২৫ মার্চ, ২০২০ ০৫:১১ পিএম

জীবন বাজিরাখা চিকিৎসকদের প্রতি সাকিবের ‘সালাম’

জীবন বাজিরাখা চিকিৎসকদের প্রতি সাকিবের ‘সালাম’
সাকিব আল হাসান, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক। ছবি: সংগৃহীত

মেডিভয়েস রিপোর্ট: চীনের উহান প্রদেশ থেকে নভেল করোনা ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে। এতে আক্রান্তের সংখ্যার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে প্রতিনিয়ত বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। দেশেও প্রাণঘাতি এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯ জন। প্রাণ হারিয়েছেন ৫ জন। 

দেশের এ ক্রান্তিলগ্নে জীবন বাজি রেখে সেবা দিয়ে যাওয়া চিকিৎসকসহ সকল স্বাস্থ্যকর্মীর প্রতি সালাম জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের সাবেক অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তিনি তাঁর টাইমলাইনে লিখেছেন, ‘সকল দেশবাসীকে সুরক্ষিত রাখতে যারা মারাত্মক এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত লড়াই করে চলেছেন তাদেরকে জানাই আমার সালাম। ধন্যবাদ জানাই প্রতিটি ডাক্তার, নার্স, চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা কর্মী, স্বেচ্ছাসেবক, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও পুলিশ বাহিনীর সদস্য এবং সরকারি কর্মকর্তাদের যারা নিঃস্বার্থ ও অক্লান্তভাবে লড়াই করে চলেছেন। 

দেশের জনগণের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আমরা তাদের সাহায্য করতে যা পারি তা হলো- বাসায় অবস্থান করা, প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করা এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ মেনে চলে এই কঠিন সময়ে তাদের সহায়তা করা। তবেই আমরা একসাথে এই পরিস্থিতির মোকাবেলা করতে পারবো। আল্লাহ আমাদের সকলকে সাহায্য করুন।’

আরেক সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম তাঁর টাইমলাইনে জাতির উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আসসালামু আলাইকুম। আপনারা সবাই জানেন করোনাভাইরাসের সংক্রমণে চারদিকে ক্রমেই ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯ রোগ। এই রোগ প্রতিরোধে কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে পুরো বিশ্ব। বাংলাদেশও ব্যতিক্রম নয়। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে যার যার জায়গা থেকে।’

তিনি বলেন, ‘এর অংশ হিসেবে আমরা ক্রিকেটাররা একটা উদ্যোগ নিতে যাচ্ছি, যেটি হয়তো অনুপ্রাণিত করতে পারে আপনাদেরও। আমরা এই মাসের বেতনের ৫০ শতাংশ দিয়ে একটা তহবিল গঠন করেছি। এই তহবিল ব্যয় হবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণে আক্রান্ত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত ও সাধারণ মানুষ যাদের গৃহবন্দি থাকা অবস্থায় জীবন চালিয়ে নিতে অনেক কষ্ট হয়।’

গঠিত ওই তহবিলে প্রায় ৩০ লাখ টাকার মতো জমা পড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কর কেটে থাকবে ২৬ লাখ টাকা। করোনার বিরুদ্ধে জিততে হলে আমাদের এই উদ্যোগ হয়তো যথেষ্ট নয়। কিন্তু যাদের সামর্থ্য আছে সবাই যদি এক সঙ্গে এগিয়ে আসেন কিংবা ১০ জনও যদি এগিয়ে আসেন, এই লড়াইয়ে আমরা অনেক এগিয়ে যাবো। হ্যাঁ, এরই মধ্যে করোনা মোকাবিলায় অনেকে এগিয়ে এসেছেন। তাদের অবশ্যই সাধুবাদ জানাই। কিন্তু বৃহৎ পরিসরে যদি আরও অনেকে এগিয়ে আসে, তাহলে আমরা এই লড়াইয়ে জিততে পারবো ইনশাআল্লাহ। সেই সহায়তা হতে পারে ১০০, ৫০০০ কিংবা ১ লাখ টাকা দিয়ে। টাকা দিয়ে না হোক হতে পারে দুস্থ মানুষকে খাবার কিনে দিয়ে। আসুন পুরো দেশকে আমরা একটা পরিবার ভেবে চিন্তা করি এবং এই বিপদে সবাই সবাইকে সহায়তা করি। আল্লাহ আমাদের নিশ্চয়ই রক্ষা করবেন। ইনশাআল্লাহ!’


 

  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি