ডা. হৃদয় রঞ্জন রায়

ডা. হৃদয় রঞ্জন রায়

সহযোগী অধ্যাপক, সার্জারি বিভাগ

রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল


১৫ এপ্রিল, ২০২০ ১১:৫০ এএম

অভিশাপ, যারা তাকে ঢাল-তলোয়ারহীন করোনা যুদ্ধে বাধ্য করেছিল

অভিশাপ, যারা তাকে ঢাল-তলোয়ারহীন করোনা যুদ্ধে বাধ্য করেছিল

ডা. মঈন উদ্দিন, সহকারী অধ্যাপক, মেডিসিন, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। করোনা যুদ্ধের একজন ফিল্ড মার্শাল। এসএসসি ও এইচএসসিতে বোর্ড স্ট্যান্ডসহ বুয়েট, ঢাকা মেডিকেল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় -সবখানেই মেধাস্থানের প্রথম দিকেই চান্স পেয়েছিল সে। কিন্তু মানবসেবার তীব্র ইচ্ছা থেকে সে ঢাকা মেডিকেলেই ভর্তি হয়।

এরপর দিবারাত্র অজস্র পরিশ্রম করে সে এমবিবিএস, এফসিপিএস, এমডি পাশ করে। পদোন্নতি হয় সিলেট মেডিকেলে।

জীবনের কোন ভয়ে ভীত না হয়ে সে বীরদর্পে চিকিৎসা দিতে থাকে মানুষের। নিরোগ, সম্পূর্ণ সুস্থ্য এই ফিল্ড মার্শাল যোদ্ধা নির্দেশিত হয়ে ঢাল তলোয়ার ছাড়াই করোনার বিরুদ্ধে প্রাণপন যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে। ফলাফল যা হবার তাই-ই হয়। অদৃশ্য ভয়ঙ্কর শত্রু করোনার কাছে ধরাশায়ী হয় সে। মৃত্যুর সাথে প্রচন্ড যুদ্ধ করার পর আজ সকালে হেরে যায়।

আমাদের সকলকে এক নির্বাক শোক, কষ্ট আর পাথর বানিয়ে দিয়ে চলে যায় পরপারে। তার আত্মার শান্তি কামনা করছি। তার পরিবারকে শান্তনা দেবার কোন ভাষাই আর জানা নেই। তবুও সমব্যাথী। গুমরে ওঠা কান্নায় আজ বাংলার আকাশ বাতাস যেন ভারী হয়ে উঠেছে!

আমি অভিশাপ দিচ্ছি সেই সব অবিমৃশ্যকারীদের যাদের খামখেয়ালীপনায় ঢাল তলোয়ার ছাড়াই যুদ্ধ করতে বাধ্য হয়েছিল এই ফিল্ড মার্শাল। তারা হয়তো বুঝতেই পারছে না 'অর্ডার' করেই যোদ্ধাদের এমন মৃত্যুকূপে ঠেলে দিলে একদিন তাদের নিজেকেই করুন বিপদ আর কষ্টকর মৃত্যুকে আলিঙ্গন করতে হবে!

রবী ঠাকুর যেমন বলেছেন-

হে মোর দূর্ভাগা দেশ, যাদের করেছ অপমান,
অপমান হতে হবে তাদের সবার সমান!

আমি বলবো-

হে বীর! হে শহীদ! হে ফিল্ড মার্শাল ডা. মঈন!
তুমি রবে নীরবে, হৃদয়ে মম....!

  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা
পিতাকে নিয়ে ছেলে সাদি আব্দুল্লাহ’র আবেগঘন লেখা

তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না