কামারুজ্জামান নাবিল

কামারুজ্জামান নাবিল

ছাত্র, ডক্টর অব মেডিসিন, ইস্পাহান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ইরান


১০ মার্চ, ২০২০ ০৮:৪২ পিএম

‘প্রতি জেলায় চালু হোক করোনাভাইরাস হটলাইন’

‘প্রতি জেলায় চালু হোক করোনাভাইরাস হটলাইন’

বিশ্বের প্রায় সবপ্রান্তে যখন করোনাভাইরাসের আতঙ্ক বিরাজ করছে তখন একটি আইডিয়া আপনাদের সাথে শেয়ার করছি। যে কাজটি এখন আমরা আমাদের ইরানের ইস্পাহান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক সংগঠন ‘জিহাদ সালামাতর’ মাধ্যমে বাস্তবায়ন করছি, যে কার্যক্রম ১০ দিন হচ্ছে চালু রয়েছে।

করোনাভাইরাস নিয়ে জনগণের মাঝে অনেক প্রশ্ন থাকবে সেটাই স্বাভাবিক আর এসব প্রশ্নের জবাব জানতে যদি হাসপাতালে যেতে হয়, তাহলে কজনই বা যেতে আগ্রহী হবেন—এমন প্রশ্নই থেকে যায়।  

তাই কেউ যদি অসুস্থতা অনুভব করেন এবং বুঝতে না পারেন তাঁদের কি করা উচিত সেক্ষেত্রে আমাদের ইস্পাহানের নাগরিকদের জন্য আলাদাভাবে আমরা করেছি ২৪ ঘণ্টা হটলাইনের ব্যবস্থা। 

যে সেবায় দিনের ২৪ ঘণ্টাকে ৫ ভাগে বিভক্ত করে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে ইরানি নাগরিকদের করোনাভাইরাস নিয়ে প্রশ্নের জবাব দিচ্ছেন ইস্পাহানে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে তৃতীয় বর্ষ থেকে এবং উপর পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা।

আমাদের দেশেও দেখলাম আইইডিসিআর কিছু হটলাইন দিয়েছে এবং সেখানে কয়েকটি নাম্বার দেয়া হয়েছে। এটি অবশ্যই ভালো উদ্যোগ, কিন্তু অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অভিযোগ করেছেন এসব নম্বরে কল দিয়ে নাকি পাওয়া যাচ্ছে না। 

আরো প্রশ্ন হচ্ছে এই নাম্বারগুলো কি শুধু বিদেশ ফেরতদের জন্য কিনা। যাই হোক, যদি আমরা পুরো দেশকে করোনাভাইরাস নিয়ে ভাবি, তবে এই কয়টা নম্বর সত্যিই নগণ্য।

আমার পরামর্শ, সম্ভব হলে দেশের প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে আমরা যেমনটা করছি, সেভাবে প্রতিটি জেলার জন্য আলাদাভাবে হটলাইনের ব্যবস্থা করা হোক। এতে খুব সহজেই দেশের মানুষ করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক থেকে মুক্তি পেতে পারে। 

আশা করছি, সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলরা বিষয়টি ভেবে দেখবেন যদি তাঁদের আয়ত্বের মধ্যে থাকে।

  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি