২৮ মার্চ, ২০২০ ১২:২১ পিএম

মা-বাবাকে বলো না, তাঁরা দুশ্চিন্তা করবেন: মৃত্যুর আগে স্বাস্থ্যকর্মীর বার্তা

মা-বাবাকে বলো না, তাঁরা দুশ্চিন্তা করবেন: মৃত্যুর আগে স্বাস্থ্যকর্মীর বার্তা

মেডিভয়েস ডেস্ক: প্রাণঘাতী মহামারি করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে এর ভয়াল থাবা থেকে রেহাই পাচ্ছেন না চিকিৎসক, নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীরাও। সম্প্রতি করোনায় আক্রান্ত রোগীদের সেবা দিতে গিয়ে নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের একটি হাসপাতালের নার্স ব্যবস্থাপক কিউস কেলি মারা গেছেন। মৃত্যুর আগে তার বোন মারিয়া প্যাট্রিস শেরনকে একটি হৃদয়বিদারক বার্তা পাঠিয়েছিলেন।

ওই বার্তায় তিনি লিখেছিলেন, ‘আমি করোনভাইরাসে আক্রান্ত, নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে আছি। অনেক কষ্টে বার্তাটি লিখছি, কিন্তু কথা বলতে পারছি না। আমি ঠিক আছি, মা-বাবাকে বলো না। তাঁরা দুশ্চিন্তা করবেন।’

এটিই ছিল কেলির শেষ বার্তা। এরপর এক সপ্তাহের কম সময়ে তিনি মারা যান।

এ ঘটনার পর কেলির বোন জানান, তাঁর হাঁপানি হয়েছিল, তবে অন্য কোনো রোগ ছিল না। মারিয়া প্যাট্রিস ফেসবুকে বলেন, ‘আমার ভাই সুস্থ ছিল। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় কেলির মৃত্যু হয়েছে। তারা চাইলে তাকে বাঁচাতে পারত।’

কেলির সহযোগী নার্সরাও তাঁর মৃত্যুতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অনেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিযোগ করেন, নার্সদের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ মাস্কসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম নেই।

উল্লেখ্য, মহামারি করোনার ভয়াল তাণ্ডবে বিপর্যস্ত বিশ্ব। ইতালি, স্পেনের পর সবচেয়ে শোচনীয় অবস্থা যুক্তরাষ্ট্রের। দেশটিতে এরই মধ্যে করনায় আক্রান্ত ৮৫ হাজারের বেশি। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৩০০ জনের। নিউইয়র্ক সিটিতে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ৩৯ হাজার ছুঁই ছুঁই। সেখানে মারা গেছেন ৪৬৬ জন। শহরের হাসপাতালগুলোর জরুরি সেবাকক্ষ, এমনকি ফ্লোরেও জায়গা নেই। হাসপাতালে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের সংকট দেখা দিয়েছে। লাশের স্তূপ জমছে। নার্সদের জন্যও মাস্কসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম না থাকার কারণে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অনেকে হাসপাতালে কাজ করছেন। রোগীদের সেবা দিতে গিয়ে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যান কিউস কেলি।

সূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস

  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
আন্তর্জাতিক এওয়ার্ড পেলেন রাজশাহী মেডিকেলের নার্স
জীবাণু সংক্রমণ প্রতিরোধে অসামান্য অর্জন

আন্তর্জাতিক এওয়ার্ড পেলেন রাজশাহী মেডিকেলের নার্স