ত। সারা বিশ্বের সাথে সাথে আমরাও এই কঠিন পরিস্থিতিতে আছি। আল্লাহর কাছে দোয়া করছি যেন সবাই সুস্থ থাকুক, ভালো থাকুক। সবচেয়ে গুরুত্বপর্ণ হলো আমরা পেনিক না হয়ে, এই করোনাভাইরাসে কোনটা ভালো কোনটা খারাপ এসম্পর্কে ভালো করে জেনে যেটা ভালো সেটা করা।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো আমাদের সরকার যে ছুটি দিয়েছে সে সম্পর্কে আমাদের জানতে হবে। কেন ছুটি দিয়েছেন এবং সবাইকে বাসায় থাকাই হলো গুরুত্বপূর্ণ। সবাই বাসায় থাকলে সেভ থাকতে পারবে এবং জরুরি কাজ ছাড়া কেউ যেন বাইরে না যায়। আর এই মুহূর্তে সবাই যেন সবাইকে হেল্প করে। সবাই যেন সবার জন্য দোয়া করে, আল্লাহ যেন আমাদের সবাইকে এই বিপদ থেকে যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব উদ্ধার করেন।

মেডিভয়েস: এই কঠিন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যকর্মীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তাদের নিয়ে আপনি কিছু বলুন।

আকরাম খান: সত্যি কথা বললে মানুষ যেমন যুদ্ধে নেমে যায়, ঠিক তেমনি এখন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা যুদ্ধে নেমে গেছেন। ওনাদের কথা ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না। ওনারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষদের প্রতিনিয়ত সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। সেবা দিতে গিয়ে ওনাদের মধ্যেও অনেকে আক্রান্ত হয়েছেন, কয়েকজন মারাও গেছেন। তো ওনাদের এই কাজে ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করতে চাই না, আমার মনে হয় ধন্যবাদ দিলেও কম দেয়া হবে। ওনাদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা আরও বেড়ে গেছে। তাদের প্রতি আমাদের দোয়া সব সময়  থাকবে, যাতে করে এই কাজটা ওনারা আরও ভালোভাবে করতে পারেন।

মেডিভয়েস: করোনাভাইরাসের কারণে পুরো বিশ্ব স্থবির। ছোঁয়াছে এই ভাইরাসের প্রভাব  খেলাধুলায়ও পড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ক্রিকেটারদের ফিটনেস ধরে রাখা কতটা চ্যালেঞ্জিং?

আকরাম খান: এই পরিস্থিতিতে সবার ফিটনেস ধরে রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তারা হয়তো এখন আউটডোরের জিনিসগুলো পাচ্ছে না কিন্তু ইনডোরে যা যা করার তা করার সুযোগ আছে। অনেকেই বাসায় থেকেও নিজেকে ফিট রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছে। এছাড়া ক্রিকেট বোর্ডের ফিজিও যিনি আছেন তিনিও সবার খোঁজ খবর রাখছেন। এক সপ্তাহ পর পর ক্রিকেটারদের ফিটনেস ঠিক রাখতে ফিজিও বিভিন্ন পরিকল্পনা দিচ্ছেন। ন্যাশনাল টিমের যারা আছেন তারা তা ফলো করছেন। তবে এখন ক্রিকেটারদের ফিটনেস নিয়ে চিন্তা না, এখন মেন কথা হলো এই পরিস্থিতি থেকে আমরা কিভাবে দ্রুত পরিত্রাণ পেতে পারি সেটাই গুরুত্বপূর্ণ।

মেডিভয়েস: আপনি একজন দেশের কিংবদন্তি ক্রিকেটার, অনেকেই তারকাদের ফলো করে থাকেন। এই কঠিন পরিস্থিতিতে নিজেকে সেভ রাখতে কি করছেন, আপনাকে যারা ফলো করেন তাদের উদ্দেশে কী পরামর্শ দেবেন?

আকরাম খান: আমি শুরুতেই বলেছি এখন যে পরিস্থিতিতে আমরা আছি এই মুহূর্তে সবাই সবাইকে হেল্প করা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। নিজে সেভ থাকতে হবে অন্যকেও সেভ থাকার সুযোগ করে দিতে হবে। তাছাড়া এই মুহূর্তে যেসব গরিব মানুষ খাদ্য সংকটে রয়েছেন তাদেরকে আমাদের যথা সম্ভব হেল্প করতে হবে। যারা মধ্যবিত্ত রয়েছেন তাদের প্রতি আমাদের খোঁজ-খবর নিতে হবে। যে যতটুকু পারি হেল্প করতে হবে।

  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস নিয়ে তারকা ভাবনা
সিন্ডিকেট মিটিংয়ে প্রস্তাব গৃহীত

ভাতা পাবেন ডিপ্লোমা-এমফিল কোর্সের চিকিৎসকরা

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা উপেক্ষা

অতিরিক্ত বেতন নিচ্ছে একাধিক বেসরকারি মেডিকেল

প্রস্তুতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

অক্টোবর-নভেম্বরে ২য় ধাপে করোনা সংক্রমণের শঙ্কা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
আন্তর্জাতিক এওয়ার্ড পেলেন রাজশাহী মেডিকেলের নার্স
জীবাণু সংক্রমণ প্রতিরোধে অসামান্য অর্জন

আন্তর্জাতিক এওয়ার্ড পেলেন রাজশাহী মেডিকেলের নার্স