২৩ মার্চ, ২০২০ ০১:৩০ পিএম

বাঙালি সমাচার: প্রসঙ্গ করোনাভাইরাস

বাঙালি সমাচার: প্রসঙ্গ করোনাভাইরাস

বিশ্বের সবচেয়ে বিস্ময়কর জাতি কোনটি? উত্তর অত্যন্ত সহজ! বাঙালি!

বাঙালি জাতি সম্পর্কে এক প্রখ্যাত আর্জেন্টাইন পরিব্রাজক যথার্থই বলেছিলেন, ‘Off all the Nations I have seen, The Bangali are more mysterious, more peculiar!’

বাঙালিদের লোভ রন্ধ্রে রন্ধ্রে এবং দুর্নীতি শিরায় শিরায়! 

সমগ্র বিশ্ব যখন করোনা ভয়ে বিমানবন্দর থেকে তাদের দেশে ফেরা লোকজনদের যথাযথভাবে কোয়ারান্টাইনে পাঠাতে ব্যস্ত সেখানে এক বাংলাদেশি একজন ইটালি প্রবাসীর পোস্ট পড়ুন।  

তার পোস্ট হুবহু তুলে দেয়া হলো—

‘আজ সকালে ঢাকা এয়ারপোর্টে ইতালি থেকে আমার এক কলিগের ওয়াইফ ল্যান্ড করে। আমার কলিগ বললো ওই বিমানের কারোই কোনো পরীক্ষা হয়নি। উপরন্তু ৫০০ টাকার বিনিময়ে একটা সার্টিফিকেট নিতে অনেককেই বাধ্য হয়ে ইমিগ্রেশন ক্রস করতে হয়েছে। অনেকেই নিয়েছে এজন্য যে এইখানে ফালাফালি করলে হয়তো জোরপূর্বক ১৪ দিনের কোয়ারন্টাইনে পাঠানো হবে। এই হচ্ছে আপনার দেশের করোনা প্রতিরোধের ব্যবস্থা।  আর আপনি আছেন মাস্ক আর স্যানিটাইজারের দাম নিয়ে। যেকোনো বিপদকে আশীর্বাদ মনে করে এই দেশে ধান্দা হয়। কেয়ামতের মাঠে যখন সবাই ইয়া নাফসি করবে তখনো যদি কোন ধান্ধা করার, চুরি করার ন্যূনতম সুযোগ থাকে তবে বাংলাদেশিরা সেখানেও ইয়া নাফসি বাদ দিয়ে ধান্দা করবে, চুরি করবে! একটা জাতি এতো ছ্যাছড়া হয় কেমনে? এদের ঠিক কত লাগে?’

প্রবাসী বাঙালিরা দেশে ফিরে কোয়ারান্টাইনে থাকার কথা। কতটুকু কোয়ারান্টাইনে আছেন তা সরকারি পর্যায়ের দায়িত্বশীল ব্যক্তিসহ সবাই জানেন! 

সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া খবর—প্রবাসী এক তরুণ দেশে ফিরেই তার গফকে বাইকের পেছনে তুলে নিয়ে পাবলিক প্লেসে যত্রতত্র ঘুরে বেড়াচ্ছে। এই ভিডিও ক্লিপসের ব্যাকগ্রাউন্ডে মিউজিক—‘ধুম মাচালে ধুম মাচালে ধুম...’

আরেক প্রবাসী তরুণ দেশে ফিরে কোয়ারন্টাইনে থাকা অবস্থায় ধুমধাম করে বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন। বাহ কেয়া বাত হ্যায়! 

প্রবাসি বাঙালিদের তুলনায় খাঁটি বাঙালিরা পিছিয়ে থাকবেন কেন? কোয়ারাইন্টাইনে থাকা এক প্রবাসী বাঙালিকে দেখতে অন্য বাঙালিরা ভীড় করছেন এমন নজিরও আছে!

মজার ব্যাপার আরও আছে, দুই প্রবাসী বাঙালি কোয়ারান্টাইনে থাকা অবস্থায় পালাচ্ছিল। অন্য চার বীর বাঙালি তাদের দাবড়িয়ে ধরে চ্যাঙদোলা করে নিয়ে এসেছে! সেই চার বীর বাঙালিকে সম্বর্ধনা দিতে গ্রামের বাকি বাঙালিরা একত্র হয়েছে। সবাই করোনা বিষয়ে কত সচেতন! আহ! 

করোনা সঙ্কট মোকাবেলায় স্কুল কলেজ ছুটি দেয়ার পর বাঙালিরা এখন ছুটি কাজে লাগাতে ব্যস্ত। তারা কেউ কেউ বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আবার তাদের বিশাল সংখ্যক কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতে ভীড় করছে! 

হাততালি!

করোনা বিষয়ে আজকাল আবালবৃদ্ধবণিতা নারীপুরুষ সকল বাঙালি বিশেষজ্ঞ বলাই বাহুল্য। তাফসিরকারী  হুজুররা যে আরো বিশেষভাবে বিশেষজ্ঞ তা তাদের বয়ানেই সুস্পষ্ট। একজন তো করোনা প্রতিরোধী ওষুধের ফর্মুলা পেয়ে গেছেন। ইতালি প্রবাসী একজনের কাছ থেকে স্বপ্নে পাওয়া সেই 1.Q7+6=13 ফর্মুলা দিয়ে করোনার ওষুধ বানানোর কাজে লেগে পড়েছেন সেই হুজুর। ওষুধটা তৈরি করতে পারলে তিনি আগামীতে চিকিৎসায় নোবেল পুরস্কারটা পেয়েই যাচ্ছেন সন্দেহ নেই! সেক্ষেত্রে ৪র্থ বাঙালি হিসেবে তিনি সেই নোবেল জয়ী হয়ে যাবেন। হাততালি!

চীন যেখানে করোনার ওষুধ আবিষ্কার করতে ২ মাস সময় চেয়েছে, অস্ট্রেলিয়া তিনমাস। বাকি বিশ্বের উন্নত দেশগুলো এ ওষুধ আবিষ্কারে অসহায়।  সেখানে বাংলাদেশের বেশ কিছু হোমিও এবং কোয়াক ফুটপাতে ওষুধ বিক্রি করছে। বিশাল সাফল্য বলা যায়। 

আবার কেউ কেউ থানকুনি পাতায় করোনার চিকিৎসা হয় বলেও তাদের 'গবেষণালব্ধ' ফলাফল ঘোষণা করলেন! বাঙালি হুমড়ি খেয়ে পড়ল সেই থানকুনি পাতার উপর। দশ টাকার থানকুনি বেড়ে দাঁড়ালো চারশত টাকায়! বাঙালি পারেও মাইরি! 

বাঙালি গণতান্ত্রিক ধারাকে সমুন্নত রাখতে সব সময় বদ্ধপরিকর। সভা সমাবেশ মিটিং মিছিল তাদের রক্তে বইছে। কোনো নিষেধাজ্ঞা তাদের দাবিয়ে রাখতে পারে না। কেয়ামত এলেও বাঙালি মনে হয় এসব ছাড়া থাকতে পারবে না। করোনা সঙ্কটে সভা-সমাবেশে সরকারি নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের সভা, সমাবেশ মিটিং মিছিল চলছে রীতিমত ঢাকঢোল পিটিয়ে! 

এটাই বাঙালি চরিত্র! আরো একবার হাততালি!

রবি ঠাকুর তো এমনি এমনি বলেননি---
‘সাত কোটি সন্তানের হে মুগ্ধ জননী
রেখেছো বাঙালি করে-
মানুষ করোনি!’

  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
সিন্ডিকেট মিটিংয়ে প্রস্তাব গৃহীত

ভাতা পাবেন ডিপ্লোমা-এমফিল কোর্সের চিকিৎসকরা

প্রস্তুতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

অক্টোবর-নভেম্বরে ২য় ধাপে করোনা সংক্রমণের শঙ্কা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত